×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

১৩ মে ২০২১ ই-পেপার

আনন্দবাজার এক্সক্লুসিভ

পেসারদের ওপর সিডনি উইকেটে বেশি ভরসা না করাই হয়তো উচিত ছিল

গৌতম ভট্টাচার্য
সিডনি ২৭ মার্চ ২০১৫ ০৪:৪৬

বক্তাকে এ দিন সকাল থেকে ফোনে পাওয়া যাচ্ছে না। বহু কষ্টে ধরা গেল অস্ট্রেলীয় ইনিংসের শেষে। তার পর আবার খেলার শেষে। তখন তিনি বাড়ি থেকে বেরিয়ে হসপিটালে ঢুকছেন। বললেন অস্ট্রেলিয়া ইনিংসের শুরুর দিকের অনেকগুলো ওভার দেখতেই পাননি। অসুস্থ কাকাকে নিয়ে গত ক’দিন তিনি আসলে হসপিটাল-বাড়ি আর বাড়ি-হসপিটাল করছেন। পাকিস্তানের প্রাক্তন ক্রিকেটারদের সঙ্গেও নাকি সে ভাবে কথা হয়নি এই হসপিটাল যন্ত্রণার জন্য। বললেন লাহৌরে বসা ওয়াহাব রিয়াজ। পাকিস্তানের ক্রিকেট মহাকাশে উদিত মহাতারা। কলকাতার কোনও কাগজকে দেওয়া তাঁর প্রথম সাক্ষাৎকারে আলোচনা করলেন ভারতের সিডনি-হার নিয়ে...

প্রশ্ন: ৩২৯ বেশি হয়ে গেছে তখনই কি মনে হয়েছিল?

Advertisement

ওয়াহাব: ইন্ডিয়ান ব্যাটিং লাইন আপের জন্য রানটা বিরাট নয়। কিন্তু নক আউটের চাপ অস্ট্রেলিয়া বোলিংয়ের সঙ্গেই ওদের আক্রমণ করবে জানতাম। এত রান তোলা অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে যে কোনও টিমের পক্ষেই ডিফিকাল্ট। ইন্ডিয়া বলে তবু একটা ক্ষীণ আশা ছিল...

প্র: তাই?

ওয়াহাব: প্রথম দশ ওভার ধবন-রোহিত যে ভাবে ব্যাট করছিল, আমি তো ভাবছিলাম ইন্ডিয়া না একটা স্বপ্নের ম্যাচ খেলে ফেলে! কিন্তু কোহলির আউটটাই আপনাদের ভাইটাল হয়ে গেল। ওর রান করাটা টিমের কাছে খুব ইন্সপায়ারিং।

প্র: অস্ট্রেলিয়াকে সিডনি উইকেটে কী ভাবে বল করা উচিত ছিল বলে আপনার মনে হয়?

ওয়াহাব: ইনিংসটা পুরোটা আমি টিভিতে দেখিনি। যেটুকু দেখেছি তাতে মনে হয়েছে ভারত পেসারদের ওপর বড় বেশি নির্ভর করেছিল। সিডনি উইকেটে আমরা একটা প্র্যাকটিস ম্যাচ খেলেছিলাম। বল যায়ই না। সেখানে আপনাকে দুটো স্পিনার দিয়ে উইকেট নেওয়াতে হবে। পেসার এক এন্ডের রানটা চেক করতে পারে। কিন্তু পেসার স্ট্রাইক করবে অন্য ম্যাচগুলোর মতো—ভাবাটা কঠিন।

প্র: ওয়াহাব আপনি হয়তো জানেন না গত দু’দিন ধরে ভারতীয় টিম মিটিংয়ে আপনার নাম নিয়ে আলোচনা হয়েছে।

ওয়াহাব: তাই বুঝি? আরে বাবা ধন্যবাদ!

প্র: ভারত আপনার সাফল্য দেখে সেটা নকল করে শর্ট বল করতে যাওয়াটাই কি ভুল হল?

ওয়াহাব: না ভুল নয়। শর্ট বলে তো উইকেটও পড়েছে। কিন্তু এই যা পিচ, প্রথম ব্যাট করলে পেস বোলার আপনাকে ক্যারি করতে পারবে না। স্পিনারকে এগিয়ে দিয়ে পেসারকে এখানে সাপোর্টিং রাখতে হবে। অ্যাডিলেড পিচ অন্য রকম ছিল।

প্র: আপনারই টিমমেট সরফরাজের সঙ্গে কথা হচ্ছিল। বলছিলেন, ওয়াটসন জীবনে বন্ধুদের ভুলে যেতে পারেন। কিন্তু আপনাকে মনে রাখবেন।

ওয়াহাব: হা হা।

প্র: কিন্তু আপনি ওকে কী বলছিলেন?

ওয়াহাব: আসলে ব্যাট করার সময় ওয়াটসন পিছন থেকে টিটকিরি দিচ্ছিল। বলছিল ব্যাটটা নিয়ে খেলতে এলে না কেন? আমি তাই ওকে বলছিলাম তুই ব্যাটটা আনলি না কেন? এত যখন জানিস। তার পর ও রেগে গেল যখন পিছন থেকে সরফরাজরা বলতে শুরু করল ডিপ ব্রিদিং কর। বলটা তা হলে দেখতে পাবি!



প্র: ওয়াটসনকে আর কিছু আপনি বলেননি?

ওয়াহাব: আর একটা কথা বলেছিলাম যে তোদের দেশে তোরা নাকি সব পুল-হুক ভাল মারিস। তো সেগুলো কোথায় রে? তোর তো ব্যাটেই বল লাগছে না।

প্র: পাকিস্তান আগেই হেরে গিয়েছে। ভারত হারল আজ। কিন্তু আপনি বিশ্বকাপ থেকে ওই একটা স্পেলের জন্য অপরাজিত থেকে গেলেন।

ওয়াহাব: লোকে প্রচুর ভালবাসা জানাচ্ছে দেশে ফেরার পর। দুয়া দিচ্ছে। দায়িত্ব বেড়ে গেল আমার।

প্র: ইমরান বা মিয়াঁদাদ কারও সঙ্গে দেখা হয়েছে?

ওয়াহাব: না সময়ই হয়নি। আসার পর থেকে অসুস্থ চাচাকে নিয়ে পড়ে আছি।

প্র: কী হয়েছে ওঁর?

ওয়াহাব: ক্যানসার। খুব কষ্ট পাচ্ছেন তাই পাশে পাশে আছি।

প্র: আপনি কি লাহৌরের বিখ্যাত অ্যাচিসন কলেজের ছাত্র, যা ক্রিকইনফো লিখছে?

ওয়াহাব: হ্যাঁ ওখান থেকেই পাশ করেছি।

প্র: ইন্ডিয়ান টিম আজ আপনার মতো কাউকে পেলে হয়তো ম্যাচটা বার করে দিত।

ওয়াহাব: শিওর নই। বললাম তো সিডনি আর অ্যাডিলেড এক নয়!

প্র: ফাইনাল কারা জিতবে মনে হয়?

ওয়াহাব: নিউজিল্যান্ড দারুণ ফ্লোয়ে খেলছে।

প্র: তা হলে নিউজিল্যান্ড আপনার ফেভারিট?

ওয়াহাব: উঁ..উঁ...উঁ... না অস্ট্রেলিয়াকে আজ যা দেখলাম তাতে অস্ট্রেলিয়া!

Advertisement