Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৩ অক্টোবর ২০২১ ই-পেপার

ধোনির ফর্মে ফেরা স্বস্তি আনছে, স্বীকার করলেন ধওয়ন

নিজস্ব প্রতিবেদন
মেলবোর্ন ১৭ জানুয়ারি ২০১৯ ১৫:২৮
হার্দিক পান্ড্যর অনুপস্থিতি প্রভাব ফেলেছে ভারসাম্যে, মনে করছেন ধওয়ন। ছবি বিসিসিআইয়ের টুইটার অ্যাকাউন্টের সৌজন্যে।

হার্দিক পান্ড্যর অনুপস্থিতি প্রভাব ফেলেছে ভারসাম্যে, মনে করছেন ধওয়ন। ছবি বিসিসিআইয়ের টুইটার অ্যাকাউন্টের সৌজন্যে।

সিডনি ও অ্যাডিলেড, সিরিজের প্রথম দুই একদিনের ম্যাচেই করেছেন পঞ্চাশ। তবে সিডনিতে আসেনি জয়। ফিনিশার মহেন্দ্র সিংহ ধোনির প্রত্যাবর্তন ঘটেছে অ্যাডিলেডে। শেষ ওভারে ম্যাচ জিতিয়ে ফিরেছেন তিনি। ঠিক আগের দিনের মতোই। আর এটাই স্বস্তি আনছে ভারতীয় শিবিরে।

মেলবোর্নে সিরিজের নির্ণায়ক একদিনের ম্যাচের আগে ওপেনার শিখর ধওয়ন বলেছেন, “অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে শেষ একদিনের ম্যাচে দারুণ দলগত পারফরম্যান্স দেখা গিয়েছে। সিরিজের দুটো ম্যাচেই ধোনি যা খেলেছে, তা গ্রেট। ও ছন্দ ফিরে পাওয়ায় দারুণ লাগছে। ধোনি সবসময় শান্ত ভাবে খেলে, অন্য ব্যাটসম্যানকে সবসময় ভরসা জোগায়। আমাদের কাছে ধোনির মেজাজে ফেরা খুব গুরুত্বপূর্ণ।” ৫৫ রানে অপরাজিত থেকে ম্যাচ জিতিয়েছিলেন এমএসডি।

অ্যাডিলেডে ছয় নম্বরে নেমে ২৪ বলে ২৫ করেছিলেন দীনেশ কার্তিক। তাঁরও প্রশংসা করেছেন শিখর। বলেছেন, “ওই ম্যাচে কার্তিকও খুব ভাল খেলেছিল। ভাল দিক হল দলে সবাই ব্যাটসম্যান হিসেবে পরিণত। যা আমাদের ব্যাটিংকে শক্তিশালী করে তুলেছে। গত কয়েক বছর ধরে আমরা ধারাবাহিক থেকেছি। আশা করছি, আগামী বছরগুলোতেও আমরা একই রকম ধারাবাহিক থাকব।”

Advertisement

কিন্তু কাল মেলবোর্নে কী হবে? ভারত কি অস্ট্রেলিয়ায় প্রথমবার একদিনের সিরিজ জিতে ইতিহাস তৈরি করতে পারবে? ধওয়নের উত্তর, “কাল মস্ত বড় ফাইনাল। দুই দলের কাছেই আকর্ষণীয় ম্যাচ হতে চলেছে। আমরাও আগ্রহের সঙ্গে তাকিয়ে রয়েছি। সিরিজ জেতার তাৎপর্য আমাদের কাছে অনেক। অস্ট্রেলিয়ায় এসে জিতলে সবসময়ই ভাল লাগে। শুক্রবার সিরিজ জিতলে তা আমাদের কাছে বিশাল কৃতিত্বের হবে। আমরা টেস্ট সিরিজ জিতেছি। এ বার ওয়ানডে সিরিজ জিতলে তা আরও মধুর হবে।”


অবশ্য হার্দিক পান্ড্যর অনুপস্থিতি যে জাতীয় দলের ভারসাম্যে প্রভাব ফেলছে, তা মেনে নিয়েছেন তিনি। শিখরের কথায়, “হার্দিক দলে থাকলে যে ভারসাম্য আনে, তা খুব গুরুত্বপূর্ণ। এমনকী, কেদার যাদবও যখন খেলে, তখন ওর অফস্পিনও খুব কাজে আসে। আমি তো বলব, কেদার হল আমাদের গোল্ডেন আর্ম। যখনই আসে, উইকেট ঠিক নেয়। কতবার যে ও জুটি ভেঙেছে। টেস্টের মতোই একদিনেও অলরাউন্ডারের প্রয়োজনীয়তা যথেষ্ট।” ঘটনা হল, অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে প্রথম দুই একদিনের ম্যাচে খেলানো হয়নি কেদারকেও।


(আইসিসি বিশ্বকাপ হোক বা আইপিএল ,টেস্ট ক্রিকেট, ওয়ান ডে কিংবা টি-টোয়েন্টি। ক্রিকেট খেলার সব আপডেট আমাদের খেলা বিভাগে।)

আরও পড়ুন

Advertisement