Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

০৭ ডিসেম্বর ২০২১ ই-পেপার

পিস্তল হাতেও কত সাবলীল, দেখালেন ধোনি

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৭ ০৬:২২
নিশানা: পুলিশ ট্রেনিং স্কুলের শুটিং রেঞ্জে মহেন্দ্র সিংহ ধোনি। ছবি: ফেসবুক।

নিশানা: পুলিশ ট্রেনিং স্কুলের শুটিং রেঞ্জে মহেন্দ্র সিংহ ধোনি। ছবি: ফেসবুক।

তাঁর হাতে যেমন ব্যাট চলে, তেমনই পিস্তলও চলে। বুধবার দুপুরে ঘণ্টাখানেকের মধ্যে তার কিছুটা আন্দাজ পেল শহরের পুলিশ মহল। কলকাতার পুলিশ ট্রেনিং সেন্টারে প্রাক্তন ভারত অধিনায়ক মহেন্দ্র সিংহ ধোনি দেখালেন তাঁর পিস্তল-পারফরম্যান্স। যা দেখে রীতিমতো অবাক পুলিশের কর্তারা।

হেলিকপ্টার শট, স্ট্রেট ড্রাইভ, হুক, পুলের মতো যে গানশটেও ‘মাহির’ মাহি, তা বুঝতে আর বাকি রইল না পুলিশের শিক্ষানবিশদেরও। তাঁদের যে ভাবে উৎসাহিত করলেন বিশ্বকাপজয়ী অধিনায়ক, তা হয়তো চিরকাল মনেও থাকবে তাঁদের।

বুধবার ইডেন থেকে হোটেলে ফেরার জন্য তাঁর সতীর্থ ক্রিকেটাররা টিমবাসে উঠে পড়লেও ধোনি রয়েই যান ড্রেসিংরুমে। তিনি কিছুক্ষণ পরে ইডেন থেকে বেরিয়ে রওনা দেন সোজা আচার্য জগদীশ চন্দ্র বোস রোডে পুলিশ ট্রেনিং স্কুলে (পিটিএস)। সেখানকার আধুনিক শুটিং রেঞ্জের খোঁজ নাকি ধোনি আগেই রেখেছিলেন। এ বার কলকাতায় এসে তাই আর সুযোগ নষ্ট করেননি। সঙ্গে নিলেন দলের সতীর্থ ক্রিকেটার মণীশ পাণ্ডেকে। তিনিও এসব বিষয়ে নাকি বেশ আগ্রহী।

Advertisement

পিটিএসে এ দিন তখন উপস্থিত ছিলেন ডিসি ট্রাফিক সলোমন ভি নেসাকুমার এবং অতিরিক্ত নগরপাল ৩ সুপ্রতিম সরকার। তাঁদের সঙ্গে শুটিং রেঞ্জ ঘুরে দেখার পরে গ্লক, ৯ মিলিমিটার পিস্তল হাতে তুলে নেন ধোনি এবং টার্গেটের দিকে শুরু করে দেন গুলি ছোড়া। মণীশ পাণ্ডে তাঁর সিনিয়রের এই প্রতিভা দেখে অবাক। অবাক পুলিশের কর্তারাও। সন্ধ্যায় তাঁদের একজন বলেন, ‘‘ধোনির নিশানা অসাধারণ। দেখে মনে হয়, রীতিমতো টার্গেট প্র্যাকটিস করে।’’

দু’বছর আগে আগ্রায় প্যারা রেজিমেন্টের তত্ত্বাবধানে তিনি রীতিমতো প্রশিক্ষণ নিয়েছিলেন। এই প্রশিক্ষণ প্রধানত ছিল প্যারাজাম্পের জন্য। দু’সপ্তাহের এই ট্রেনিংয়ের পর তিনি পাঁচবার প্যারাশুট জাম্পও দেন। সেই ট্রেনিংয়ের সময়ই তাঁর এই গুলি ছোড়ার অনুশীলন শুরু হয়েছিল। তার আগে ২০১১-য় তাঁকে সাম্মানিক লেফটেন্যান্ট কর্নেলের পদ দেওয়া হয়।

এ দিন পিস্তল শুটিংয়ের পরে তিনি সেখানকার শিক্ষানবিশদের সঙ্গেও দেখা করেন। তাঁদের উদ্দেশ্যে কিছু কথাও বলেন। এক প্রত্যক্ষদর্শী জানান, তিনি ভবিষ্যতের পুলিশদের বলেন, ‘‘আমি যদি একটা ছোট শহর থেকে এই জায়গায় উঠে আসতে পারি, তা হলে তোমরা তো এক একজন চেষ্টা করলে মহাকাশচারীও হতে পারো। চেষ্টা ও পরিশ্রমের কোনও বিকল্প নেই।’’ ধোনির ভাষণ শুনে নাকি খুব উৎসাহিত হয়েছেন তাঁর শ্রোতারা।



Tags:

আরও পড়ুন

Advertisement