×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

০৩ মার্চ ২০২১ ই-পেপার

১৩ রানে জয় ভারতের, সিরিজ হারলেও ক্যানবেরায় সম্মান রক্ষা

সংবাদ সংস্থা
ক্যানবেরা ০২ ডিসেম্বর ২০২০ ০৯:১১
পঞ্চম উইকেট নেওয়ার পর ভারতীয় দল। ছবি: সোশ্যাল মিডিয়া

পঞ্চম উইকেট নেওয়ার পর ভারতীয় দল। ছবি: সোশ্যাল মিডিয়া

৪৯.৩ ওভার | অস্ট্রেলিয়ার ২৮৯/১০ | তৃতীয় একদিনের ম্যাচে ১৩ রানে জয় ভারতের।

উইকেট | আউট জাম্পা। বুমরা নিলেন শেষ উইকেট।

উইকেট | আউট আগর। নটরাজনের বলে ক্যাচ তুলে দিলেন তিনি। দ্রুত রান তোলার চাপে কুলদীপের হাতে ক্যাচ তুলে দিলেন অস্ট্রেলিয়ার শেষ ভরসা। ৯ উইকেট হারিয়ে চাপে অজিরা।

Advertisement

উইকেট | আউট অ্যাবট। শার্দূলের ৩ উইকেট। অ্যাবট ফিরলেন ৪ রানে।

৪৫ ওভার | অস্ট্রেলিয়ার ২৭০/৭ | আসল কাজটা করে দিয়েছেন বুমরা। তবে শেষ ৮ ওভারে অস্ট্রেলিয়ার দরকার মাত্র ৩৩ রান। টি২০ যুগে যা একেবারেই কঠিন নয়। ম্যাচ জেতার জন্য এখন নটরাজনদের দিকেই তাকিয়ে ভারত।

উইকেট | আউট ম্যাক্সওয়েল। যে উইকেট দরকার ছিল ভারতের সেটাই এনে দিলেন বুমরা। ম্যাক্সওয়েলের উইকেটের জন্যই তো শেষের জন্য অপেক্ষা না করেই বুমরাকে নিয়ে আসেন বিরাট। ৩৯ বলে ৫৯ রানে আউট ম্যাক্সওয়েল।

ম্যাক্সওয়েল ৫০* | ঠিক যখন দলের প্রয়োজন, তখনই জ্বলে উঠলেন ম্যাক্সওয়েল। ২২তম হাফ সেঞ্চুরি করলেন ৬ মেরে।

৪০ ওভার | অস্ট্রেলিয়ার ২২৭/৬ | প্রথমবার হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হচ্ছে সিরিজে। অস্ট্রেলিয়ার এক পেশে দাপট নয়, ২ দলই এখনও জেতার জন্য লড়ছে। ৬ উইকেট হারিয়ে যেমন চাপে অজিরা, তেমনই কখনও ফিল্ডারদের ভুল আবার কখনও বোলারদের ভুলে রান দিয়ে ফেলছে ভারত। শেষ ১০ ওভারে অস্ট্রেলিয়ার প্রয়োজন ৭৬ রান। ক্রিজে রয়েছেন ম্যাক্সওয়েল (৩৬ রানে অপরাজিত) এবং আগর (৮ রানে অপরাজিত)।

উইকেট | আউট ক্যারি। ভুল বোঝাবুঝিতে রান হলেন তিনি। ৪২ বলে ৩৮ রান করে আউট ক্যারি।

৩৫ ওভার | অস্ট্রেলিয়ার ১৮৩/৫ | আশার আলো দেখছে ভারত। সম্মান রক্ষার ম্যাচে বোলারদের সাফল্য। শেষ ১৫ ওভারে জেতার জন্য অস্ট্রেলিয়ার প্রয়োজন ১২০ রান।

উইকেট | আউট গ্রিন। অভিষেক ম্যাচে ২১ রান (২৭ বলে) করে আউট হলেন জাদেজার দুরন্ত ক্যাচে। উইকেট নিলেন কুলদীপ।

৩০ ওভার | অস্ট্রেলিয়ার ১৫১/৪ | পর পর ২ উইকেট তুলে নিয়ে অস্ট্রেলিয়াকে জোড়া ধাক্কা ভারতের। শেষ ২০ ওভারে জয়ের অস্ট্রেলিয়ার প্রয়োজন ১৫২ রান। হাতে থাকা ৬ উইকেট ভারত যত তাড়াতাড়ি তুলতে পারবে ততই জয়ের কাছে পৌঁছবে ভারত। সেই চেষ্টাই করতে হবে ভারতীয় বোলারদের। ক্রিজে রয়েছেন অভিষেক ম্যাচ খেলতে নামা ক্যামেরন গ্রিন (১৫ রানে অপরাজিত) এবং আলেক্স ক্যারি (১৬ রানে অপরাজিত)।

