Advertisement
০৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৩
Bhuvneshwar Kumar

শেষের দিকে কেন ফের ভুবনেশ্বর, প্রশ্ন শাস্ত্রীদের

প্রাক্তন ভারতীয় পেসার ইরফান পাঠানও তাঁর মতামত জানিয়েছেন। তাঁর টুইট, ‘‘আবারও বলতে বাধ্য হচ্ছি, ভুবিকে শেষ পাঁচ ওভারে শুধুমাত্র এক ওভার বল দেওয়া হোক।’’

ভুবনেশ্বর কুমার।

ভুবনেশ্বর কুমার। ফাইল চিত্র।

নিজস্ব প্রতিবেদন
কলকাতা শেষ আপডেট: ২১ সেপ্টেম্বর ২০২২ ০৬:৫৬
Share: Save:

এশিয়া কাপে পাকিস্তান ও শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে ১৯তম ওভারে বল করতে গিয়ে ম্যাচ হাতছাড়া করে এসেছিলেন ভুবনেশ্বর কুমার। অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে যখন ১২ বলে বাকি ১৮ রান। সেই ভুবির হাতেই বল তুলে দিলেন রোহিত শর্মা। ১৬ রান দিয়ে সেখানেই ম্যাচ শেষ করে দেন অভিজ্ঞ মিডিয়াম পেসার। অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে ভারত সর্বোচ্চ ২০৮ রান করেও জিততে পারল না। চার বল বাকি থাকতেই প্রথম ম্যাচ জিতে যান ম্যাথু ওয়েডরা।

Advertisement

রোহিত শর্মার নেতৃত্ব নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছিল এশিয়া কাপ থেকেই। ভুবনেশ্বর কুমারকে শেষের দিকের ওভারে বল দেওয়ার সিদ্ধান্ত যে খাটছে না, তা জেনেও ফের একই ভুল করলেন ভারতীয় অধিনায়ক। প্রাক্তন ভারতীয় হেড কোচ রবি শাস্ত্রী মানতেই পারছেন না এমন সিদ্ধান্ত। তিনি বলেছেন, ‘‘ভুবনেশ্বরকে বুঝতে হবে, শেষের দিকে বল করতে গেলে আরও নিখুঁত হতে হবে। প্রত্যেকটি ইয়র্কার জায়গায় পড়তে হবে। ডেথ ওভারের বোলার সকলে হতে পারে না। যশপ্রীত বুমরার ইয়র্কার নিখুঁত। তাই ও শেষের দিকে এতটা সফল।’’ যোগ করেন, ‘‘এশিয়া কাপেও রোহিত দেখেছে যে ভুবিকে শেষের দিকে বল দিলে দল সমস্যায় পড়ছে। তবুও একই ঝুঁকি নেওয়ার কি মানে?’’

কিংবদন্তি সুনীল গাওস্করও এই নেতৃত্বকে সমর্থন করছেন না। বলছিলেন, ‘‘দলে ষষ্ঠ বোলারের অভাব থেকেই গিয়েছে। অক্ষর চার ওভারে ১৭ রানে তিন উইকেট নেওয়ার পরেও এই ম্যাচ হারার অর্থ খুঁজে পাচ্ছি না। ২০৮ রান করার পরে যে কোনও পিচে জেতা উচিত।’’ তিনি আরও বলেছেন, ‘‘উমেশের দলে থাকাটা যুক্তিহীন। বিশ্বকাপ দলেও তো ও নেই। তা হলে কেন ওকে রাখা হচ্ছে?’’

প্রাক্তন ভারতীয় পেসার ইরফান পাঠানও তাঁর মতামত জানিয়েছেন। তাঁর টুইট, ‘‘আবারও বলতে বাধ্য হচ্ছি, ভুবিকে শেষ পাঁচ ওভারে শুধুমাত্র এক ওভার বল দেওয়া হোক।’’

Advertisement

অক্ষরকে বাদ দিলে ভারতের আর পাঁচজন বোলার ১০-উপরে ইকনমি রেটে বল করেছে। চার ওভারে ৫২ রান দেন ভুবনেশ্বর। হর্ষল পটেল তাঁর অফকাটারে রীতিমতো ব্যর্থ। তাঁর হাতে আর বিকল্প দেখা যাচ্ছে না। প্রত্যেকটি বল অফকাটার দেওয়ায় প্রতিপক্ষ সহজেই তা পড়ে নিতে পারছে। হর্ষল চার ওভারে দেন ৪৯ রান। দু’ওভারে ২৭ রান দিয়ে স্টিভ স্মিথ ও গ্লেন ম্যাক্সওয়েলকে ফেরান উমেশ। দু’ওভারে ২২ রান দেন হার্দিক পাণ্ড্য। যুজ়বেন্দ্র চহালের উপরেও কি ভরসা করা যাচ্ছে? ৩.২ ওভারে ৪২ রান দিয়েছেন তারকা লেগস্পিনার।

রোহিত নিজেও ক্ষুব্ধ। পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে এসে বলছিলেন, ‘‘এই বোলিং মানা যায় না। ২০০ রান করার পরে যে কোনও পিচে আমাদের জেতা উচিত। একাধিক ক্যাচ নষ্ট করেছি। ব্যাটসম্যানদের যাবতীয় লড়াই নষ্ট হয়ে গেল আমাদের বোলিংয়ের জন্য।’’ যোগ করেন, ‘‘মোহালিতে বড় রান হয় মানছি। কিন্তু কোনও পিচেই ২০৮ রান তাড়া করা সহজ নয়। অস্ট্রেলীয় ব্যাটসম্যানরা অসাধারণ কিছু শট খেলেছে। তবে আমাদের বোলাররাও অনেক মারার জায়গা দিয়েছে। আগামী ম্যাচের আগে কোথায় ভুল হয়েছে তা নিয়ে আলোচনা করতেই হবে।’’

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.