Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৮ মে ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

পুলিশ সজাগ হোক: সুপার

নতুন পুলিশ জেলা সুন্দরবনের কাজকর্ম শুরু হল।শুক্রবার দায়িত্ব পাওয়ার পরেই নতুন পুলিশ সুপার তথাগত বসু জানান, সব জায়গায় যেন পুলিশ থাকে। কোনও ঝাম

নিজস্ব সংবাদদাতা
কাকদ্বীপ ১১ মার্চ ২০১৭ ০২:২১
Save
Something isn't right! Please refresh.
Popup Close

নতুন পুলিশ জেলা সুন্দরবনের কাজকর্ম শুরু হল।

শুক্রবার দায়িত্ব পাওয়ার পরেই নতুন পুলিশ সুপার তথাগত বসু জানান, সব জায়গায় যেন পুলিশ থাকে। কোনও ঝামেলা হলে তৎপরতার সঙ্গে যেন তা নিয়ন্ত্রণ করা হয়। যদিও পুলিশের নীচু তলার লোকবল না বাড়ালে কতটা কাজ হবে তা নিয়ে সন্দেহ রয়েছে পুলিশ মহলেরই একাংশের।

পুলিশ সুপার ছাড়াও আপাতত দু’জন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার অফিসার এবং আরও তিন জন ডিএসপি পদের অফিসার নিয়োগের প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। এ দিনই তথাগতবাবু বৈঠক করেন কাকদ্বীপের এসডিপিও অশেষবিক্রম দস্তিতার, সিআই সন্দীপ সিংহ রায়-সহ কাকদ্বীপের থানাগুলির ওসিদের সঙ্গে। তিনি বলেন, ‘‘আমাদের প্রথম লক্ষ্য হল মানুষকে আরও ভাল পরিষেবা দেওয়া এবং একই সঙ্গে সব জায়গায় যাতে পুলিশকে দেখা যায় তারও ব্যবস্থা করা।’’ যে কোনও ঝামেলার ক্ষেত্রে দ্রুত পদক্ষেপ করতে বলা হয়েছে। জানা গিয়েছে, কাকদ্বীপের ন’টি থানার সঙ্গেই ডায়মন্ড হারবার থেকে বাড়তি চারটি থানা যোগ করা হয়েছে এই নতুন পুলিশ জেলায়। ওই চারটি থানার জন্য একজন ডিএসপি পদমর্যাদার অফিসার দায়িত্বে থাকবেন। তা ছাড়াও, ডিএসপি প্রশাসন এবং ডিএসপি ডিআইবি পদে নিয়োগ করা হবে দু’জন আরও অফিসার। কাকদ্বীপের এসডিপিও পদে একজন অফিসার রয়েছেন। ওই পদটি ওরকমই থাকছে। নতুন পুলিশ সুপারের জন্য এখনও কোনও অফিস তৈরি হয়নি কাকদ্বীপে। কুলপি থানা এলাকায় পিপিপি মোড়ে তৈরি মোটেল, পথের সাথীতেই আপাতত সেই অফিস তৈরি করা হবে বলে জানানো হয়েছে। পরে কাকদ্বীপ এসডিও অফিসের পাশেই জমি খুঁজে স্থায়ী এসপি অফিস তৈরি করা হবে বলে জানা গিয়েছে।

Advertisement

নতুন পুলিশ লাইনের জন্য একশো কনস্টেবল পদের সুপারিশ করা হয়েছে। আইনশৃঙ্খলার মোকাবিলায় প্রচুর এসআই এবং এএসআই পদের প্রয়োজন রয়েছে। তা ছাড়াও প্রায় প্রতিটি গ্রামীণ থানাতেই লোকবল এবং পরিকাঠামোগত সমস্যা প্রচুর রয়েছে। সেগুলির দিকেও নজর দেওয়া হবে বলে জানানো হয়েছে। পুলিশ সুপারের দফতরে কোনও দরকার থাকলে এতদিন সাধারণ মানুষকে আলিপুরে যেতে হত। নতুন জেলার সিদ্ধান্ত খুশি কাকদ্বীপ আদালতের বার অ্যাসোসিয়েশনের সদস্যরাও।



Something isn't right! Please refresh.

Advertisement