Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৮ অক্টোবর ২০২১ ই-পেপার

আমি ব্যাঙ্কে কাজ করি, বান্ধবীকে বলেছিলেন হিউজ

নিজস্ব প্রতিবেদন
০৬ ডিসেম্বর ২০১৪ ০৩:৪৭
মেগান ও হিউজের ছবি ইন্সটাগ্রামের।

মেগান ও হিউজের ছবি ইন্সটাগ্রামের।

‘লাভ ইউ, মিস ইউ...লাভ ইউ, মিস ইউ।’ সিডনি ক্রিকেট গ্রাউন্ডের মর্মান্তিক দুর্ঘটনার সপ্তাহদুয়েক আগে টেক্সট করেছিলেন ফিলিপ হিউজ। যাঁকে করেছিলেন, সেই প্রিয় বান্ধবী মেগান সিম্পসন তখন হাওয়াইয়ে ছুটি কাটাচ্ছেন।

তিন বছর আগে সিডনিতে হিউজের প্রিয় পাব-এ দেখা দু’জনের। এবং প্রায় সঙ্গে সঙ্গেই দু’জনের মধ্যে অদ্ভুত একটা যোগাযোগ তৈরি হয়ে যায়। “হিউজ আমাকে বলেছিল ও নাকি ব্যাঙ্কে চাকরি করে। তখন আমি জানতামও না যে ও ক্রিকেট খেলে,” অস্ট্রেলিয়ার এক সংবাদপত্রকে এ দিন বলেছেন মেগান। ২৬ বছরের মেগান তখন অস্ট্রেলিয়া ফুটবল লিগের একটা টিমের স্পোর্টস কোচ। তিনি বলছেন, হিউজ সরকারি ভাবে তাঁর প্রেমিক ছিলেন না। কেন? “ওই সময় আমরা দু’জনই খুব খারাপ বিচ্ছেদ কাটিয়ে উঠেছিলাম। তাই অত তাড়াতাড়ি নতুন কিছু শুরু করতে চাইনি, কেউ কাউকে নতুন করে কষ্ট দিতে চাইনি। ফিলিপ বলেছিল, আমাকে চিরকাল ওর পাশে চায়। সে দিন থেকেই আমরা বন্ধু হয়ে যাই।”

সিডনির সেই রাতের পর থেকে প্রায় প্রতি দিনই ফোনে কথা বলতেন দু’জন। একসঙ্গে কফি খাওয়া, শপিং, দু’জনে দু’জনের জন্য ‘ডেট’ ঠিক করে দেওয়া, সবই হয়েছে। দু’জনেই খেলা ভালবাসেন। ফিলিপের খেলা দেখতে গিয়ে মেগানের ক্রিকেট-পাঠ, আর যে টিমে মেগান কাজ করেন, ফিলিপের সেই টিমের ফ্যান হয়ে যাওয়া। কেমন ছিলেন ফিল? “খুব মজার মানুষ ছিল, সব সময় হাসাত। আমার জন্য সব সময় ওর কাছে সময় থাকত। ওর মতো ভাল বন্ধু আর হয় না।” জাতীয় টিমের কিছু সতীর্থের সঙ্গেও মেগানের আলাপ করিয়ে দেন হিউজ। তাঁর মৃত্যুর পরে মাইকেল ক্লার্ক মেগানকে বলেন, “হিউজি সত্যিই তোমাকে খুব ভালবাসত।” কিন্তু একটা ব্যাপার খুব পরিষ্কার করে দিতে চান মেগান: তাঁর আর হিউজের সম্পর্ক কখনও বন্ধুত্বের সীমা পেরোয়নি। হিউজ যে দু’দিন হাসপাতালে কাটিয়েছিলেন, তাঁর সঙ্গে ছিলেন মেগানও। তাঁকে ঘিরে গোটা বিশ্বে যে শোকসভা চলছে, সেটা দেখে কী বলতেন হিউজ? মেগানের কথায়, “খুব মজা পেত। উপর থেকে সব দেখে নিশ্চয়ই জিজ্ঞেস করত, এত কিছু সব আমার জন্য?”

Advertisement

হিউজ-ট্র্যাজেডির সঙ্গে যাঁর নাম জড়িয়ে গিয়েছে, সেই শন অ্যাবট এ দিন জানিয়েছেন, ক্রিকেটে ফেরা নিয়ে সিদ্ধান্ত নেবেন আগামী মঙ্গলবার। যে দিন তাঁর টিম নিউ সাউথ ওয়েলসের বিরুদ্ধে কুইন্সল্যান্ডের ম্যাচ। সিডনির মাঠেই। তাঁর ক্লাবের সিইও অ্যান্ড্রু জোন্স জানিয়েছেন, খেলার সিদ্ধান্ত তাঁরা বাইশ বছরের অলরাউন্ডারের উপরই ছেড়ে দিয়েছেন।

আরও পড়ুন

Advertisement