Advertisement
১৬ জুলাই ২০২৪

চহালকে আমার দারুণ পছন্দ, বলছেন ক্লাসেন

তিনি— হেনরিক ক্লাসেন। বুধবার সেঞ্চুরিয়নে দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টি ম্যাচে ভারতের হারার পিছনে প্রধান কারিগর। ৩০ বলে ৬৯ করার পথে ক্লাসেনের ব্যাট থেকে এসেছে তিনটে বাউন্ডারি, সাতটা ওভারবাউন্ডারি।

বিধ্বংসী: দু’শোর ওপর স্ট্রাইক রেট নিয়ে ম্যাচ জেতালেন ক্লাসেন।

বিধ্বংসী: দু’শোর ওপর স্ট্রাইক রেট নিয়ে ম্যাচ জেতালেন ক্লাসেন।

নিজস্ব প্রতিবেদন
শেষ আপডেট: ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ ০৪:২৪
Share: Save:

সঞ্জয় মঞ্জরেকর তাঁর সম্পর্কে টুইট করেছেন, ‘দানবিক শক্তি, বরফশীতল মানসিকতা। ভাল বলেও ছয় মারতে পারে। স্পিন ভাল খেলে। দক্ষিণ আফ্রিকা ভাল একজন ক্রিকেটার পেয়ে গেল।’ সোশ্যাল মি়ডিয়ায় বলা হচ্ছে, আইপিএলের কোনও দল থেকে কোনও বিদেশি ব্যাটসম্যান সরে গেলেই এ বার তাঁকে নিয়ে নেবে সেই ফ্র্যাঞ্চাইজি।

তিনি— হেনরিক ক্লাসেন। বুধবার সেঞ্চুরিয়নে দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টি ম্যাচে ভারতের হারার পিছনে প্রধান কারিগর। ৩০ বলে ৬৯ করার পথে ক্লাসেনের ব্যাট থেকে এসেছে তিনটে বাউন্ডারি, সাতটা ওভারবাউন্ডারি। ভারতের দেওয়া ১৮৮ রানের লক্ষ্য আট বল বাকি থাকতেই ক্লাসেন এবং জে পি ডুমিনির দাপটে চার উইকেট হারিয়ে তুলে দেয় দক্ষিণ আফ্রিকা। যে ম্যাচ জিতে উঠে ক্লাসেন বলেছেন, ‘‘ভারতের যুজবেন্দ্র চহালকে আমার খুব ভাল লাগে!’’

ভাল লাগার কারণও অবশ্য আছে! দু’দলের সীমিত ওভারের সিরিজে ভারতের এই লেগস্পিনারকে সব চেয়ে ভাল যিনি বুঝতে পারছেন, তাঁর নাম ক্লাসেন। এর আগে ওয়ান ডে-তেও চহালের বিরুদ্ধে আক্রমণাত্মক ছিলেন ক্লাসেন। গত কাল টি-টোয়েন্টি ম্যাচে বিধ্বংসী ক্লাসেনের সামনে চহালের লেগস্পিন কোনও চ্যালেঞ্জই খাড়া করতে পারেনি। চার ওভারে চহাল দিয়েছিলেন ৬৪ রান। পাশাপাশি তাঁর বলে সাতটা ওভারবাউন্ডারি মারা হয়েছে। যার বেশির ভাগই এসেছে ক্লাসেনের ব্যাট থেকে। চহাল নিয়ে ক্লাসেনের বক্তব্য, ‘‘ওর বোলিং আমি খুব পছন্দ করি। আমি যখন খেলা শুরু করি, তখন প্রথম দিকে বেশ কয়েক জন ভাল লেগস্পিনারের বিরুদ্ধে খেলার সুযোগ পেয়েছিলাম। পরে ঘরোয়া ক্রিকেটে টাইটান্সের হয়ে খেলার সময় শন ভন বার্গের বিরুদ্ধে অনেক ব্যাট করেছি। ফলে লেগস্পিনারদের বিরুদ্ধে খেলতে আমার সমস্যা হয় না। ওদের বল আমি বুঝতে পারি।’’

সমস্যা যে হয় না, তা চহাল হাড়ে হাড়ে বুঝতে পেরেছেন। বুধবারের টি-টোয়েন্টিতে চহালের এক ওভারে ২৩ রান নিয়েছিলেন ক্লাসেন। তা ছাড়া টি-টোয়েন্টিতে কোনও ভারতীয় বোলার এর আগে চার ওভারে ৬৪ রান দেননি। চহালকে মারবেন বলে কি আগেই ঠিক করে নিয়েছিলেন? সাংবাদিক বৈঠকে এসে যে প্রশ্নের জবাবে ক্লাসেন বলেছেন, ‘‘প্রথম থেকে আমার সে রকম কোনও পরিকল্পনা ছিল না। কিন্তু দেখছিলাম ভারতীয় পেসাররা বেশ ভাল বল করছিল। ওদের মারা কঠিন হয়ে যাচ্ছিল। যে জন্য আমি চহালের বিরুদ্ধে স্ট্রোক খেলা শুরু করি।’’

সেঞ্চুরিয়নের নায়ক বলছেন, এই ইনিংস খেলার পরে তাঁর স্বপ্ন পূরণ হয়ে গিয়েছে। ‘‘এটাই যদি আমার শেষ ম্যাচ হয়, তবে তাই হোক। আমার কোনও আক্ষেপ নেই। আমার স্বপ্ন সফল হয়েছে,’’ বলেছেন দক্ষিণ আফ্রিকার বিস্ফোরক এই উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)
সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের মাধ্যমগুলি:
Advertisement

Share this article

CLOSE