উইকেট | আউট ফিঞ্চ। ক্রিজে জমে যাওয়া অজি অধিনায়ককে ফেরালেন জাদেজা। ৮২ বলে ৭৫ রান করে আউট ফিঞ্চ।

২৫ ওভার | অস্ট্রেলিয়ার ১২২/৩ | রানের গতি কিছুটা ধাক্কা খেয়েছে অস্ট্রেলিয়ার। এখনও লড়াই চালিয়ে যাচ্ছেন অধিনায়ক ফিঞ্চ। তবে অন্য ম্যাচের তুলনায় ভারতীয় বোলিং অ্যাটাক বুধবার অনেক বেশি কার্যকরী।

উইকেট | আউট এনরিকে। দ্বিতীয় উইকেট শার্দূলের। ৩১ বলে ২২ রান করে শিখরের হাতে ক্যাচ দিলেন এনরিকে।

২০ ওভার | অস্ট্রেলিয়ার ৯৮/২ | স্মিথের উইকেট হারিয়েও লড়াই চালিয়ে যাচ্ছে অস্ট্রেলিয়া। ফিঞ্চ এবং এনরিকের ব্যাটে ভর করে ধীরে ধীরে ম্যাচের দখল নিচ্ছে অস্ট্রেলিয়া। এই ২ ব্যাটসম্যানের পার্টনারশিপ ভাঙার জন্য কী করেন বিরাট সেই দিকেই তাকিয়ে ভারত।

ফিঞ্চ ৫০* | জাদেজার বলে ৬ মেরে ৫০ করলেন ফিঞ্চ। ৬১ বলে হাফ সেঞ্চুরি করেন তিনি। একদিনের ক্রিকেটে ২৯তম হাফ সেঞ্চুরি তাঁর।

১৫ ওভার | অস্ট্রেলিয়ার ৭২/২ | সিরিজে প্রথম নামা ২ বোলারের নেওয়া উইকেটে কিছুটা হাসি ভারতীয়দের মুখে। তবে এখনও লড়াই চালিয়ে যাচ্ছেন অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়ক ফিঞ্চ (৩৭ রানে অপরাজিত)। লাবুশানে ওপেন করায় ৪ নম্বরে ব্যাট করতে এলেন মজেস এনরিকে (১৩ রানে অপরাজিত)।

উইকেট | আউট স্মিথ। শার্দূল ঠাকুরের বলে মাত্র ৭ রানে ফিরলেন স্মিথ।


১০ ওভার | অস্ট্রেলিয়ার ৫১/১ | বুমরার বলে ফিঞ্চের সহজতম ক্যাচ ফেললেন শিখর। অজি অধিনায়কের রান তখন ২২। এই ভুলের খেসারৎ দিতে হতে পারে ভারতকে। স্মিথ এবং ফিঞ্চের এই পার্টনারশিপ দ্রুত ভাঙতে না পারলে ম্যাচ জেতা কঠিন হয়ে যাবে ভারতের জন্য।

উইকেট | আউট লাবুশানে। অভিষেক ম্যাচেই উইকেট পেলেন নটরাজন। ৭ রানে নটরাজনের বলে বোল্ড লাবুশানে।

৫ ওভার | অস্ট্রেলিয়ার ২৫/০ | ভাল শুরু করলেন বুমরা। প্রথম ওভারে দিলেন মাত্র ২ রান। তবে অস্ট্রেলিয়ার নতুন ওপেনিং জুটিকে এখনও টলাতে পারেননি। ২জনে ওভার প্রতি ৫ রান করে তুলে চলেছেন। ফিঞ্চ (১৮ রানে অপরাজিত) এবং লাবুশানেকে (৭ রানে অপরাজিত) তাড়াতাড়ি ফেরাতেই হবে এই ম্যাচ জিততে হলে। বুমরার সঙ্গে শুরু করেছেন এই ম্যাচে অভিষেক হওয়া নটরাজন।

ক্যানবেরায় অস্ট্রেলিয়ার সামনে জয়ের জন্য লক্ষ্য ৩০৩ রান। টস জিতে প্রথমে ব্যাট করেও বড় রান করতে ব্যর্থ ভারত। বিরাটের লড়াই এবং শেষ দিকে হার্দিক, জাদেজার ব্যাটে ভর করে লড়াই করার মতো রান স্কোর বোর্ডে তুলল ভারত। বিশ্বে সব চেয়ে কম ইনিংস খেলে ১২ হাজার রান করলেন বিরাট। শামিহীন ভারতীয় বোলিং অ্যাটাককে নিয়ে বুমরা পারবেন জয় এনে দিতে? সম্মান রক্ষার ম্যাচে সেই দিকেই তাকিয়ে ভারতীয়ভক্তরা।

