Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২১ মে ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

বিরাট-শ্রদ্ধা দুই কিংবদন্তির

সচিন মুগ্ধ নিখুঁত টেকনিকে, বল করলে চিন্তায় থাকতেন আক্রম

বিরাট কোহালির মনে হয় না, তিনি এখনও পরিপূর্ণ নন। বরং পারফেকশন পয়েন্টে পৌঁছনো এখনও তাঁর বাকি। প্রত্যেক দিনকে তাই নতুন দিন হিসেবে দেখেন, সব সময়

নিজস্ব প্রতিবেদন
২৮ মে ২০১৬ ০৪:১৩
Save
Something isn't right! Please refresh.
Popup Close

বিরাট কোহালির মনে হয় না, তিনি এখনও পরিপূর্ণ নন। বরং পারফেকশন পয়েন্টে পৌঁছনো এখনও তাঁর বাকি। প্রত্যেক দিনকে তাই নতুন দিন হিসেবে দেখেন, সব সময়ই তাঁর মনে হয় নিজেকে উন্নত করার আরও প্রয়োজন আছে।

বিরাট কোহালি মনে করিয়ে দিতে চান, একটা সময় তিনি অন্য ক্রিকেটারদের মতোই ছিলেন। নিজের জায়গা নিয়ে অনিশ্চয়তা থাকত, হিতাহিত ভুলে খেলতে গিয়ে ভুল করতেন। মাঠ এবং মাঠের বাইরে সব সময় নিজেকে নিয়ন্ত্রণ করতেও ইচ্ছে করত না।

‘‘প্রতিটা ম্যাচে আমি নামি যখন, মাথায় ঘোরে যে আমাকে আরও উন্নতি করতে হবে। আসলে রগড়ানির কোনও বিকল্প এখনও নেই,’’ শুক্রবার বলে দিয়েছেন কোহালি। সঙ্গে যোগ করেছেন, ‘‘বাকি ক্রিকেটারদের যে সমস্যায় পড়তে হয়, একটা সময় আমাকেও পড়তে হয়েছিল। টিমে জায়গা ধরে রাখতে পারব কি না, তা নিয়ে অনিশ্চয়তায় ভুগতাম। আগ্রাসন দেখাতে গিয়ে ভুল করতাম। কিন্তু সময়ের সঙ্গে সঙ্গে আপনি ভাবতে চেষ্টা করবেন যে, খেলাটার শীর্ষে নিজেকে রাখতে গেলে কী কী করতে হবে।’’

Advertisement

কিন্তু বিরাট যা-ই বলুন, তাঁর ব্যাটিংয়ে রীতিমতো মন্ত্রমুগ্ধ ক্রিকেট দুনিয়া। সচিন তেন্ডুলকরের মতো কিংবদন্তি মুগ্ধ তাঁর নিখুঁত টেকনিকে। ওয়াসিম আক্রম আবার বলে দিচ্ছেন যে, বিরাটের বিরুদ্ধে তাঁকে বল করতে হলে নিশ্চিন্ত থাকতে পারতেন না। বরং ভয়ে-ভয়ে থাকতে হত।

এক টিভি চ্যানেলে আক্রম বলে দেন, ‘‘আমাকে যদি ওর বিরুদ্ধে বল করতে হত, তা হলে অবশ্যই চিন্তায় থাকতাম। ওয়ান ডে-তে সচিন যখন ওপেন করত, তখন যেমন হত। সচিন আর বিরাটের মতো ব্যাটসম্যানদের বল করা খুব কঠিন। কারণ, ওদের আউট করার সুযোগ পাওয়াই মুশকিল।’’ আবার সচিন এক সাক্ষাৎকারে বলে দিয়েছেন, ‘‘ব্যাটটা সোজা রেখে ও শটগুলো নেয়। বড় রানগুলো নিখুঁত শটে নেয় ও। এর জন্য যেমন প্রচন্ড পরিশ্রম দরকার, তেমনই প্রয়োজন অধ্যবসায়। মানসিক ভাবেও বিরাট খুব শক্তিশালী। টেকনিকের সঙ্গে কোনও রকম আপস না করে সব ফর্ম্যাটের সঙ্গে মানিয়ে নিতে পারাটা ওর আর একটা বড় গুণ। চাপ সামলানোর ক্ষমতাও ওর খুব ভাল।’’

যার সঙ্গে সহমত প্রাক্তন পাকিস্তান পেসারও। আক্রমের কথায়, ‘‘ওকে কখনও রিভার্স শট বা বাজে শট খেলে রান নিতে দেখিনি। নিখুঁত শট খেলে আর ব্যাট সবসময় সোজা। এ রকম একজন ব্যাটসম্যান যে কোনও বোলারের কাছেই ত্রাস। বিরাট একটা আইপিএলেই ৩৬টা ছয় মেরেছে। আমি তো সারা ক্রিকেট জীবনে হয়তো গোটা ৫০ ছয় মারতে পেরেছি।’’



Something isn't right! Please refresh.

আরও পড়ুন

Advertisement