Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৪ জানুয়ারি ২০২২ ই-পেপার

ওয়ালশের চোখে

ক্যাপ্টেনের সেরাটা বার করে আনবে কুম্বলে

চেতন নারুলা
সেন্ট কিটস ১৭ জুলাই ২০১৬ ০৩:২১
এক টেবলে দুই কিংবদন্তি। অনিল কুম্বলের সঙ্গে ডিনারে কোর্টনি ওয়ালশ। ছবি টুইটার।

এক টেবলে দুই কিংবদন্তি। অনিল কুম্বলের সঙ্গে ডিনারে কোর্টনি ওয়ালশ। ছবি টুইটার।

অনিল কুম্বলেকে দেখে তাঁর সব সময় মনে হয়েছে যে, লোকটার কাছে ক্রিকেট আগে, বাকি সব কিছু পরে। ভারতীয় বোর্ড রবি শাস্ত্রী পরবর্তী অধ্যায়ে কুম্বলেকে কোচ নিবার্চন করায় খুশিও হয়েছিলেন। শুধু তাই নয়, তাঁর এটাও মনে হয় যে, ব্যাটসম্যান এবং ক্যাপ্টেন হিসেবে কোহালিকে সাফল্যের চূড়ান্ত রাস্তা দেখাতে কুম্বলে ভাল পারবেন। কোহালিকে শান্ত রাখার জন্যও কুম্বলেই সেরা লোক।

তিনি— কোর্টনি ওয়ালশ। এবং আপাতত কুম্বলে নিয়ে এগুলোই তাঁর রায়।

ক্যারিবিয়ান কিংবদন্তি পেসার নিঃসন্দেহ যে, আগামী এক মাসে অসম্ভব উত্তেজক একটা টেস্ট সিরিজ তাঁরা দেখতে চলেছেন। কোহালিই নাকি সেই উত্তেজনার বন্দোবস্ত করে দেবেন! ‘‘দু’টো প্র্যাকটিস ম্যাচে তো দেখলাম। আমি নিশ্চিত যে, কোহালি দারুণ একটা সিরিজ আমাদের উপহার দিতে যাচ্ছে। কোনও সন্দেহ নেই, বিশ্বের সেরা তিন ব্যাটসম্যানের একজন ও। কোহালি এমন একজন ক্রিকেটার যে মাঠের বাইরের সব কিছু মাঠের বাইরে ফেলে নামে,’’ শনিবার বলছিলেন ওয়ালশ। সঙ্গে যোগ করেন, ‘‘তার পর কুম্বলে। ওকে কোচ বাছাটা একদম সঠিক হয়েছে। কুম্বলের অভিজ্ঞতা প্রচুর, ক্রিকেটকে ও অসম্ভব ভালওবাসে। কোহালি এখন ব্যাটসম্যান হিসেবে তো বটেই, ক্যাপ্টেন হিসেবেও ভাল করতে চায়। নিজের অভিজ্ঞতা আর প্যাশন দিয়ে কুম্বলে ওকে তাতে সাহায্য করতে পারে। শুধু একটাই প্রার্থনা, কোহালি যেন আমাদের বিরুদ্ধে রান না পায়!’’

Advertisement

ভারতীয় টিমের কোচের হটসিট সামলাতে কুম্বলেকে কোনও অসুবিধেয় প়়ড়তে হবে বলেও মনে হয় না ওয়ালশের। ‘‘সবচেয়ে বড় হল, ওর প্রতি টিমের ক্রিকেটারদের সম্মান। এত দিন ধরে খেলেছে ও, প্লেয়াররা এমনিই ওকে সম্মান করবে। ক্রিকেট ছেড়ে দেওয়ার পরেও ক্রিকেট থেকে দূরে চলে যায়নি কুম্বলে। কোনও না কোনও ভাবে ঠিকই জড়িয়ে থেকেছে। ক্রিকেটের প্রতি কুম্বলের ভালবাসা, ক্রিকেট নিয়ে কুম্বলের আবেগ, অতুলনীয়।’’ আর নতুন কোচকে বাদ রাখলে ওয়ালশ টিম ইন্ডিয়ার আরও একটা ব্যাপার নিয়ে সমান মুগ্ধ। ভারতের পেস ব্যাটারি।

ওয়ালশ মনে করতে পারছেন না, শেষ কবে ভারতীয় টিমে তিন-চার জন পেসারকে এত ভাল পেসে বল করতে দেখেছেন। বলছেন, ‘‘মনে তো পড়ে না। আজ ভারতীয় টিমে উমেশ যাদব আছে, মহম্মদ শামি আছে, ইশান্ত শর্মা আছে। আমার তো মনে হয় না, ভারতের পেস আক্রমণ সামলানো খুব সহজ হবে ওয়েস্ট ইন্ডিজের পক্ষে।’’

ইশান্ত শর্মার নেতৃত্বাধীন ভারতীয় পেস আক্রমণ কতটা ভয়ঙ্কর হয়ে উঠবে, তা জানতে আর দিন পাঁচেক ধৈর্য রাখতে হবে। কিন্তু এই মুহূর্তে ক্যারিবিয়ান দ্বীপপুঞ্জে যাঁরা দাপট দেখাচ্ছেন, তাঁরা ভারতীয় পেসার নন, স্পিনার। ওয়েস্ট ইন্ডিজ বোর্ড প্রেসিডেন্টস একাদশের প্রথম ইনিংস দু’শোর কমে শেষ দেওয়ার পিছনে যাঁদের ভূমিকা অনস্বীকার্য। দশটার মধ্যে আটটা উইকেটই তুলেছিলেন অশ্বিন-জাডেজারা। দ্বিতীয় ইনিংসেও ছ’টার মধ্যে চারটি স্পিনারদের। প্রেসিডেন্টস একাদশের প্রথম ইনিংসে তোলা ১৮০-র জবাবে ভারত তোলে ৩৬৪। দ্বিতীয় ইনিংসে প্রেসিডেন্টস একাদশ ব্যাট করতে নেমে দিনের শেষে তারা ছ’উইকেট হারিয়ে ২২৩ করায় ম্যাচ ড্র হয়ে যায়। তিন উইকেট নেন অশ্বিন। জাডেজা, শামি দুটো। অন্যটা রান আউট।

আরও পড়ুন

Advertisement