Advertisement
২৩ জুন ২০২৪
Emami East Bengal

Bhaichung Bhutia: অভিজ্ঞতা কম, কল্যাণ সব বুঝতে পারবে না, ইস্টবেঙ্গলে প্রচারে এসে মন্তব্য ভাইচুংয়ের

নির্বাচনী প্রচারে মঙ্গলবার নিজের প্রিয় ক্লাব ইস্টবেঙ্গলে ঘুরে গেলেন ভাইচুং। জানালেন, বড় ম্যাচে দু’দলের খেলাই তাঁকে হতাশ করেছে।

ইস্টবেঙ্গলের আর্কাইভ ঘুরে দেখছেন ভাইচুং।

ইস্টবেঙ্গলের আর্কাইভ ঘুরে দেখছেন ভাইচুং। নিজস্ব চিত্র।

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা শেষ আপডেট: ৩০ অগস্ট ২০২২ ২০:২২
Share: Save:

ইস্টবেঙ্গল ক্লাব থেকেই তাঁর ভারতীয় ফুটবলে উত্থান। নির্বাচনী প্রচারে মঙ্গলবার সেই লাল-হলুদ তাঁবুতে ঘুরে গেলেন ভাইচুং ভুটিয়া। ঘুরে দেখলেন ক্লাবের নবনির্মিত আর্কাইভ। কিছুক্ষণ দলের অনুশীলনও দেখলেন তিনি।

সর্বভারতীয় ফুটবল ফেডারেশনের সভাপতি পদে লড়ছেন ভাইচুং। সেই নির্বাচনী প্রচারে এসে নিজের পুরনো ক্লাবের কর্তাদের সঙ্গে কথা বলে গেলেন। পরে সাংবাদিকদের সঙ্গেও কথা বলেন ভাইচুং। নিজের খেলোয়াড় জীবনের অভিজ্ঞতা কাজে লাগিয়ে ভারতীয় ফুটবলকে এগিয়ে নিয়ে যেতে চান তিনি। সভাপতি পদে তাঁর প্রতিপক্ষ আর এক প্রাক্তন ফুটবলার কল্যাণ চৌবে। প্রাক্তন সতীর্থের সঙ্গে লড়াই নয়, বরং তাঁকে নিয়েই ভারতীয় ফুটবলের জন্য কাজ করতে চান ভাইচুং। তিনি বলেছেন, ‘‘কল্যাণ ফুটবল প্রশাসনে আসছে। আমি ওকে পাশে নিয়েই কাজ করতে চাই। ওর অভিজ্ঞতা একটু কম। চাইলে কোনও রাজ্য সংস্থা ওকে বিভ্রান্ত করতে পারে। আমি সেগুলো বুঝতে পারব।’’

ভাইচুংয়ের স্বপ্ন ভারত এক দিন বিশ্বকাপে খেলবে। সে জন্য পরিকাঠামো উন্নত করতে চান। একই সঙ্গে এ দিন ভাইচুং জানিয়ে দিলেন, বড় ম্যাচ দেখে তিনি হতাশ। এ জন্য অবশ্য কাউকে দোষারোপ করতে নারাজ তিনি। ভাইচুং বলেছেন, ‘‘ডার্বিটা একটু তাড়াতাড়ি হয়ে গেল। মরসুম সবে শুরু হয়েছে। ইস্টবেঙ্গল তো পুরো দল নিয়ে এক দিনও অনুশীলন করার সুযোগ পায়নি। এটিকে মোহনবাগান জিতলেও দল তৈরি হয়নি। দু’দলেরই ফিটনেসের মান এখনও ভাল নয়। তাই খেলা দেখে সকলের মতো আমিও হতাশ। আশা করব এর পর কলকাতা লিগে যখন ডার্বি হবে, তখন দু’দলই ভাল খেলবে। দু’দলেই ভাল ভাল ফুটবলার রয়েছে। তা ছাড়া ইস্টবেঙ্গলের ১০ জন ফুটবলার আগে কখনও এই ম্যাচ খেলেনি। অনেকে দেখেওনি।’’

ইমামি ইস্টবেঙ্গল সদস্য, সমর্থকদের ফলের জন্য ধৈর্য্য ধরার পরামর্শ দিয়েছেন ভাইচুং। তিনি বলেছেন, ‘‘দল তৈরি হলেই সাফল্য আসে না। সময় লাগে। সবে দল তৈরি হয়েছে। কোচ, ফুটবলার, কর্তাদের উপর আস্থা রাখুন।’’ ভাইচুং আশাবাদী লাল-হলুদ কোচ স্টিভন কনস্ট্যান্টাইনকে নিয়েও। প্রাক্তন ফুটবলার বলেছেন, ‘‘কনস্ট্যান্টাইন সব সময় ফল দেন। আমি টেকনিক্যাল কমিটির চেয়ারম্যান থাকার সময় ওঁকে ভারতীয় দলের কোচ করে আনা হয়। তখন যথেষ্ট ভাল ফল করেছে ভারতীয় দল। তার আগে আফ্রিকাতে কোচিং করানোর সময়ও সফল হয়েছেন। কনস্ট্যান্টাইন তরুণ ফুটবলারদের সুযোগ দেন। আমাদের সময়ও অনেক ফুটবলারকে তুলে এনেছেন। আশা করব ইমামি ইস্টবেঙ্গলের কোচ হিসাবেও সফল হবেন।’’

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)
সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের মাধ্যমগুলি:
Advertisement

Share this article

CLOSE