×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

২৩ এপ্রিল ২০২১ ই-পেপার

মেলবোর্ন টেস্টে গতি ও বাউন্সে ভরা উইকেটের দাবি কামিন্সের

নিজস্ব প্রতিবেদন
কলকাতা ২০ ডিসেম্বর ২০২০ ১৫:১০
অ্যাডিলেডের মতে মেলবোর্নেও কি বিধ্বংসী মেজাজে দেখা যাবে কামিন্সকে? ছবি টুইটার থেকে নেওয়া।

অ্যাডিলেডের মতে মেলবোর্নেও কি বিধ্বংসী মেজাজে দেখা যাবে কামিন্সকে? ছবি টুইটার থেকে নেওয়া।

মেলবোর্নে ২৬ ডিসেম্বর থেকে শুরু হচ্ছে বক্সিং ডে টেস্ট। আর সেই টেস্টে গতিময় বাউন্সযুক্ত উইকেট চাইছেন অস্ট্রেলিয়ার প্যাট কামিন্স

শনিবার অ্যাডিলেড ওভালে গোলাপি বলে দিনরাতের টেস্টে নৈশপ্রহরী যশপ্রীত বুমরা ও চেতেশ্বর পূজারাকে ফিরিয়ে তিনিই ভাঙন ধরিয়েছিলেন। তার পর ৫ উইকেট নিয়ে ভারতকে দুরমুশ করেন জশ হ্যাজলউড। ২১ রানের বিনিময়ে কামিন্স নেন ৪ উইকেট। তাঁর শিকারের মধ্যে ছিলেন ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহালিও। মাত্র ৩৬ রানে শেষ হয় ভারতের দ্বিতীয় ইনিংস। যা টেস্টে টিম ইন্ডিয়ার সর্বনিম্ন স্কোর। তিন দিনের মধ্যে প্রথম টেস্ট ৮ উইকেটে জেতে অস্ট্রেলিয়া।

কামিন্সের আশা, অ্যাডিলেডের মতো মেলবোর্ন ক্রিকেট মাঠেও সহায়তা মজুত থাকবে জোরে বোলারদের জন্য। তিনি বলেছেন, “আমার মনে হয় ২০১৭ সালের অ্যাশেজ টেস্ট ও দু’বছর আগে ভারতের বিরুদ্ধে টেস্টে মেলবোর্নের উইকেট রীতিমতো পাটা ছিল। একজন বোলারের উৎসাহিত হওয়ার মতো কিছু ছিল না। গত বছর নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে অবশ্য ভাল উইকেটে খেলা হয়েছিল। যাতে মুভমেন্টের পাশাপাশি গতি-বাউন্সও ছিল। আশা করা যায় যে এ বারও তেমন থাকবে।” অর্থাৎ, ভারতীয় দলকে কার্যত ফের গতি-বাউন্সে দুরমুশ করার হুমকি দিয়ে রাখলেন তিনি।

Advertisement

আরও পড়ুন: মেসিকে অভিনন্দন জানিয়ে বার্সায় থেকে যাওয়ার অনুরোধ পেলের​

আরও পড়ুন: মারাদোনার চিঠি প্রকাশ্যে, ‘লেনিনের মতো সংরক্ষিত হোক আমার দেহ’

এই মুহূর্তে বিশ্বের অন্যতম সেরা বোলার কামিন্স বলেছেন, “শুধু একজন খেলোয়াড় হিসেবে নয়, একজন ক্রিকেটপ্রেমী হিসবে মনে করি যে ব্যাট ও বলের মধ্যে দুর্দান্ত লড়াই হলেই সেই উইকেট সেরা। যেখানে অনুভূত হয় যে নিজের স্কিল ঠিকঠাক মেলে ধরতে পারলে ম্যাচে বড় প্রভাব ফেলা যাবে।”

অস্ট্রেলিয়া দলের বোলিং পারফরম্যান্সের প্রশংসা করে কামিন্স আরও বলেন, “এমন একটা দিন গিয়েছে যখন সবকিছুই ঠিকঠাক হয়েছে। আমরা যে চেষ্টাই করেছি, সেটাই সফল হয়েছে। গত বছর হেডিংলিতেও এমন হয়েছিল। সেই দিনের মতো শনিবারও অস্ট্রেলিয়া দলকে সেরা বোলিং করতে দেখলাম।”

Advertisement