×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

০৮ মে ২০২১ ই-পেপার

আত্মহত্যায় প্ররোচনার অভিযোগ, ধৃত স্বামী

নিজস্ব সংবাদদাতা
বাগদা ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮ ০১:২৯
প্রতীকী চিত্র।

প্রতীকী চিত্র।

শ্বশুরবাড়িতে অস্বাভাবিক মৃত্যু হল এক মহিলার। ঘটনাটি ঘটেছে বাগদার কুরুলিয়ায়, শুক্রবার সকালে। মৃতার বাবা বদ্রীনাথ মণ্ডলের অভিযোগের ভিত্তিতে মিনতির স্বামী রামপ্রসাদ ও শ্বশুর বিশ্বনাথ মণ্ডলকে কুরুলিয়ার বাড়ি থেকে গ্রেফতার করা হয়। শনিবার বনগাঁ আদালতে তোলা হলে বিচারক তাদের জেল হেফাজতের নির্দেশ দেন। পুলিশ আত্মহত্যায় প্ররোচনার মামলা দায়ের করে ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে। দেহ ময়নাতদন্তে পাঠানো হয়েছে।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, কুরুলিয়ার রামপ্রসাদ মণ্ডলের সঙ্গে বছর সাতেক আগে নদিয়ার বড়বড়িয়ার মিনতি মণ্ডলের (২৪) বিয়ে হয়। তাঁদের ৪ বছর ও ছ’মাসের দুই শিশুসন্তান রয়েছে। মৃতের পরিবারের অভিযোগ, বিয়েতে তাঁরা ছেলের বাড়ির চাহিদা মতো টাকা দিতে পারেননি বলে বিয়ের পর থেকেই মিনতির উপরে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করা হত। পুলিশের দাবি, মৃতের পরিবারের পক্ষ থেকে থানায় লিখিত অভিযোগে জানানো হয়েছে, শ্বশুরবাড়িতে অত্যাচার সহ্য করতে না পেরে অ্যাসিড খেয়ে আত্মহত্যা করেন মিনতি।

পুলিশ জানিয়েছে, মিনতিকে প্রথমে বাগদা গ্রামীণ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে অবস্থা আশঙ্কাজনক হলে তাঁকে কলকাতার হাসপাতালে ভর্তি করানোর উদ্দেশ্যে নিয়ে যাওয়া হয়। যাওয়ার পথেই তাঁর মৃত্যু হয়।

Advertisement

প্রতিবেশীদের কাছ থেকে ফোনে খবর পেয়ে মিনতির পরিবার বাগদায় এসে পৌঁছয়। মিনতির দিদি উন্নতি মণ্ডল বলেন, ‘‘বোনের উপরে নির্যাতন করা হত। খেতে দেওয়া হত না। ওকে মেরে ওর মুখে অ্যাসিড ঢেলে দেওয়া হয়েছে।’’ মিনতির মা সাবিত্রী মণ্ডল বলেন, ‘‘আমার মেয়েকে মেরে ফেলা হল। ওর শ্বশুরবাড়ির লোকদের শাস্তি চাই।’’

Advertisement