Advertisement
২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৪
Luis Rubiales

ইংল্যান্ডের ফুটবলারকেও চুম্বনের অভিযোগ রুবিয়ালেসের বিরুদ্ধে

স্পেনীয় ফুটবলের শীর্ষ কর্তার আচরণে উত্তপ্ত হয়ে ওঠে ফুটবল মহল। প্রবল চাপে ১১ সেপ্টেম্বর পদত্যাগ করতে বাধ্য হন রুবিয়ালেস। তদন্তের পরে তাঁকেই দোষী সাব্যস্ত করে ফিফা।

An image of Luis Rubiales

লুইস রুবিয়ালেস। —ফাইল চিত্র।

নিজস্ব প্রতিবেদন
শেষ আপডেট: ০৮ ডিসেম্বর ২০২৩ ০৯:৩৩
Share: Save:

মেয়েদের ফুটবল বিশ্বকাপের ফাইনালের পরে পুরস্কার মঞ্চে জেনি হারমোসোকে চুম্বন করে তিন বছরের জন্য নির্বাসিত হয়েছেন স্পেনের ফুটবল ফেডারেশনের প্রেসিডেন্ট লুইস রুবিয়ালেস। এ বার তাঁর বিরুদ্ধে ইংল্যান্ডের ডিফেন্ডার লুসি ব্রোঞ্জকেও জোর করে চুম্বন করার চাঞ্চল্যকর অভিযোগ উঠল। এখানেই শেষ নয়। লুসির সতীর্থ মিডফিল্ডার লরা কোম্বসের গালও তিনি স্পর্শ করেছিলেন বলে দাবি ইংল্যান্ড ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনের (এফএ) চেয়ারম্যান ডেবি হিউইটের।

সিডনি অলিম্পিক স্টেডিয়ামে গত ২০ আগস্ট ফাইনালে ইংল্যান্ডকে ১-০ গোলে হারিয়ে প্রথমবার মেয়েদের বিশ্বকাপে চ্যাম্পিয়ন হয় স্পেন। পুরস্কার বিতরণী মঞ্চে ফিফা প্রেসিডেন্ট জিয়ান্নি ইনফান্তিনো, এফএ প্রধান ডেবি হিউইটসের সামনেই ঘটে যায় এই চুম্বন কাণ্ড। রুবিয়ালেস যদিও দাবি করেছিলেন, তিনি হারমোসোর অনুমতি নিয়েই চুম্বন করেছিলেন।

স্পেনীয় ফুটবলের শীর্ষ কর্তার আচরণে উত্তপ্ত হয়ে ওঠে ফুটবল মহল। প্রবল চাপে ১১ সেপ্টেম্বর পদত্যাগ করতে বাধ্য হন রুবিয়ালেস। তদন্তের পরে তাঁকেই দোষী সাব্যস্ত করে ফিফা। এর পরেই রুবিয়ালেসকে তিন বছরের জন্য নির্বাসিত করে বিশ্বের ফুটবল নিয়ামক সংস্থা। বিবৃতি দেয়, “লুইস রুবিয়ালেসকে ফুটবলের সমস্ত ব্যাপার থেকে নিষিদ্ধ করা হল। আগামী তিন বছরের জন্য ফুটবলের সঙ্গে যুক্ত থাকতে পারবেন না তিনি।’’

রুবিয়ালেসকে কেন নির্বাসিত করা হয়েছে তা বিশদে জানিয়েছে ফিফা। জানা গিয়েছে, পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে আরও একাধিক মহিলা ফুটবলারের সঙ্গে তাঁর আপত্তিকর আচরণের ঘটনা। রুবিয়ালেসকে আরও কঠিন শাস্তি দেওয়ার ব্যাপারে আলোচনা হলেও শেষ পর্যন্ত তিন বছরের নির্বাসন দেওয়া হয়। স্পেন ফুটবল সংস্থার প্রাক্তন প্রধানের বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগের তদন্তের শুনানিতে সাক্ষ্য দিয়েছিলেন ইংল্যান্ডের ফুটবল কর্তা হিউইট। তিনি অভিযোগ করেছিলেন, ‘‘রুবিয়ালেসের আচরণ ছিল অপ্রীতিকর ও আক্রমণাত্মক। যে ভাবে তিনি লরা কোম্বসের গাল স্পর্শ করেছেন এবং লুসি ব্রোঞ্জকে চুম্বন করেছেন, তা কখনওই স্বাভাবিক মনে হয়নি আমার।’’

রুবিয়ালেস যদিও হিউইটের অভিযোগ ভিত্তিহীন বলে দাবি করে বলেছিলেন, ‘‘হিউইট অজ্ঞতা থেকেই এ ধরনের কথা বলছেন।’’ রুবিয়ালেসের দাবি ফিফা সঙ্গে সঙ্গেই খারিজ করে দিয়েছিল। জানিয়ে দেয় হিউইটের পর্যবেক্ষণকে সন্দেহ করার কোনও কারণ নেই। আরও জানিয়েছে, অভিযোগ সব রুবিয়ালেসের বিরুদ্ধে গেলেও তিনি ক্ষমা চাননি। শুধু বলেছিলেন, ‘‘এ রকম কিছু করা আমার একেবারেই উচিত হয়নি।’’

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement

Share this article

CLOSE