×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

০৯ মে ২০২১ ই-পেপার

টিকা দেওয়া হবে না কোহলী, ধোনিদের, আইপিএল-এর আগে নয়া নির্দেশিকা বোর্ডের

নিজস্ব প্রতিবেদন
কলকাতা ২০ মার্চ ২০২১ ১৬:১৩
আইপিএল-এর জন্য করোনাবিধি জানাল ভারতীয় বোর্ড।

আইপিএল-এর জন্য করোনাবিধি জানাল ভারতীয় বোর্ড।

শোনা গিয়েছিল আইপিএল-এর সঙ্গে যুক্ত ক্রিকেটারদের আগেই টিকা দেওয়া হবে। তবে সে সম্ভাবনা নেই বলেই জানিয়ে দিল সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের বোর্ড। বিসিসিআই-এর তরফে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, ‘ভারতের টিকাকরণ শুরু হয়েছে। কেন্দ্রীয় সরকার যে নিয়ম স্থির করেছে, সেই নিয়মেই টিকাকরণ চলবে। ক্রিকেটারদের আগে টিকা দেওয়ার কোনও পরিকল্পনা বোর্ডের নেই।’

৯ এপ্রিল থেকে শুরু হবে আইপিএল। ভারত বনাম ইংল্যান্ড সিরিজের সঙ্গে যুক্ত যে যে ক্রিকেটাররা আইপিএল খেলবেন, তাঁদের নিভৃতবাসে থাকতে হবে না। যেহেতু বিরাট কোহলীরা ইতিমধ্যেই জৈব সুরক্ষা বলয়ের মধ্যে রয়েছেন, তাই আলাদা করে নিভৃতবাসে থাকার প্রয়োজন নেই তাঁদের। তবে এখনকার জৈব সুরক্ষা বলয় থেকে সরাসরি আইপিএল দলের জৈব সুরক্ষা বলয়ের মধ্যে ঢুকতে হবে কোহলীদের। তবেই নিভৃতবাসে থাকার থেকে অব্যাহতি পাবেন তাঁরা।

করোনার জন্য মাঝ পথেই বন্ধ হয়ে যাওয়া পাকিস্তান সুপার লিগের থেকে শিক্ষা নিয়ে বেশ কিছু নতুন নিয়ম এনেছে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড। এ বারের আইপিএল-এ প্রতিটা দলের সঙ্গে একজন জৈব সুরক্ষা বলয় ম্যানেজারকে রাখা হবে। তাঁর দায়িত্ব থাকবে, দলের কোনও সদস্য যেন কোনও ভাবেই জৈব সুরক্ষা বলয়ের নিয়ম লঙ্ঘন না করে সেই দিকে লক্ষ্য রাখা। তেমন কোনও কিছু চোখে পড়লে তিনি রিপোর্ট করবেন বোর্ডের চিকিৎসককে।

Advertisement

ক্রিকেট বল করোনামুক্ত রাখতে, মাঠের বাইরে সেই বল যদি কেউ স্পর্শ করে তবে তা সঙ্গে সঙ্গে পাল্টে দেবেন চতুর্থ আম্পায়ার। মাঠের বাইরে যাওয়া বল জীবাণুমুক্ত করে রেখে দেওয়া হবে পরবর্তী সময় ব্যবহার করার জন্য।

বোর্ডের তরফে জানানো হয়েছে, ব্রাজিল, ইউরোপ, দক্ষিণ আফ্রিকা, যুক্তরাষ্ট্র এবং মধ্যপ্রাচ্য থেকে কোনও ক্রিকেটার এলে তাঁদের ৭ দিনের জন্য নিভৃতবাসে থাকতে হবে নিজেদের খরচে। চেন্নাইয়ে ঢুকতে গেলে আলাদা সম্মতিপত্রের প্রয়োজন পড়বে তামিলনাড়ু সরকারের পক্ষ থেকে।

সব মিলিয়ে ১২টি জৈব সুরক্ষা বলয় তৈরি করা হবে। ৮টি দলের জন্য তো থাকবেই তা ছাড়া আম্পায়ারদের জন্য ২টি এবং ধারাভাষ্যকারদের জন্য ২টি জৈব সুরক্ষা বলয়ের ব্যবস্থা করা হবে। পাকিস্তান সুপার লিগ যে ভাবে মাঝ পথে বন্ধ হয়ে গিয়েছিল, তেমন যেন আইপিএল-এ না হয়, সেই দিকেই নজর বিসিসিআই-য়ের।

Advertisement