Advertisement
০২ ফেব্রুয়ারি ২০২৩
Shoaib Akhtar

Shoaib Akhtar: সচিনদের বাঁদর নাচ নাচাতে দারুণ লাগত, বলছেন শোয়েব আখতার

কেন এত বাউন্সার করতেন পাকিস্তানের ফাস্ট বোলার শোয়েব আখতার? কেন মারতেন বোলারদের শরীরে? নিজেই জানালেন শোয়েব।

বোলার হিসাবে ভয়ঙ্কর ছিলেন শোয়েব

বোলার হিসাবে ভয়ঙ্কর ছিলেন শোয়েব ফাইল চিত্র

নিজস্ব প্রতিবেদন
কলকাতা শেষ আপডেট: ০২ জুন ২০২২ ২০:৫৭
Share: Save:

সচিন-দ্রাবিড়দের বাঁদর নাচ নাচাতে দারুণ পছন্দ করতেন শোয়েব আখতার। চাইতেন, ব্যাটাররা যখন আয়নার সামনে গিয়ে দাঁড়াবেন, তখন যেন তাঁর মুখটা মনে পড়ে। তাই আগুনের গোলার মতো বলগুলো বেরোত তাঁর হাত থেকে। তাঁর করা বাউন্সারে কত ব্যাটার যে আহত হয়েছেন, ইয়ত্তা নেই। তাতেই মজা পেতেন পাকিস্তানের ফাস্ট বোলার।

Advertisement

সম্প্রতি একটি সাক্ষাৎকারে শোয়েব বলেন, ‘‘বাউন্সার সামলাতে গিয়ে বাঁদরের মতো লাফাত ব্যাটাররা। সেটা দেখে খুব মজা পেতাম। মিথ্যা কথা বলব না। আমি ব্যাটারদের মাথায় বল মারতে চাইতাম। নইলে ফাস্ট বোলার হয়ে কী লাভ।’’

ব্যাটারদের মনে ভয় ধরাতে চাইতেন শোয়েব। চাইতেন তাঁকে যেন ব্যাটাররা মনে রাখেন। তাই গতির সঙ্গে কোনও দিন আপস করেননি। শোয়েব বলেন, ‘‘আমাকে দেখে ব্যাটাররা ভয় পাক, সেটাই চাইতাম। অত দূর থেকে দৌড়ে এসে ঘণ্টায় ১৫০ কিলোমিটার গতিবেগে কি ব্যাটারের পায়ের কাছে বল করব। গায়েই তো মারব। যেখানে লাগবে সেখানে ফুলে যাবে। পরে যখন সেই ব্যাটার আয়নায় নিজেকে দেখবে তখন আমার মুখটা মনে পড়বে ওর।’’

পাকিস্তানের হয়ে ৪৬টি টেস্টে ১৭৮টি উইকেট নিয়েছেন শোয়েব। ১৬৩টি এক দিনের ম্যাচে ২৪৭টি উইকেট নিয়েছেন তিনি। টি২০ ক্রিকেট যখন শুরু হয় তখন কেরিয়ারের সায়াহ্নে শোয়েব। কুড়ি বিশের ক্রিকেটে ১৫টি ম্যাচে ১৯টি উইকেট নিয়েছেন তিনি। পাকিস্তানের হয়ে ১৯৯৯, ২০০৩ ও ২০১১ সালের বিশ্বকাপ খেলেছেন শোয়েব। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে সব থেকে দ্রুতগতির বল তাঁর হাত থেকেই বেরিয়েছে। ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে ২০০৩ সালের বিশ্বকাপে ঘণ্টায় ১৬১.৩ কিলোমিটার গতিবেগে বল করেছিলেন তিনি।

Advertisement

সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ

Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.