Advertisement
০৯ ডিসেম্বর ২০২২
Athlete Murder

২০০-র বেশি পদক, প্রতিহিংসা থেকে অ্যাথলিটকে খুনের অভিযোগ, জড়িত কি সতীর্থরাই

অলিম্পিক্সের প্রস্তুতি নিচ্ছিল ১৬ বছরের প্রিয়াংশু। বুধবার অনুশীলন শেষে বাড়ি ফেরার পথে তার উপর হামলা হয়। খুন করা হয় তাকে। পরিবারের অভিযোগ, প্রতিহিংসা থেকেই হামলা করা হয়েছে।

ছুরি মেরে খুন করা হয়েছে হরিয়ানার অ্যাথলিটকে।

ছুরি মেরে খুন করা হয়েছে হরিয়ানার অ্যাথলিটকে। —প্রতীকী চিত্র

নিজস্ব প্রতিবেদন
শেষ আপডেট: ৩১ অগস্ট ২০২২ ১৫:৫৫
Share: Save:

এক তরুণ অ্যাথলিটকে ছুরি মেরে খুন করার অভিযোগ উঠেছে হরিয়ানায়। ১৬ বছরের প্রিয়াংশু অলিম্পিক্সের প্রস্তুতি নিচ্ছিল বলে খবর। এত কম বয়সেই সে ২০০-র বেশি পদক জিতেছে। পরিবারের অভিযোগ, প্রিয়াংশুর সাফল্যের জন্যই প্রতিহিংসা থেকে তার উপর হামলা করা হয়েছে। তা হলে কি খুনের পিছনে সতীর্থদের হাত রয়েছে? পরিবারের অভিযোগের পরে তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

Advertisement

পুলিশ জানিয়েছে, হরিয়ানার ফরিদাবাদ জেলায় বাড়ি প্রিয়াংশুর। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় সেক্টর ১২-তে একটি স্পোর্টস কমপ্লেক্সে অনুশীলনের পরে বাড়ি ফিরছিল প্রিয়াংশু। সেক্টর ১২ ও সঞ্জয় কলোনির মাঝামাঝি একটি জায়গায় তার উপর হামলা হয়। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যায় পুলিশ। প্রিয়াংশুকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে চিকিৎসকেরা তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। পুলিশ জানিয়েছে, প্রিয়াংশুর শরীরে অনেকগুলি আঘাতের চিহ্ন ছিল। প্রাথমিক ভাবে মনে করা হচ্ছে প্রিয়াংশুর উপর বেশ কয়েক জন মিলে হামলা করেছিল। দেহ ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে। রিপোর্ট হাতে পেলে মৃত্যুর কারণ জানা যাবে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

প্রিয়াংশুর পরিবার জানিয়েছে, অল্প বয়স থেকেই ফরিদাবাদ ও তার আশপাশের এলাকায় ভাল অ্যাথলিট হিসাবে পরিচিত ছিল সে। এত কম বয়সে ২০০-র বেশি পদক জিতেছে। খেলায় এই সাফল্যের জন্যই প্রতিহিংসার বশে প্রিয়াংশুর উপর হামলা হয়েছে বলে অভিযোগ পরিবারের। ঘটনার তদন্ত করে দোষীদের কঠিন শাস্তি দেওয়ার দাবি করেছেন তাঁরা। একই দাবি স্থানীয় বাসিন্দাদেরও।

পুলিশ জানিয়েছে, অজ্ঞাতপরিচয় ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করে ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে তারা। যেখানে হামলা হয়েছিল তার আশপাশে কোনও সিসিটিভি রয়েছে কি না, তা খতিয়ে দেখছে তারা। জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে স্থানীয় বাসিন্দাদের। এখনও পর্যন্ত হামলাকারীদের কোনও খোঁজ পাওয়া যায়নি বলে খবর।

Advertisement

এই ঘটনায় পুলিশের বিরুদ্ধে ক্ষোভপ্রকাশ করেছেন স্থানীয় বাসিন্দারা। তাঁদের অভিযোগ, পুলিশ যদি ঠিক ভাবে এলাকায় টহল দিত তা হলে এই ধরনের ঘটনা না-ও ঘটতে পারত। প্রিয়াংশুর খুনের ঘটনার পর থেকে এলাকায় নিরাপত্তা বাড়ানো হয়েছে।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.