Advertisement
২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২
MS Dhoni

MS Dhoni: হু হু করে বিকোচ্ছে ‘ধোনি সিমেন্ট’, মাহির নাম যোগ হতেই বাড়ল দর

সিএসকে ব্র্যান্ডে সিমেন্ট বাজারে এনেও প্রত্যাশিত সাফল্য পায়নি ইন্ডিয়া সিমেন্টস। কিন্তু ধোনির নাম ব্যবহার করতেই পণ্যের বিক্রি বেড়েছে।

এখনও ব্র্যান্ড ভ্যালু বাড়ছে ধোনির।

এখনও ব্র্যান্ড ভ্যালু বাড়ছে ধোনির। ফাইল ছবি।

নিজস্ব প্রতিবেদন
শেষ আপডেট: ০৯ অগস্ট ২০২২ ২১:২৭
Share: Save:

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসর নেওয়ার পরেও বিজ্ঞাপনের দুনিয়ার বাড়ছে মহেন্দ্র সিংহ ধোনির চাহিদা। ব্যান্ড ভ্যালু বা পণ্য মূল্যের বিচারে ধোনি এখন দেশের পঞ্চম বৃহত্তম নাম। ধোনির নাম ব্যবহার করেই ব্যবসা বাড়াচ্ছে তাঁর আইপিএল ফ্র্যাঞ্চাইজির মূল অংশীদার সংস্থা।

চেন্নাই সুপার কিংসের মূল অংশীদার সংস্থা ইন্ডিয়া সিমেন্টস বাজারে নিয়ে এসেছে ‘কংক্রিট সুপার কিংস’ সিমেন্ট। আইপিএল দলের নামের সঙ্গে মিলিয়ে নতুন পণ্যের নাম রেখেছে সংস্থা।

সিএসকে, অর্থাৎ, চেন্নাই সুপার কিংস, আবার কংক্রিট সুপার কিংস। নামের মিলের পাশাপাশি নতুন পণ্যকে নেটমাধ্যমে প্রচার করা হয়েছে ‘ধোনি সিমেন্ট’ বলে। প্রচারের এই কৌশলেই বাজিমাত করেছে ইন্ডিয়া সিমেন্টসের নতুন পণ্য। দেদার বিকোচ্ছে বাজারে। প্রথমে অবশ্য ধোনির নাম ব্যবহার করা হয়নি। শুধু সিএসকে নামেই প্রচার করা হয়েছিল। তেমন সাফল্য না আসায় ভারতের প্রাক্তন অধিনায়কের নাম ব্যবহার শুরু হয়। গত ১৬ মার্চ বাজারে আসা এই পণ্যের বিক্রি তার পর থেকেই হু হু করে বাড়তে শুরু করেছে।

এখন শুধু আইপিএল খেলেন ধোনি। তাও তাঁর জনপ্রিয়তা অটুট। ধোনির নাম ব্যবহারের পর থেকে সিএসকে সিমেন্টের বিক্রি যে ভাবে বেড়েছে তাতে চমকে গিয়েছেন খোদ সংস্থার কর্তারাই। এখনও পর্যন্ত দেড় লক্ষ টন বিক্রি হয়েছে সিএসকে। মার্চ মাস থেকে সংস্থা যে পরিমাণ সিমেন্ট বিক্রি করেছে, তার আট শতাংশই সিএসকে। শেষ তিন মাসের হিসাবে সিএসকে বিক্রির পরিমাণ প্রায় ৪৮ শতাংশ।

২০০৮ সাল থেকে সিএসকের হয়ে আইপিএল খেলছেন ধোনি। ২০১৩ সালে ইন্ডিয়া সিমেন্টসের ভাইস-প্রেসিডেন্ট (মার্কেটিং) পদে যোগ দেন তিনি। সংস্থার মুখ্য বিপণন আধিকারিক আর পার্থসারথী বলেছেন, ‘‘অনেকেই দোকানে এসে এখন ধোনি সিমেন্টের খোঁজ করেন। শেষ তিন মাসেই আমরা এক লক্ষ টন ‘ধোনি সিমেন্ট’ বিক্রি করেছি।’’

ধোনির পণ্য মূল্য ২০২১ সালে বেড়ে হয় ৬১ মিলিয়ন ডলার। যা ভারতীয় মুদ্রায় ৪৮.৫ কোটি টাকার বেশি। অথচ ২০২০ সালে ধোনির পণ্য মূল্য ছিল ৩৬.৩ মিলিয়ন ডলার বা প্রায় ২৯ কোটি টাকার মতো। অর্থাৎ, এক বছরে তা বেড়েছে ৬৯ শতাংশ।

সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে ইন্ডিয়া সিমেন্টসের ‘ধোনি সিমেন্ট’-র বিক্রি বেড়েছে মূলত ব্র্যান্ড ধোনির উপর নির্ভর করেই। উল্লেখ্য, পণ্য মূল্যের নিরিখে ধোনি এখন দেশে পঞ্চম। তাঁর আগে রয়েছেন বিরাট কোহলী, রণবীর সিংহ, অক্ষয় কুমার এবং অলিয়া ভট্ট।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.