Advertisement
০৬ ডিসেম্বর ২০২২
West Bengal News

লাভপুরে বিজেপি কর্মীর ঝুলন্ত দেহ, ‘সুইসাইড কেস’, বললেন অনুব্রত, তৃণমূলের দিকে আঙুল বিজেপির

রামকৃষ্ণ রায় বলেন, ‘‘এটা আত্মহত্যার ঘটনা কিছুতেই নয়। আত্মহত্যা বলে চালানোর চেষ্টা হচ্ছে।’’ অনুব্রতর দাবি, ‘‘লাভপুরে যেটা ঘটেছে, সেটা সুইসাইড কেস।’’

লাভপুরে গাছে বিজেপি কর্মীর দেহ উদ্ধার ঘিরে রাজনৈতিক চাপানউতর। গ্রাফিক: শৌভিক দেবনাথ

লাভপুরে গাছে বিজেপি কর্মীর দেহ উদ্ধার ঘিরে রাজনৈতিক চাপানউতর। গ্রাফিক: শৌভিক দেবনাথ

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা শেষ আপডেট: ২২ অক্টোবর ২০১৮ ১৩:১৫
Share: Save:

রবিবারই খয়রাশোলে তৃণমূল নেতাকে কুপিয়ে ও গুলি করে খুনের চেষ্টা। রাতেই লাভপুরে বিজেপি কর্মীকে খুন করে গাছে ঝুলিয়ে দেওয়ার অভিযোগ। দুই ঘটনা ঘিরে ফের উত্তপ্ত বীরভূমের রাজনৈতিক পরিমণ্ডল। তৃণমূলের লোকজনই খুন করে গাছে ঝুলিয়ে দিয়েছে বলে অভিযোগ তুলে আন্দোলনে নামার হুঁশিয়ারি দিয়েছে বিজেপি। অন্য দিকে, তৃণমূলের বীরভূম জেলা সভাপতি অনুব্রত মণ্ডলের দাবি, ‘‘খুন নয়, লাভপুরের বিজেপি কর্মী আত্মহত্যাই করেছেন।’’

Advertisement

রবিবার দুপুরে বাইকে বাড়ি ফেরার পথে আক্রান্ত হন তৃণমূল খয়রাশোল ব্লক সভাপতি দীপক ঘোষ। তাঁর বাইক আটকে কুপিয়ে ও গুলি করে খুনের চেষ্টা করে দুষ্কৃতীরা। ওই ঘটনায় বিজেপির দিকে অভিযোগের আঙুল তুলে তৃণমূলের বীরভূম জেলা সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল হুমকি দেন, ‘‘আমি কাউকে ছেড়ে কথা বলব না।’’

এর পর রাতেই লাভপুরের দাঁড়কা গ্রামে গাছে ঝুলন্ত অবস্থায় উদ্ধার হয় বিজেপি কর্মী তাপস বাগদীর দেহ। ঘটনার পিছনে তৃণমূলের হাত রয়েছে বলে অভিযোগ তুলেছেন বিজেপির জেলা সভাপতি রামকৃষ্ণ রায়। তিনি বলেন, ‘‘এটা আত্মহত্যার ঘটনা কিছুতেই নয়। আত্মহত্যা বলে চালানোর চেষ্টা হচ্ছে। আমাদের যে কর্মীর ঝুলন্ত দেহ পাওয়া গিয়েছে, তাঁর পারিবারিক বা ব্যক্তিগত জীবনে এমন কোনও পরিস্থিতিই ছিল না, যার জন্য তিনি আত্মহত্যা করতে পারেন।’’

আরও পড়ুন: ফের গাছে ঝুলন্ত বিজেপি কর্মীর দেহ উদ্ধার, এ বার বীরভূমে, অভিযোগ খুনের

Advertisement

রামকৃষ্ণবাবুর দাবি, ‘‘আসলে বীরভূমে আমাদের সংগঠন যত শক্ত হচ্ছে, তৃণমূল ততই আতঙ্কিত হয়ে পড়ছে। আমাদের কর্মীদের খুন করে বিজেপির সংগঠন ভাঙার চেষ্টা চলছে।’’ তিনি জানিয়েছেন, পরিবারের লোকজনকে বলা হয়েছে পুলিশে এফআইআর করতে। দল ওই পরিবারের পাশে থাকবে।

অনুব্রত মণ্ডল অবশ্য ঘটনার সঙ্গে তৃণমূল এবং রাজনীতির যোগই উড়িয়ে দিয়েছেন। তাঁর দাবি, ‘‘লাভপুরে যেটা ঘটেছে, সেটা সুইসাইড কেস। ও এর আগেও দু’বার আত্মহত্যা করতে গিয়েছিল। গতকালই ওঁর বাড়ির লোকজন স্বীকার করে নিয়েছেন এটা আত্মহত্যার ঘটনা। এর সঙ্গে রাজনীতির কোনও যোগ নেই।’’

আরও পড়ুন: ‘ওরা কিন্তু ভুল করছে, আমি কাউকে ছেড়ে কথা বলব না’, শাসানি অনুব্রতর

অন্য দিকে বিজেপির মুখপাত্র তথা দলের রাজ্য সাধারণ সম্পাদক সায়ন্তন বসু বলেন, ‘‘যে ভাবে ত্রিলোচন মাহাতোকে খুন করা হয়েছিল, এই খুনের পিছনেও তৃণমূল রয়েছে বলেই আমাদের দৃঢ় বিশ্বাস। এ নিয়ে আমরা বৃহত্তর আন্দোলনে নামব।’’

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.