৫০ ওভার | ভারতের ৩০২/৫ | অস্ট্রেলিয়ার সামনে টার্গেট ৩০৩ রানের। ভারতীয় বোলারদের কাজটা খুব সহজ হবে না বলাই যায়। তবে শেষ দিকে জাদেজা (৬৬ রানে অপরাজিত) এবং হার্দিক (৯২ রানে অপরাজিত) লড়াই করার জায়গায় পৌঁছে দিল দলকে।


জাদেজা ৫০* | ৪৩ বলে ৫০ করলেন জাদেজা। শেষ দিকে ঝড় তুললেন তিনি।
৪৫ ওভার | ভারতের ২২৬/৫ | রানের গতি বাড়ানোর চেষ্টায় হার্দিক, জাদেজা। শেষ ৫ ওভারে দলকে কতটা এগিয়ে যেতে পারে তাঁরা সেই দিকেই তাকিয়ে ভারত।
হার্দিক ৫০* | ৫৫ বলে ৫০ হার্দিকের। ষষ্ঠ হাফ সেঞ্চুরি পূর্ণ করলেন ভারতীয় অলরাউন্ডার। তবে রানের গতি বাড়ানোর দিকে এ বার নজর দিতে হবে ভারতকে।
৪০ ওভার | ভারতের ১৯২/৫ | রান তোলার শেষ চেষ্টা করে চলেছেন ভারতের ২ অলরাউন্ডার। তাঁদের ব্যাটে ভর করে ২০০ রান পার করার মুখে ভারত। তবে ওভার প্রতি রান ৪.৮। যা চিন্তায় রাখছে ভারতকে। তবে হার্দিক (৩৯ রানে অপরাজিত) ঝড় তুললে শেষ ১০ ওভারে লড়াই করার মতো রান তুলতেও পারে ভারত। সঙ্গী হতে হবে জাদেজাকেও (১১ রানে অপরাজিত)।
৩৫ ওভার | ভারতের ১৬৪/৫ | সব চেয়ে বড় উইকেটটা পেয়ে গিয়েছে অস্ট্রেলিয়া। বিরাটকে ফিরিয়ে দিতে যে উল্লাস চোখে পড়ল তাতে বোঝাই যাচ্ছিল এই উইকেটটার জন্যই অপেক্ষা করছিল তারা। একদিক থেকে যখন নিয়মিত উইকেট পড়ছে, বিরাট দেওয়াল তুলে দিয়েছিলেন অন্যদিকে। রান করে যাচ্ছিলেন নিয়মিত গতিতে। তিনি ফিরতেই ভারত যে চাপে পড়ল তা বলাই যায়। ক্রিজে রয়েছেন হার্দিক (১৯ রানে অপরাজিত) এবং জাদেজা (৩ রানে অপরাজিত)।
উইকেট | আউট বিরাট। ৭৮ বলে ৬৩ রান করে ফিরলেন ভারত অধিনায়ক। ফিঞ্চের বোলার বদলানোর সুফল পেল অস্ট্রেলিয়া। হ্যাজেলউডকে ফিরিয়ে আনতেই উইকেট পেল অজিরা। এই সিরিজে বিরাটকে ৩ বারই ফেরালেন হ্যাজেলউড।
৩০ ওভার | ভারতের ১৪৪/৪ | লড়াই কঠিন হচ্ছে ভারতের। বিরাট (৫৯ রানে অপরাজিত) ছাড়া অন্য ব্যাটসম্যানরা ফিরে গিয়েছেন। ক্রিজে রয়েছেন অলরাউন্ডার হার্দিক (৬ রানে অপরাজিত)।
বিরাট ৫০* | একদিনের ক্রিকেটে ৬০তম হাফ সেঞ্চুরি করলেন বিরাট। তাঁর ব্যাটে ভর করেই এগিয়ে চলেছে ভারত।

উইকেট | আউট রাহুল। আগরের বলে এলবিডব্লু হলেন তিনি। ফের রিভিউ নিলেও সিদ্ধান্তের বদল হয়নি। ১১ বলে ৫ রান করে ফিরতে হল তাঁকে।
২৫ ওভার | ভারতের ১২২/৩ | ৩ উইকেট হারিয়ে চাপে ভারত। বিরাট কোহালির ব্যাটে লড়াই চালিয়ে যাচ্ছে তারা। সদ্য নামা লোকেশ রাহুলের থেকে বুধবার বড় ইনিংস আশা করছে ভারত। বিরাট (৪৩ বলে অপরাজিত) এবং রাহুল (৫ রানে অপরাজিত) যদি আজ বড় রানের পার্টনারশিপ গড়েন তবেই লড়াই করার মতো রানের দিকে এগোবে ভারত।
উইকেট | আউট শ্রেয়াস। জাম্পার বলে লাবুশানের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফিরলেন তিনি। ২১ বলে ১৯ রান করে আউট শ্রেয়াস।

