Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৮ অক্টোবর ২০২১ ই-পেপার

Babul Supriyo and Jitendra Tiwari: বাবুল গেলেন তৃণমূলে, বিজেপি-তে যাওয়া জিতেন বলছেন, যে দল ভাল লাগবে, সেটাই তো করবেন

নিজস্ব সংবদাদাতা
আসানসোল ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১ ১৬:২৮
বাবুল সুপ্রিয়কে নিয়ে সংক্ষিপ্ত প্রতিক্রিয়া জিতেন্দ্র তিওয়ারির।

বাবুল সুপ্রিয়কে নিয়ে সংক্ষিপ্ত প্রতিক্রিয়া জিতেন্দ্র তিওয়ারির।
— ফাইল চিত্র

২০১৪ সালের লোকসভা নির্বাচনে বাবুল সুপ্রিয়র হয়ে প্রচারে এসে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী খোদ আসানসোলের ভোটারদের কাছে বলেছিলেন, ‘‘হামে বাবুল চাহিয়ে’’ অর্থাৎ ‘‘আমার বাবুলকে চাই।’’ বাবুলকে পেয়েছিলেন তিনি। কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভায় জায়গাও দিয়েছিলেন। মন্ত্রিত্ব থেকে কিছু দিন আগে সরিয়েও দেন। ফল হিসেবে সাত বছর পর সেই বাবুলকেই ‘পেল’ তৃণমূল। শনিবার বাবুলের ‘ফুল’ পরিবর্তনের খবরে খনি শহর আসানসোলের বিজেপি-র পায়ের তলার মাটি যেন আচমকা সরে গিয়েছে। শুধু তাই নয়, বাবুল জানিয়ে দিয়েছেন, তিনি সাংসদ পদ থেকেও ইস্তফা দেবেন। এ নিয়ে বাবুলের এক সময়ের রাজনৈতিক ‘শত্রু’, বিজেপি নেতা জিতেন্দ্র তিওয়ারির সংক্ষিপ্ত প্রতিক্রিয়া, ‘‘এটা ওঁর ব্যক্তিগত বিষয়।’’

বাবুলের পদ্মফুল ছেড়ে ঘাসফুল ধরা নিয়ে জিতেন বলছেন, ‘‘এটা ওঁর ব্যক্তিগত বিষয়। ওঁর যে দল ভাল লাগবে সেই দল করবেন। এত দিন বিজেপি করেছিলেন। এ বার তৃণমূল করবেন। বিজেপি দলীয় বিবৃতি দিতে পারে। তবে আমি আমার ব্যক্তিগত মতামত জানালাম।’’

ভোটে হেরে সম্প্রতি ১২ বছর আগের পেশায় ফের যোগ দিয়েছেন জিতেন। হাইকোর্টে ওকালতি শুরু করেছেন তিনি। জিতেন তৃণমূলে থাকাকালীন বাবুল ছিলেন ‘শত্রু’ শিবিরে। গত বিধানসভা নির্বাচনের সময়ে জিতেন তৃণমূল ছেড়ে পদ্মশিবিরে যাওয়ায় দু’জনে অবশ্য কিছু কাল যৌথযাপন করেছিলেন বিজেপি-তে। কিন্তু তাতে ছেদ টেনে শনিবার বাবুল যোগ দিয়েছেন তৃণমূলে, যে শিবিরে আগে ছিলেন জিতেন। ঘটনাক্রমে জিতেনের পরবর্তী রাজনৈতিক পদক্ষেপ নিয়েও প্রশ্ন তুলে দিয়েছে। জিতেন অবশ্য বলে দিয়েছেন, ‘‘আমি কোনও দলে যাচ্ছি না। গত কাল নরেন্দ্র মোদীজির জন্মদিনে শুভেচ্ছা জানিয়েছি টুইটারে। আজ শাবানা আজমিকেও জন্মদিনে শুভেচ্ছা জানিয়েছি আমি। এটা ভিতর থেকে আসে। এর সঙ্গে রাজনীতির কোনও যোগাযোগ নেই।’’

Advertisement

বাবুলের দল বদলে স্তম্ভিত পদ্মশিবির। আসানসোলের বিজেপি নেতা কৃষ্ণেন্দু মুখোপাধ্যায় বলেন, ‘‘বাবুল সুপ্রিয়র এই সিদ্ধান্ত মেনে নিতে পারছি না। মন্ত্রিত্ব চলে গেল বলে তিনি বিজেপি-তে থাকবেন না এ ভাবে আমরা দেখিনি। বাবুলদা আমাদের আদর্শ ছিলেন বলে ভেবেছিলাম। কিন্তু তিনি তৃণমূলে যোগ দেওয়ার পর ওঁকে লোভী মনে হচ্ছে।’’ আসানসোলের বিজেপি সাংসদ তৃণমূলে যোগ দেওয়ায় দলের ক্ষতি হবে না বলে মনে করছেন পশ্চিম বর্ধমান জেলার বিজেপি নেত্রী উপাসনা উপাধ্যায়।

বাবুলকে দলে পেয়ে উচ্ছ্বসিত আসানসোলের ঘাসফুল শিবির। বাবুলকে ‘তৃণমূল পরিবার’-এ স্বাগত জানিয়ে শনিবার বার্তা দিয়েছেন রাজ্যের মন্ত্রী তথা তৃণমূল নেতা মলয় ঘটক। তিনি টুইট করেন, ‘বাবুল সুপ্রিয়কে তৃণমূল পরিবারে স্বাগত। আমরা পশ্চিম বর্ধমান জেলা এবং আসানসোলের উন্নয়নে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে কাজ করব। তৃণমূল নেত্রীর হাত শক্তিশালী করার জন্য ধন্যবাদ।’

আরও পড়ুন

Advertisement