×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

১৩ মে ২০২১ ই-পেপার

রাজ্যে ৩৫৬? জল্পনা উস্কে দিলেন দিলীপ, ‘হিম্মত’ থাকলে করে দেখাক: ব্রাত্য

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ২০ নভেম্বর ২০২০ ১৯:১১
দিলীপ ঘোষ, ব্রাত্য বসু, বাবুল সুপ্রিয় এবং সৌগত রায়। ফাইল চিত্র।

দিলীপ ঘোষ, ব্রাত্য বসু, বাবুল সুপ্রিয় এবং সৌগত রায়। ফাইল চিত্র।

রাজ্যে রাষ্ট্রপতি শাসন জারির জল্পনা ঘিরে ফের চড়ল রাজনীতির পারদ। সুজাপুরের বিস্ফোরণ নিয়ে মন্তব্য করতে গিয়ে শুক্রবার রাজ্য বিজেপি-র সভাপতি দিলীপ ঘোষ বলেন, ‘‘অনেকেই মনে করছেন পশ্চিমবঙ্গে ৩৫৬ ধারা জারি হওয়া উচিত!’’ যার পাল্টা তৃণমূল মুখপাত্র তথা রাজ্যের মন্ত্রী ব্রাত্য বসু বললেন, ‘‘হিম্মত থাকলে রাষ্ট্রপতি শাসন জারি করে দেখাক!’’

মালদহের সুজাপুরে প্লাস্টিক কারখানায় বিস্ফোরণের তদন্তে কেন্দ্রীয় এজেন্সির দাবি তুলেছেন দিলীপ। তাঁর কথায়, ‘‘এই বিস্ফোরণ বিচ্ছিন্ন ঘটনা নয়। এই সরকার ক্ষমতায় আসার পর থেকে খাগড়াগড় থেকে ধুলাগড়, নানা রকম ঘটনা ঘটছে।’’ মালদহে এর আগেও নাশকতামূলক ঘটনা ঘটেছে বলে তিনি অভিযোগ করেন। বীরভূমেও একের পর এক বিস্ফোরণের খবর সামনে এসেছে বলে দিলীপ মনে করান। তাঁর মতে, রাজ্য প্রশাসনের তত্ত্বাবধানে কোনওটিরই নিরপেক্ষ তদন্ত সম্ভব নয়।

রাজ্য বিজেপি সভাপতির আরও বক্তব্য, ‘‘তৃণমূলের শাসনে অবাধ নির্বাচন কিছুতেই সম্ভব নয়।’’ ফলে এই সরকারকে সরিয়ে দিয়ে রাষ্ট্রপতি শাসনে ভোট করানোর দাবি জোরদার হচ্ছে বলে তাঁর দাবি। তবে পাশাপাশিই দিলীপ বলেন, বিজেপি নীতিগত ভাবে ৩৫৬ ধারা যখন-তখন প্রয়োগের পক্ষে নয়। কোনও নির্বাচিত সরকারকে ভেঙে দেওয়ার পথে বিজেপি হাঁটতে চায় না, বরং ফের নির্বাচনের মাধ্যমেই সেই সরকারকে সরাতে চায়। কিন্তু এ কথা বলেও তাঁর মন্তব্য, ‘‘আমরা বললাম কি বললাম না, তার উপর রাষ্ট্রপতি শাসন জারি হওয়া নির্ভর করছে না। আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি, রাজ্যপালের রিপোর্ট, রাষ্ট্রপতির সিদ্ধান্ত— এ সবের উপরেই বিষয়টি নির্ভর করছে।’’

আরও পড়ুন: নেতাজির মতোই কোণঠাসা করার চেষ্টা বাঙালি মমতাকে: ব্রাত্য

Advertisement

প্রসঙ্গত, দিলীপের আগে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী তথা আসানসোলের বিজেপি সাংসদ বাবুল সুপ্রিয়ও বলেছিলেন, ‘‘গত ২-৩ বছরে ১৩০-এর বেশি বিজেপি কর্মী পশ্চিমবঙ্গে খুন হয়েছেন। যদি এ ভাবেই চলতে থাকে, তবে সংবিধানে ব্যবস্থা রয়েছে। সেইমতো পদক্ষেপ করা হবে।’’ বাবুলের কথার পাল্টা তৃণমূল সাংসদ সৌগত রায় বলেন, ‘‘বার বার রাষ্ট্রপতি শাসনের কথা বলে আসলে তৃণমূলের কর্মীদের ভয় দেখানোর চেষ্টা হচ্ছে। ভয় পাওয়ার কোনও কারণ নেই। রাজ্যে রাষ্ট্রপতি শাসন কিছুতেই জারি হবে না।’’

Advertisement