Advertisement
২৮ মার্চ ২০২৩
syed mustaq ali trophy

অসুস্থ ঈশান ছাড়াই আজ পরীক্ষা বাংলার

লখনউয়ে পৌঁছেই ‘চিকেনপক্স’ ধরা পড়েছে ঈশানের। অপেক্ষা না করে তাঁকে পাঠিয়ে দেওয়া হয় কলকাতায়। লখনউ থেকে ফিরে আসায় প্রথম দুই ম্যাচে পাওয়া যাচ্ছে না তাঁকে।

জুটি: জাতীয় টি-টোয়েন্টিতে পরীক্ষা ঈশ্বরন-লক্ষ্মী জুটির। ফাইল চিত্র

জুটি: জাতীয় টি-টোয়েন্টিতে পরীক্ষা ঈশ্বরন-লক্ষ্মী জুটির। ফাইল চিত্র

নিজস্ব সংবাদদাতা
শেষ আপডেট: ১১ অক্টোবর ২০২২ ০৭:১৪
Share: Save:

ঝাড়খণ্ডের বিরুদ্ধে আজ, মঙ্গলবার সৈয়দ মুস্তাক আলি ট্রফির অভিযানে নামছে বাংলা। লখনউয়ের বিই গ্রাউন্ডে সকাল ১১টা থেকে ম্যাচ। কিন্তু তার আগের দু’দিন বৃষ্টির জন্য অনুশীলনেই নামতে পারল না বাংলা দল। তারই মধ্যে লক্ষ্মীরতন শুক্লর উদ্বেগ বাড়িয়েছে ঈশান পোড়েলের অসুস্থতা।

Advertisement

লখনউয়ে পৌঁছেই ‘চিকেনপক্স’ ধরা পড়েছে ঈশানের। অপেক্ষা না করে তাঁকে পাঠিয়ে দেওয়া হয় কলকাতায়। লখনউ থেকে ফিরে আসায় প্রথম দুই ম্যাচে পাওয়া যাচ্ছে না তাঁকে। মুকেশ কুমার ও শাহবাজ় আহমেদও ভারতীয় দলের সঙ্গে রয়েছেন। আকাশ দীপের সঙ্গে নতুন বলে কে শুরু করবেন, তা নিয়েই সিদ্ধান্ত নিতে হবে বাংলার কোচকে। লক্ষ্মীরতন শুক্লর হাতে রয়েছে দু’জন বিকল্প। রবি কুমার ও গীত পুরি। বাংলার হয়ে আগেও খেলেছেন গীত। টি-টোয়েন্টি ফর্ম্যাটে খেলার অভিজ্ঞতা রয়েছে। এ দিকে, রবির এখনও বাংলার জার্সিতে অভিষেক হয়নি। শোনা যাচ্ছে ঝাড়খণ্ডের বিরুদ্ধেই অভিষেক হতে পারে অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ জয়ী বঙ্গ পেসারের।

বাংলার কোচ লক্ষ্মীরতন বলছিলেন, ‘‘বৃষ্টির জন্য ম্যাচের আগের দিন অনুশীলন করা সম্ভব হয়নি। আকাশ দীপের সঙ্গে কাকে খেলানো যায়, তা নিয়ে আলোচনা হবে। মাঠে গিয়ে পিচ দেখেই ঠিক করা হবে প্রথম একাদশ।’’ যোগ করেছেন, ‘‘ঈশানের পরিবর্ত হিসেবে রবি কুমার ও গীত পুরির মধ্যে যে কোনও একজনকে খেলানো হবে। পিচ পেস-সহায়াক থাকলে দু’জনে একসঙ্গেও খেলতে পারে। পুরোটাই নির্ভর করছে পরিবেশের উপরে। সকাল ১১টা থেকে ম্যাচ। বৃষ্টির আবহাওয়ায় তিন পেসার নিয়ে নামতে হতেই পারে।’’

বাংলার কোচ হিসেবে এই প্রথম কোনও বড় প্রতিযোগিতায় পরীক্ষা শুরু হবে লক্ষ্মীর। তিনি যদিও আত্মবিশ্বাসী। বলছিলেন, ‘‘এত ভাল প্রাক-মরসুম প্রস্তুতি আগে কখনও হয়েছে বলে জানা নেই। বর্ষাকালে আমরা সে ভাবে ব্যাটিং-বোলিং করতে পারতাম না। ফিজ়িক্যাল ট্রেনিংয়ের উপরেই জোর দিতে হত। বর্ষাকালে টার্ফ উইকেটে প্র্যাক্টিস করার মতো সুযোগ ছিল না বাংলায়। ইন্ডোরে প্রস্তুতি নেওয়ার সুযোগ থাকলেও সেখানে সিন্থেটিক উইকেট রয়েছে। পুদুচেরিতে আমরা অনুশীলন করে উপকৃত হয়েছি। বিশাখাপত্তনমে প্রস্তুতি ম্যাচ খেলেও সকলে চাঙ্গা। যার যেখানে সমস্যা ছিল, তা শুধরে নেওয়া গিয়েছে।’’

Advertisement

ব্যাটিং বিভাগ নিয়ে আপাতত কোনও উদ্বেগ নেই বাংলা শিবিরের। অভিষেক দাস, অভিমন্যু ঈশ্বরনেরা ছন্দে রয়েছেন। রণজ্যোৎ সিংহ খাইড়া, সুদীপ ঘরামি, ঋত্বিক চট্টোপাধ্যায় ও অভিষেক পোড়েলের উপরে দলের রান এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার দায়িত্ব থাকবে। টি-টোয়েন্টি দল হিসেবে ঝাড়খণ্ড যথেষ্ট শক্তিশালী। বিরাট সিংহ, অনুকূল রায়ের মতো ব্যাটসম্যান আছেন। শাহবাজ় নাদিমের মতো বোলার রয়েছেন। তাঁদের বিরুদ্ধে সেরাটা উজাড় করে দিতে না পারলে বাংলার সামনে পথ খুব একটা মসৃণ হবে না। লক্ষ্মী বলে দিলেন, ‘‘প্রত্যেক ম্যাচ ফাইনাল হিসেবে না খেললে এই প্রতিযোগিতায় জেতা যাবে না।’’

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.