২০ ওভার | ভারতের ১০৪/২ | দুই ওপেনারকেই হারাল ভারত। লড়াই চালিয়ে যাচ্ছেন ভারত অধিনায়ক বিরাট (৩৬ রানে অপরাজিত)। তাঁর দিকেই তাকিয়ে ভারত। সঙ্গে রয়েছেন শ্রেয়াস (১৪ রানে অপরাজিত)।
উইকেট | আউট গিল। আগরের বলে এলবিডব্লু হলেন তিনি। রিভিউ নিলেও দেখা যায় মাঠের আম্পায়ারের সিদ্ধান্তই ঠিক।গিল ফিরলেন ৩৯ বলে ৩৩ রান করে।
১৫ ওভার | ভারতের ৮১/১ | সচিন তেন্ডুলকরের রেকর্ড ভাঙলেন কোহালি। ১২ হাজার করলেন সব চেয়ে কম ইনিংস খেলে। শিখরকে হারিয়েও লড়াই চালিয়ে যাচ্ছে ভারত।

১০ ওভার | ভারতের ৪৯/১ | শুরুতেই শিখরকে হারিয়ে রানের গতিতে বাধা ভারতের। ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহালি (১৩ রানে অপরাজিত), শুভমনকে (১৬ রানে অপরাজিত) সঙ্গে নিয়ে ইনিংস গড়ার কাজ করে চলেছেন। সিরিজে প্রথমবার আগে ব্যাট করার সুযোগ কাজে লাগাতে চাইবে ভারত। ক্যানবেরার মাঠে অতীতে বড় ওঠার রেকর্ড রয়েছে। বিরাটবাহিনীও চাইবে বড় রান তুলে অস্ট্রেলিয়াকে চাপে রাখতে।
উইকেট | আউট শিখর। প্রথমে ব্যাট করে বড় রানের লক্ষ্য ছিল ভারতের। কিন্তু শুরুতেই ধাক্কা। সিরিজে প্রথম খেলতে নামা শন অ্যাবটের বলে অ্যাশটন আগরের হাতে ক্যাচ তুলে ফিরলেন শিখর (২৭ বলে ১৬ রান)।
৫ ওভার | ভারতের ২৪/০ | ভারতের নতুন ওপেনিং জুটি ধীরে চলো নীতি নিয়ে শুরু করেছে। শিখর ধওয়ন (১৫ রানে অপরাজিত) এবং শুভমন গিলকে (৬ রানে অপরাজিত) এখনও সে ভাবে স্বচ্ছন্দ দেখাচ্ছে না। অস্ট্রেলিয়ার হয় দ্বিতীয় ওভার করলেন গ্লেন ম্যাক্সওয়েল।
টস | ক্যানবেরায় তৃতীয় এক দিনের ম্যাচে টস জিতল ভারত। সিরিজের শেষ ম্যাচে টস জিতে ব্যাটিং নিলেন অধিনায়ক বিরাট কোহালি।
ভারতীয় দল থেকে বাদ পড়লেন মহম্মদ শামি। তাঁর বদলে দলে এলেন টি নটরাজন। আজকের ম্যাচে বসানো হয়েছে ময়াঙ্ক আগরওয়াল, নবদীপ সাইনি এবং যুজবেন্দ্র চহালকেও। দলে এসেছেন শুভমন গিল, শার্দূল ঠাকুর এবং কুলদীপ যাদব।

অস্ট্রেলিয়া দল থেকে চোটের জন্য বাদ পড়েছেন ডেভিড ওয়ার্নার। তা ছাড়াও দলে নেই মিচেল স্টার্ক এবং প্যাট কামিন্স। তাঁদের বদলে দলে এলেন ক্যামেরন গ্রিন, শন অ্যাবট এবং অ্যাশটন আগর।
সিরিজ হাতছাড়া হয়ে গিয়েছে সিডনির মাঠেই। সম্মান রক্ষার এই ম্যাচে টস খুব গুরুত্বপূর্ণ ছিল। ক্যানবেরার এই মাঠে প্রথমে ব্যাট করা দল জিতেছে ১০ বারের মধ্যে ৯ বারই। সেই মাঠে টস জিতে ব্যাটিং নিয়ে কিছুটা এগিয়ে গেল ভারত। তবে মাঠে নেমে কোন দল ভাল খেলবে তার ওপরেই নির্ভর করবে আজকের ম্যাচ।
Advertisement