Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

১৯ মে ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

Indian Football: সাফের প্রস্তুতি নিয়ে চিন্তা বাড়ছে ইগরের

সমস্যা আরও বেড়েছে এই জাতীয় শিবির কোথায় হবে, তা নিয়েও।

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ০৭ সেপ্টেম্বর ২০২১ ০৯:৩৮
Save
Something isn't right! Please refresh.
n সতর্ক: নেপালকে হারালেও দলের আরও উন্নতি চান স্তিমাচ। টুইটার

n সতর্ক: নেপালকে হারালেও দলের আরও উন্নতি চান স্তিমাচ। টুইটার

Popup Close

রবিবার কাঠমান্ডুতে নেপালের বিরুদ্ধে দ্বিতীয় আন্তর্জাতিক ফ্রেন্ডলিতে সুনীল ছেত্রীরা ২-১ জিতলেও খুব একটা উচ্ছ্বসিত নন কোচ ইগর স্তিমাচ। তাঁর মতে, অনেক উন্নতি করতে হবে ভারতীয় দলকে। তিনি চিন্তিত আসন্ন সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের প্রস্তুতি নিয়েও।

মলদ্বীপে ১ অক্টোবর শুরু হচ্ছে সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ। ভারত ছাড়াও খেলবে বাংলাদেশ, আয়োজক মলদ্বীপ, নেপাল ও শ্রীলঙ্কা। পয়েন্ট টেবলে প্রথম ও দ্বিতীয় স্থানে শেষ দুই দল ১৬ অক্টোবর ফাইনালে মুখোমুখি হবে। ভারতের প্রথম ম্যাচ বাংলাদেশের বিরুদ্ধে ৪ অক্টোবর। রবিবার রাতে নেপালের বিরুদ্ধে জয়ের পরেই সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ জয়ের রণকৌশল তৈরি করতে ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন ইগর। কিন্তু মলদ্বীপ রওনা হওয়ার আগে পাঁচ-ছ’দিনের বেশি অনুশীলন করানোর সুযোগ পাবেন না বলে চিন্তিত হয়ে
পড়েছেন তিনি।

সমস্যা আরও বেড়েছে এই জাতীয় শিবির কোথায় হবে, তা নিয়েও। ইগরের ইচ্ছে ছিল কলকাতাতেই প্রস্তুতি নেওয়ার। কিন্তু এখান থেকে সরাসরি মলদ্বীপের বিমান না থাকায় সেই পরিকল্পনাও ভেস্তে যেতে বসেছে। করোনা সংক্রমণ ফের বাড়তে থাকায় কেরলেও শিবির হওয়া সম্ভব নয়। এই পরিস্থিতিতে বেঙ্গালুরু অথবা গোয়ায় সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের প্রস্তুতি সারতে পারেন তিনি।

Advertisement

ইগরের পরিকল্পনা ছিল, সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ খেলতে মলদ্বীপ রওনা হওয়ার আগে শিবিরে দলের ভুলত্রুটি শুধরে নেওয়া। ভারতীয় দলের কোচের কথায়, “ফুটবলারেরা যে মানসিকতা দেখিয়েছে, তার জন্য ওদের অভিনন্দন জানাচ্ছি। তবে আমাদের খেলার আরও অনেক উন্নতি করতে হবে।”

নেপালের বিরুদ্ধে প্রথম সাক্ষাতে কোনও মতে হার বাঁচিয়েছিল ভারত। ম্যাচের পরে ইগর জানিয়েছিলেন, প্রথমার্ধে একেবারেই খেলতে পারেনি ভারতীয় দল। চব্বিশ ঘণ্টা আগে দ্বিতীয় ম্যাচে ২-১ জেতেন রহিম আলিরা। গোল করে ও করিয়ে নায়ক সেই সুনীল ছেত্রী। জাতীয় কোচ বলেছেন, “ফুটবলারদের বাহবা দিতেই হবে। ওরা ধৈর্য ধরে অপেক্ষা করেছে নেপালের রক্ষণ ভেঙে গোল করার জন্য। কারণ, ওরা খুব ভাল করেই জানে একটা গোল করতে পারলে খেলাটা অনেক সহজ হয়ে যায়।” তিনি যোগ করেছেন, “প্রথম গোলের পরেই ছেলেদের আত্মবিশ্বাস অনেক বেড়ে গিয়েছিল। প্রথম ম্যাচের চেয়ে রবিবার আমরা অনেক ভাল ফুটবল খেলেছি। তবে আরও উন্নতি দরকার!”

নেপালের জাতীয় দলেরও প্রশংসা করেছেন ইগর। বলেছেন, “নেপাল অসাধারণ খেলেছে। ওরা দারুণ
উন্নতি করেছে।”



Something isn't right! Please refresh.

আরও পড়ুন

Advertisement