• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

পাশে কখনও হিটলার, কখনও আইনস্টাইন, ফেসবুকে জোরদার মদন রহস্য

Meme of Madan Mitra
সবুক মিমের জগতে এভাবেই ট্রেন্ড করছেন মদন মিত্র | ছবি ফেসবুক থেকে সংগৃহীত|

মন্ত্রিত্ব গেছে অনেক দিন হল। লোকসভা ভোটে তিনি নেই। দলের নির্বাচনী প্রচারেও তাঁকে এখনও সে ভাবে দেখা যায়নি। অথচ তিনি আছেন। প্রবল ভাবে আছেন। বলা ভাল, চমকে দেওয়া ‘প্রত্যাবর্তন’ ঘটিয়েছেন। সৌজন্যে সোশ্যাল মিডিয়া। তিনি মদন মিত্র। ফেসবুক খুললেই এখন তাঁকে নিয়ে অদ্ভুত সব মিম ভেসে উঠছে নিউজফিডে।

কথায় বলে মঙ্গলে ঊষা, বুধে পা। গত ২০ মার্চ ছিল বুধবার। আর এই দিনই ফেসবুকে আচমকাই ভেসে ওঠে একটা পেজ: মদন মিত্র অ্যাট আনইউজুয়াল প্লেসেস— উই লাভ মদন স্যর।

এই প্রতিবেদন লেখার সময় সেই পেজের ফলোয়ার সংখ্যা নয় নয় করে ১৭ হাজার ছঁই ছুঁই। পেজটি এতটাই জনপ্রিয় হয়েছে যে, ফেসবুকে মদন মিত্র লিখলেই মদন মিত্রের ভেরিফায়েড পেজের ঠিক পরেই আসছে এই নতুন পেজের নাম।

কী আছে এই পেজে, যে গড়ে দিন প্রতি প্রায় আড়াই হাজার করে বাড়ছে লাইক ও ফলোয়ারের সংখ্যা? আছে কিছু নিরীহ মিম, যার মধ্যমণি অবশ্যই মদন মিত্র।

আরও পড়ুন: ‘ওঁর পরিবারের সততা নেই কেন?’ মমতাকে আক্রমণ বিজেপির

পেজের নাম দেখেই বোঝা যাচ্ছে— মদন মিত্র সেই সব জায়গায় পৌঁছে গেছেন, বা তাঁর দেখা মিলেছে যেখানে যেখানে, সেখানে তাঁর থাকার কথাই নয়। মদনবাবুর এই সর্বত্র বিদ্যমান্যতার তালিকাটা বেশ চমকপ্রদ। কখনও তিনি হ্যারি পটার ও তার বন্ধুদের মধ্য দিয়ে উঁকি মারছেন, কখনও আবার ব্যাট ধরেছেন চাঁদের মাটিতে নীল আর্মস্ট্রংয়ের পাশে। দেশ, কাল সীমানার গণ্ডি পেরিয়ে পশ্চিমবঙ্গের প্রাক্তন পরিবহণ মন্ত্রীকে কখনও দেখা যাচ্ছে হিটলারের উচ্চপদস্থ অফিসারদের মাঝে, আবার কখনও তিনি আমেরিকার রাস্তায় ভিয়েতনাম যুদ্ধবিরোধী মিছিলে সামিল। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ শেষে রুজভেল্টের পাশে তিনি, আবার কৃষ্ণেন্দুর বদলে রিনা ব্রাউনকে সঙ্গে নিয়ে তিনিই বাইকের চালকের আসনে। বার্লিনের প্রাচীর ভাঙার তদারকিতে তিনি, আবার আছেন সেক্রেড গেমসের পোস্টারেও। স্পাইডারম্যান, টাইটানিকের জ্যাক,  ব্রুস লি— সব চরিত্রে ধরা দিয়েছেন মদন মিত্র তাঁর ফ্ল্যামবয়েন্ট ইমেজে।

মিম-এ বিখ্যাত মানুষদের মাঝে মদন মিত্র | ছবি - ফেসবুক থেকে সংগৃহীত

কিন্তু লোকসভা ভোটের ভরা বাজারে মদন মিত্রকে নিয়ে কৌতুকের মোড়কে এমন অভিনব প্রচারের পিছনে কারা? পেজ অ্যাডমিনদের দাবি, তাঁরা কোনও দলের নন। তাঁরা আদ্যন্ত পেশাদার, এবং নিখাদ হাস্যরসের জোগান দিতেই মদন মিত্রকে নিয়ে এই মিমের উদ্যোগ। তবে কোনও রকম কুরুচিকর ছবি এই পেজে পোস্ট করার অনুমতি নেই।

আরও পড়ুন: আরও ২৫ আসনে প্রার্থী ঘোষণা কংগ্রেসের, ‘হাতে’ তাস লক্ষ্মণও

ফেসবুক খুললেই এখন অহরহ মিম-এর ছড়াছড়ি। কিন্তু এই মিমের আমি মিমের তুমি হাওয়ায়,  মদন মিত্র এ ভাবে ভেসে উঠবেন, তাও এই ভোটের ভরা বাজারে, কেউ কি কল্পনাও করেছিলেন! ভাবতে পারেননি স্বয়ং মদন মিত্রও। খবরটা শুনে প্রথমে একটু ভ্রু কুঁচকেছিল বটে, তবে দেখার পর আপত্তিকর কিছু ঠেকেনি তাঁর। অ্যাডমিনদেরও দাবি, স্বয়ং মদন মিত্র ও তাঁর ফেসবুক টিম নাকি এই ব্যাপারটাকে বেশ স্পোর্টিংলিই নিয়েছেন। এ বিষয়ে মদনবাবু নিজে কী বলছেন? আনন্দবাজারকে প্রতিক্রিয়া দিতে গিয়ে তাঁর মূল কথা একটাই, “মজা করছ করো, কিন্ত এর জন্য আমাকে যেন রাজনৈতিকভাবে কোনও বিড়ম্বনায় না পড়তে হয়।’’

 

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন