Advertisement
০২ ডিসেম্বর ২০২২

পায়েত নেই, পোগবার দাবি তিনিই নেতা

ফরাসি কোচের যুক্তি, ‘‘কোনও সন্দেহই নেই ওকে রাশিয়ার দলে রাখার কথাই ভাবা হয়েছিল। কিন্তু কথা না শুনে ইউরোপা ফাইনালে প্রথমার্ধে মাঠে নেমে পড়ল। তাতে ওর চোট আরও বাড়ল।

লক্ষ্য: মাঠে ও মাঠের বাইরে নেতৃত্ব দিতে চান পোগবা। ফাইল চিত্র

লক্ষ্য: মাঠে ও মাঠের বাইরে নেতৃত্ব দিতে চান পোগবা। ফাইল চিত্র

নিজস্ব প্রতিবেদন
শেষ আপডেট: ১৯ মে ২০১৮ ০৫:০৩
Share: Save:

চমকের পর চমক। ফান্সের বিশ্বকাপ দলে নেই মার্সেইয়ের মহাতারকা দিমিত্রি পায়েত।

Advertisement

হলটা কী? জবাব দিয়েছেন ফরাসি জাতীয় কোচ দিদিয়ের দেশঁ স্বয়ং। কে না জানে, প্রাক্তন ওয়েস্ট হ্যাম তারকা পায়েত এখন খেলছেন ফরাসি লিগ ওয়ান-এ। এবং ইউরোপা লিগ ফাইনালে আতলেতিকো মাদ্রিদের বিরুদ্ধে হ্যামস্ট্রিংয়ে মারাত্মক চোট পেয়ে মাঠ থেকে বেরিয়ে যান। যার পরিনাম দেশঁর ‘নিষ্ঠুরতম’ সিদ্ধান্ত।

ফরাসি কোচের যুক্তি, ‘‘কোনও সন্দেহই নেই ওকে রাশিয়ার দলে রাখার কথাই ভাবা হয়েছিল। কিন্তু কথা না শুনে ইউরোপা ফাইনালে প্রথমার্ধে মাঠে নেমে পড়ল। তাতে ওর চোট আরও বাড়ল। এখন যা অবস্থা, খেলার মতো জায়গায় পায়েতকে ফিরতে অন্তত আরও তিন সপ্তাহ লাগবে। আমার হাতে সময় কোথায়? তাই ওকে বাদ দিয়েই আমরা বিশ্বকাপে খেলতে যাচ্ছি।’’

তবু আর একটু কী অপেক্ষা করা যেত না? এমন প্রশ্নে দেশঁর কঠোর জবাব, ‘‘না, যেত না। চোটটা মাংস পেশিতে। যে কোনও সময় তা ফিরে আসতে পারে। বিশ্বকাপের মতো আসরে অন্তত এ সব নিয়ে কোনও ঝুঁকি নেওয়া যায় না।’’

Advertisement

ফ্রান্স কাপ না জিতলেও শেষ ইউরোয় অসাধারণ খেলেছিলেন পায়েত। এমনও বলা হচ্ছিল, বিশ্বকাপে তিনিই নেতৃত্ব দেবেন দলকে। এ দিকে ম্যাঞ্চেস্টার ইউনাইটেডে জোসে মোরিনহোর ‘অপ্রিয়’ ফুটবলার পল পোগবা বলে বসেছেন, বিশ্বকাপে তিনিই নাকি ফ্রান্সকে নেতৃত্ব দেবেন। তাঁর মন্তব্য, ‘‘দেখবেন আমিই ফ্রান্স দলটাকে চালাব। নেতৃত্বও দেব। শুধু মাঠে না, মাঠের বাইরেও। মনে রাখবেন, ব্রাজিলে আমিই নতুনদের মধ্যে সেরা হয়েছিলাম। এ বারও তেমন কিছুই হতে যাচ্ছে।’’

পোগবা অবশ্য খানিক মজা করে এ ভাবেই কথা বলতে অভ্যস্ত। ফ্রান্সের কাগজগুলি লিখছে অধিনায়কের আর্মব্যান্ডটা রাশিয়ায় হাতে পরবেন দলের এক নম্বর গোলরক্ষক হুগো লরিসই। অবশ্য এ সব না, যাবতীয় আলোচনা এখন পায়েতের বাদ পড়া নিয়েই। তাঁর বিকল্প হিসেবে দেশঁ কাকে ভাবছেন তারও খানিক ইঙ্গিত রয়েছে ২৩ জনের দলে। কারণ দেশঁ নিয়েছেন মার্সেইয়ে পায়েতেরই সতীর্থ ফ্লোরিয়া তভাঁকে। সঙ্গে লিয়ঁর অধিনায়ক নেবিল ফেকিরকেও।

আরও চমক আছে ফ্রান্স দলে। ম্যাঞ্চেস্টার সিটির লেফ্টব্যাক বেঞ্জামিন মেন্দিকে নেওয়া হয়েছে। অথচ এ বারের ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে পেপ গুয়ার্দিওলা তাঁকে কার্যত রিজার্ভ বেঞ্চেই বসিয়ে রেখেছিলেন। মেন্দির অবশ্য হাঁটুতে চোটও ছিল। এমনিতে পায়েতহীন ফ্রান্সের সেরা নাম অবশ্যই আঁতোয়া গ্রিজম্যান। রয়েছেন সম্ভাবনাময় কিলিয়ান এমব্যাপেও। বলেছেন, ‘‘ছোটবেলা থেকে স্বপ্ন দেখেছি, বিশ্বকাপে খেলব। ভাবতেই পারছি না, এ বার সেই সুযোগটাই আমার কাছে এসে গেল।’’

দেশঁ কিন্তু আর্সেনালের আলেকজান্দ্রে লাকাজেতকে স্টান্ড বাইদের মধ্যে রেখেছেন। আর বাদ পড়েছেন আর্সেনালেরই আর এক ফুটবলার ডিফেন্ডার লরাঁ কোশিয়েলনি। এবং রিয়াল মাদ্রিদের তারকা করিম বে়ঞ্জেমার ব্যাপারেও আগের অবস্থান থেকে সরেনি ফরাসি ফুটবল ফেডারেশন। সেই ‘সেক্সটেপ’ বিতর্কের জের এখনও চলছে। তাই ডাক পাননি বেঞ্জেমা। এটা নিয়ে প্রশ্ন করা হলে দেশঁর জবাব, ‘‘দু’বছর ধরে যাঁদের উপর ভরসা করে এসেছি তাঁদের বাইরে কারও কথা ভাবিনি ফ্রান্সের ভালর জন্যই।’’

ঘোষিত দল: হুগো লরিস, স্টিভ মান্দানা, আলফোন্স আরেওলা, লুকাস হার্নান্দেজ, প্রেসনেল কিমপেমবে, বেঞ্জামিন মেন্দি, বেঞ্জামিন পাভার্ড, অ্যাডিল রামি, জিব্রিল সিদিবে, স্যামুয়েল উমিতি, রাফায়েল ভারানে, এনগোলো কঁতে, ব্লাইসে মাতুইদি, স্টিভেন নেজনজি, পল পোগবা, কোরেন্টিন তলিসো, ওসুমানে দেমবেলে, নাবিল ফেকির, অলিভিয়ের জিহু, আঁতোয়া গ্রিজম্যান, টমাস লেমার, কিলিয়ান এমব্যাপে, ফ্লোরিয়া তভাঁ।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.