Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

১৬ অক্টোবর ২০২১ ই-পেপার

Ravi Shahstri-Dhoni: অবসর ফেরাও, ধোনিকে বলতে গিয়ে পারেননি রবি

নিজস্ব প্রতিবেদন
কলকাতা ০৫ সেপ্টেম্বর ২০২১ ০৭:৪৭
মেলবোর্নে: ৩০ ডিসেম্বর, ২০১৪। টেস্টে ধোনির শেষ দিন। ফাইল চিত্র

মেলবোর্নে: ৩০ ডিসেম্বর, ২০১৪। টেস্টে ধোনির শেষ দিন। ফাইল চিত্র

ভারতীয় দলের ‘টিম ডিরেক্টর’ হিসেবে ২০১৪ সালের অস্ট্রেলিয়া সফরে গিয়েছিলেন রবি শাস্ত্রী। সেই সফরেই বক্সিং ডে টেস্ট শেষে অবসর ঘোষণা করেন মহেন্দ্র সিংহ ধোনি। সাত বছর কেটে গেলেও ধোনির অবসর নেওয়ার সিদ্ধান্ত মানতে পারেননি তৎকালীন টিম ডিরেক্টর ও বর্তমান ভারতীয় দলের হেড কোচ। তবে শাস্ত্রী জানিয়েছেন, ধোনির কণ্ঠস্বরের মধ্যে এতটাই দৃঢ়তা ছিল যে, তিনি অবসরের সিদ্ধান্ত ফিরিয়ে নেওয়ার অনুরোধ করতে পারেননি।

শাস্ত্রীর সদ্য প্রকাশিত বই ‘স্টারগেজ়িং: দ্য প্লেয়ার্স ইন মাই লাইফ’-এ তিনি ধোনির অবসরের বিষয় তুলে ধরেছেন। লিখেছেন, ‘‘ধোনি যখন টেস্ট থেকে অবসর নিয়েছে, তখন সাফল্যের চূড়ায় ছিল। তিনটি আইসিসি ট্রফি জেতা হয়ে গিয়েছিল। আইপিএলেও সফল অধিনায়ক ছিল। এমনকি একশো টেস্টের চেয়ে মাত্র দশটি টেস্ট দূরে ছিল ধোনি।’’ যোগ করেছেন, ‘‘ভারতের অন্যতম সেরা অধিনায়ক যার নেতৃত্বে টেস্ট র‌্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষে পৌঁছে গিয়েছিল ভারত। অথচ ও যে হঠাৎ অবসর নেবে, ভাবাই যায়নি।’’

ভারতীয় দলের হেড কোচ মনে করেন, তিন ফর্ম্যাটের জন্যই আদর্শ ছিলেন ধোনি। এমন সময় তিনি অবসর ঘোষণা করেছেন, যখন বিশ্বের অন্যতম ফিট ক্রিকেটার হিসেবে দেখা হত তাঁকে। শাস্ত্রী লিখেছেন, ‘‘ফিটনেসের চূড়ায় থাকাকালীন অবসর নিয়েছিল ও। টেস্ট জীবনে পরিসংখ্যান আরও উন্নত করতে পারত ধোনি। বলা যেতে পারে ওর বয়স কমছিল না, তবে খুব একটা বেশিও ছিল না। ধোনির অবসর নেওয়ার সিদ্ধান্ত সত্যি সকলকে অবাক করে দিয়েছিল!’’

Advertisement

শাস্ত্রী ভেবেছিলেন ‘টিম ডিরেক্টর’ হিসেবে ধোনির সঙ্গে এ বিষয়ে আলোচনা করবেন। কিন্তু তাঁর কণ্ঠস্বরে দৃঢ়তা দেখে সেই পথে আর এগোননি তিনি। বইতে ফাঁস করেছেন, ‘‘ধোনির সঙ্গে এ বিষয়ে আলোচনা করতে গিয়েছিলাম ঠিকই। বলতে শুরু করেছিলাম, অনেকেই বলে তাদের ক্রিকেট জীবনে পরিসংখ্যানের কোনও মূল্য নেই। কিন্তু শেষমেশ মূল্য দিতেই হয়। এই কথাটা বলার পরে ভেবেছিলাম ধোনি হয়তো ওর সিদ্ধান্ত নিয়ে ভাবনা-চিন্তা করবে। কিন্তু নিজের সিদ্ধান্তে অনড় ছিল ও। ধোনির কণ্ঠস্বরের মধ্যে এতটা দৃঢ়তা ছিল যে, আমি আর অনুরোধ করতে পারিনি।’’ আরও লিখেছেন, ‘‘টেস্টে সর্বোচ্চ পদ ছেড়ে বেরনোর সিদ্ধান্ত সহজ নয়। অথচ ধোনি নির্দ্বিধায় সেই সিদ্ধান্ত নিয়েছিল।’’

মোট ৯০টি টেস্ট খেলে ৪৮৭৬ রান করেছিলেন ধোনি। তাঁর গড় ছিল ৩৮.০৯। তার মধ্যে ৬০টি টেস্ট খেলেছিলেন অধিনায়ক হিসেবে। ধোনির নেতৃত্বে ২০০৯ সালে প্রথম বারের মতো টেস্ট র‌্যাঙ্কিংয়ে শীর্ষে ওঠে ভারত। মাহিকে নিয়ে উচ্ছ্বসিত শাস্ত্রী লিখেছেন, ‘‘ধোনিকে ক্রিকেট ব্যাকরণের মধ্যে ফেলা যায় না। ব্যাট হাতে অথবা কিপিংয়ে ওর নিজের একটি ধরন আছে, যা নকল করতে যাওয়া বোকামি হবে। ধোনির সাফল্যের চাবিকাঠি কিন্তু ওর কব্জির দুরন্ত ব্যবহার। এখনও ক্রিকেটবিশ্বের অন্যতম সেরা ক্রিকেটার ধোনি।’’

গ্রেফতার জার্ভো: মাঠে প্রবেশ করে জনি বেয়ারস্টোকে ধাক্কা দেওয়ায় গ্রেফতার করা হল জার্ভোকে। সিরিজ়ে তৃতীয় বার মাঠের মধ্যে জার্ভো প্রবেশ করায় প্রশ্ন উঠছে নিরাপত্তা নিয়ে।

আরও পড়ুন

Advertisement