Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

০৫ জুলাই ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

‘চ্যাম্পিয়ন’ শব্দটা মাথায় না রাখার পরামর্শ সুব্রত, সঞ্জয়দের

সুব্রত ভট্টাচার্য বলে দিলেন, ‘‘আলেসান্দ্রোর জায়গায় আমি ইস্টবেঙ্গলের কোচ হলে পুরো দলকে চাপমুক্ত রাখার জন্য ৯ মার্চের খেলা নিয়ে কথাই বলতাম না।

নিজস্ব সংবাদদাতা
০৫ মার্চ ২০১৯ ০৪:৩৫
Save
Something isn't right! Please refresh.
আগমন: মিনার্ভাকে হারিয়ে কলকাতায় ফিরল ইস্টবেঙ্গল। বিমানবন্দরে বোরখা ও এনরিকে। ছবি: সুদীপ্ত ভৌমিক

আগমন: মিনার্ভাকে হারিয়ে কলকাতায় ফিরল ইস্টবেঙ্গল। বিমানবন্দরে বোরখা ও এনরিকে। ছবি: সুদীপ্ত ভৌমিক

Popup Close

আই লিগের ফাইনাল শনিবার! খেতাবের শেষ ম্যাচ খেলতে নামার আগে কী করা উচিত আলেসান্দ্রো মেনেন্দেস ও ইস্টবেঙ্গলের?

সুব্রত ভট্টাচার্য বলে দিলেন, ‘‘আলেসান্দ্রোর জায়গায় আমি ইস্টবেঙ্গলের কোচ হলে পুরো দলকে চাপমুক্ত রাখার জন্য ৯ মার্চের খেলা নিয়ে কথাই বলতাম না। শুধু ফ্রিকিক আর কর্নার কিক অনুশীলন করিয়ে যেতাম।’’

প্রাক্তন ইস্টবেঙ্গল কোচ মনোরঞ্জন ভট্টাচার্যের মন্তব্য, ‘‘লিগ ইস্টবেঙ্গলের হাতে নেই। ফলে জিততেই হবে এই মানসিকতা পুরো দলের মধ্যে সঞ্চারিত করতে হবে। এবং জেতার জন্য বাড়তি ঝুঁকি নিতেই হবে।’’

Advertisement

সঞ্জয় সেন আবার পরামর্শ দিচ্ছেন, ‘‘চাপ ইস্টবেঙ্গলের উপরই বেশি। জেতা ছাড়া ওদের রাস্তা নেই। কিন্তু ওদের মাথায় রাখতে হবে গোল খাওয়া চলবে না।’’

আর গত বছরের আই লিগ জয়ী কোচ খগেন সিংহর মন্তব্য, ‘‘অন্য মাঠে কী হচ্ছে এটা ভাবলেই বিপদে পড়বে ইস্টবেঙ্গল। তবে চেন্নাইয়ের অ্যাডভান্টেজ বেশি। ঘরের মাঠে খেলবে ওরা।’’

গতবারের চ্যাম্পিয়ন মিনার্ভা কোচ খগেন সিংহকে খেতাব পেতে এই চাপ নিতে হয়নি। ইস্টবেঙ্গলকে জাতীয় লিগ দেওয়া কোচ মনোরঞ্জন ভট্টাচার্যর লিগ জয় অনেকটাই মসৃণ ছিল।

তবে মোহনবাগানকে খেতাব দেওয়া কোচ সুব্রত ভট্টাচার্য এবং সঞ্জয় সেন, দু’জনের অবস্থাই ছিল এখনকার ইস্টবেঙ্গল কোচ আলেসান্দ্রো মেনেন্দেসের মতো। শেষ ম্যাচে লিগ জিতেছিলেন ওঁরা।

