Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৯ নভেম্বর ২০২১ ই-পেপার

টসে যেতে কেন দেরি করতেন সৌরভ? পাঠান জানালেন আসল কারণ

সংবাদ সংস্থা 
মুম্বই ১৪ জুলাই ২০২০ ১৩:০৮
২০০৪ সালে সিডনিতে টসের সময়ে সৌরভ ও স্টিভ ওয়। সেটাই ছিল ওয়-র ফেয়ারওয়েল টেস্ট। —ফাইল চিত্র।

২০০৪ সালে সিডনিতে টসের সময়ে সৌরভ ও স্টিভ ওয়। সেটাই ছিল ওয়-র ফেয়ারওয়েল টেস্ট। —ফাইল চিত্র।

ইডেন গার্ডেন্সে অস্ট্রেলিয়ার প্রাক্তন অধিনায়ক স্টিভ ওয়-কে টসের সময়ে অপেক্ষায় রেখেছিলেন ভারতের প্রাক্তন অধিনায়ক সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। সম্প্রতি ইংল্যান্ডের প্রাক্তন অধিনায়ক নাসের হুসেনও একই প্রসঙ্গে মন্তব্য করেছেন।

অস্ট্রেলিয়া-ইংল্যান্ডের মতো কঠিন প্রতিপক্ষকে বল গড়ানোর আগেই ধাক্কা দেওয়ার জন্য হয়তো ধুরন্ধর দুই অধিনায়ককে দাঁড় করিয়ে রেখেছিলেন সৌরভ। এ রকমই একটা ধারণা প্রচলিত রয়েছে ক্রিকেটমহলে।ভারতের প্রাক্তন পেসার ইরফান পাঠান তাঁর প্রাক্তন অধিনায়ককে খুব কাছ থেকে দেখেছেন।বাঁ হাতি বোলার বলছেন, ‘‘টসের সময় হলে দাদা ঘড়ির দিকে তাকাত। দলের ম্যানেজার এসে বলতেন, টস করতে যাওয়ার সময় হয়ে গিয়েছে।’’ সবাই সৌরভকে টসের সময় স্মরণ করিয়ে দিলেও প্রাক্তন অধিনায়কের মধ্যে কোনও পরিবর্তন দেখা যেত না।

আরও পড়ুন: মুগ্ধ স্যর ভিভ, ক্যারিবিয়ান আকাশে নতুন তারা ব্ল্যাকউড

Advertisement

সৌরভের নেতৃত্বে ২০০৩-০৪ মরসুমে অস্ট্রেলিয়া সফরে গিয়েছিলেন পাঠান। সেটাই ছিল অস্ট্রেলিয়ায় পাঠানের প্রথম সফর। সেই সফরের স্মৃতিচারণ করে পাঠান বলেন, ‘‘সিডনিতে স্টিভ ওয়-র শেষ টেস্টেও টসের সময়ে দাদা ওঁকে অপেক্ষায় রেখেছিল। সচিনও এসে দাদাকে বলেছিল, টসের সময় কিন্তু হয়ে গিয়েছে। দাদা তখন ক্যাপ, সোয়েটার ঠিক করতেই ব্যস্ত ছিল।’’

নির্ধারিত সময়ের পরে টস করতে গেলেও সৌরভের মধ্যে চাপের চিহ্নমাত্র লক্ষ্য করা যেত না। পাঠান বলছেন, ‘‘যখন কোনও কাজে কেউ দেরি করে ফেলে, তখন তাঁর চোখেমুখ দেখলেই বোঝা যায় যে সে চাপে রয়েছে। দাদাকে দেখে কিন্তু সেরকম মনেই হত না।’’

আরও পড়ুন

Advertisement