×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

১৮ জানুয়ারি ২০২১ ই-পেপার

বিজেপি-তৃণমূল মারপিট, জখম

নিজস্ব সংবাদদাতা
হাবড়া০২ ফেব্রুয়ারি ২০২০ ২৩:৩৪
—প্রতীকী চিত্র।

—প্রতীকী চিত্র।

বাড়ি বাড়ি গিয়ে নাগরিক সংশোধিত আইন নিয়ে মানুষের মধ্যে প্রচার কর্মসূচি পালন করছিলেন বিজেপির নেতা-কর্মীরা। ওই ঘটনাকে কেন্দ্র করে বিজেপি ও তৃণমূল কর্মীদের মধ্যে মারপিট বাধল। মারপিটে গুরুতর জখম হয়েছেন দু’পক্ষের সাতজন। তাঁদেরকে হাবড়া স্টেট জেনারেল হাসপাতাল ও বারাসত জেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। 

রবিবার সকালে ঘটনাটি ঘটেছে হাবড়ার কুমড়া পঞ্চায়েতের কাশীপুর বাঘাডাঙা এলাকায়। পুলিশ ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে। এলাকায় উত্তেজনা থাকায় ঘটনাস্থলে পুলিশ বাহিনী যায়।    

বিজেপির দাবি, নতুন নাগরিক আইন নিয়ে বিরোধীরা যে প্রচার করছে, তার ফলে মানুষের মধ্যে বিভ্রান্তি তৈরি হয়েছে। ওই বিভ্রান্ত মানুষের মন থেকে দূর করতে শনিবার সকালে দলের নেতা-কর্মীরা বাঘাডাঙা এলাকায় গিয়ে এলাকাবাসীকে বোঝাচ্ছিলেন। বিজেপি নেতা প্রমথ কীর্তনীয়া বলেন, ‘‘শনিবার তৃণমূলের লোকজন আমাদের কর্মসূচি পালনে বাধা দেয়। গোলমাল এড়াতে আমরা চলে আসি। রবিবার সকালে ফের কর্মসূচি পালনে গ্রামে গেলে তৃণমূলের লোকজন আমাদের ইট-রড দিয়ে মারধর করে। আমাদের চারজন জখম হয়েছেন।’’ তৃণমূলের তরফে অভিযোগ অস্বীকার করা হয়েছে। হাবড়ার প্রাক্তন পুরপ্রধান নীলিমেশ দাস বলেন, ‘‘বিজেপির লোকজন  পরিকল্পিত ভাবে আমাদের লোকজনের উপর হামলা করেছে। আমাদের পঞ্চায়েত সদস্য, বুথ সভাপতি-সহ তিনজন জখম হয়েছেন। রাজনৈতিক ভাবে আমরা ঘটনার প্রতিবাদ করব।’’          

Advertisement
Advertisement