শেষ ম্যাচে জিততেই হবে, এই অবস্থায় গোয়ার মাঠে চার্চিল ব্রাদার্সের বিরুদ্ধে জিতে আঠারো বছর আগে জাতীয় লিগ জিতেছিলেন সুব্রত। আর বেঙ্গালুরুতে এক পয়েন্ট পেতেই হবে এই অবস্থায় বেঙ্গালুরুর বিরুদ্ধে খেলতে নেমে খেলা শেষ হওয়ার তিন মিনিট আগে ১-১ করে শেষ বার সবুজ-মেরুনকে আই লিগ দিয়েছিলেন সঞ্জয় সেন।

আই লিগের টেবলের এ বারের যা অবস্থা, তাতে আই লিগে চ্যাম্পিয়ন হতে শেষ ম্যাচে ইস্টবেঙ্গলকে জিততেই হবে গোকুলমের বিরুদ্ধে। শুধু তা-ই নয়, তাদের তাকিয়ে থাকতে হবে চেন্নাই বনাম মিনার্ভা পঞ্জাব ম্যাচের দিকেও। চেন্নাই পয়েন্ট নষ্ট না করলে, জিতেও লাভ হবে না এনরিকে-সালামরঞ্জন সিংহদের।

ইস্টবেঙ্গলের সামনে পনেরো বছর পর খেতাব জয়ের খরা কাটানোর সুযোগ। এখন কী ভাবে এগোনো উচিত আলেসান্দ্রোর দলের, তা নিয়ে লিগ জয়ী প্রাক্তন কোচদের পরমর্শ কী, তা জানতে চাওয়া হয়েছিল। চার জনের চারটি পরামর্শ দেখা গেল প্রায় একই রকম। এক) চ্যাম্পিয়ন শব্দটা ড্রেসিংরুমে ঢুকতে না দিয়ে, শুধু জিততে হবে এটা মাথায় রেখে খেলুন আলেসান্দ্রোর ছেলেরা। দুই) ম্যাচ নিয়ে ড্রেসিংরুমে ক্রমাগত আলোচনা না করা। তিন) নিজেদের রক্ষণ জমাট করে পাল্টা আক্রমণের রাস্তায় যাওয়া। চার) নিয়মিত সেট পিস অনুশীলনে বাড়তি জোর দেওয়া।

‘‘চার্চিলের বিরুদ্ধে শেষ ম্যাচে সে বার জিততেই হত আমাদের। আমি ঠিক করেছিলাম আস্তে আস্তে দলের মধ্যে ‘জিততেই হবে’ ব্যাপারটা সঞ্চারিত করব,’’ বলে দেন সুব্রত। দু’বার জাতীয় লিগ জেতা কোচ পরে যোগ করেন, ‘‘আর একটা জিনিস করেছিলাম ম্যাচ নিয়ে, তা হল বলে দিয়েছিলাম চার্চিল নামটা যেন না শুনি কারও মুখে।’’ আর ইস্টবেঙ্গলকে আই লিগ দেওয়া কোচ মনোরঞ্জন বললেন, ‘‘বাইরের মাঠে গিয়ে খেলবে ইস্টবেঙ্গল। গোকুলম অবনমনে নেই। ওরা খোলা মনে পুরো শক্তি নিয়ে ঝাঁপাবে। ফলে ম্যাচটা ‘হয় মারো না হয় মরো’ ভাবনা নিয়েই খেলা উচিত জনি আকোস্তাদের। সঙ্গে তাঁর পরামর্শ ‘‘ম্যাচ নিয়ে বেশি আলোচনা না করাই ভাল।’’ কলকাতায় শেষ আই লিগ যাঁর হাত ধরে এসেছিল সেই সঞ্জয় সেন বলছিলেন, ‘‘শিলং বাদ দিয়ে ইস্টবেঙ্গল খুব সহজে কোনও ম্যাচ জেতেনি। ফলে গোল খাওয়া চলবে না। পুরো দলকে এই ক’দিন একসঙ্গে এক হোটেলে রাখতে পারলে মাঠে তার ফল ফলতে পারে।’’

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)


Something isn't right! Please refresh.

Advertisement