Advertisement
০৩ মার্চ ২০২৪
Kunal Ghosh

BJP & TMC: লকেটের তৃণমূল যোগের জল্পনা গড়াল টুইট-যুদ্ধে, লকেটের জবাবি বক্তব্যকেও নিশানা কুণালের

ভবানীপুরে রাজ্য বিজেপি সর্বশক্তি দিয়ে ঝাঁপিয়েছে। এসেছেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রীরাও। সেখানে লকেটের অনুপস্থিতি নিয়ে বিজেপি-তেও প্রশ্ন ওঠে।

কুণাল ঘোষ ও লকেট চট্টোপাধ্যায়ের মধ্যে চলছে টুইট-যুদ্ধ।

কুণাল ঘোষ ও লকেট চট্টোপাধ্যায়ের মধ্যে চলছে টুইট-যুদ্ধ। নিজস্ব চিত্র।

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা শেষ আপডেট: ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১ ১৪:০৬
Share: Save:

বিজেপি সাংসদ লকেট চট্টোপাধ্যায় কি এ বার দলবদলে তৃণমূলে যাবেন? সোমবার সকালে রাজ্য তৃণমূলের সাধারণ সম্পাদক কুণাল ঘোষের টুইট থেকে এমন জল্পনা শুরু হয়। ভবানীপুর উপনির্বাচনে গেরুয়া শিবিরের হয়ে লকেটকে প্রচারে না নামার জন্য ধন্যবাদও জানান কুণাল। এর পরে লকেটের প্রতিক্রিয়া জানার চেষ্টা করা হলেও তিনি ফোনে সাড়া দেননি। তবে দুপুরে জবাব দিলেন কুণালকে। আগামী দিনে তিনি তৃণমূলে যোগ দেবেন কি না সে প্রশ্ন এড়িয়ে কুণালের উদ্দেশে লকেট লেখেন, ‘আপনি বরং, ভবানীপুরে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যাতে না হারেন সে দিকে নজর দিন।’ পর মুহূর্তেই জবাব দেন কুণাল। এ বার তিনি লেখেন, ‘বুঝেছি, আপনি দলের হয়ে কথা বলছেন।’

সদ্যই আসানসোলের বিজেপি সাংসদ তথা প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয় তৃণমূলে যোগ দিয়েছেন। এর পরে পরেই রাজ্য বিজেপি-র সভাপতি পদে দিলীপ ঘোষের জায়গায় এসেছেন বালুরঘাটের সাংসদ সুকান্ত মজুমদার। মনে করা হচ্ছে, বিজেপি-তে আরও কিছু সাংগঠনিক রদবদল হতে পারে। রাজ্যের অন্যতম সাধারণ সম্পাদক লকেটকে সম্প্রতি বিজেপি-র কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব উত্তরাখণ্ড বিধানসভা নির্বাচনের আগে সহ-পর্যবেক্ষকের দায়িত্ব দিয়েছেন। এ সবের মধ্যেও লকেট যে ফুলবদল করতে পারেন এমন জল্পনাও তৈরি হয়।

ভবানীপুর উপনির্বাচনে রাজ্য বিজেপি শুধু সর্বশক্তি দিয়ে ঝাঁপায়নি কেন্দ্রীয় মন্ত্রীরাও প্রচারে এসেছেন। সেখানে লকেটের অনুপস্থিতি নিয়ে বিজেপি-র মধ্যেও নানা প্রশ্ন তৈরি হয়। তবে দলের একাংশের বক্তব্য, সংসদের বিভিন্ন কমিটির বৈঠক এবং উত্তরখণ্ড নির্বাচনের প্রস্তুতি নিয়েই ব্যস্ত রয়েছেন লকেট। এমন প্রেক্ষাপটেই সোমবার কুণাল টুইটারে লেখেন, ‘ভবানীপুরে প্রচারে না আসায় তারকা প্রচারক লকেট চট্টোপাধ্যায়কে ধন্যবাদ ও শুভেচ্ছা। বিজেপি-র অনেক অনুরোধ সত্ত্বেও আপনি প্রচার করেননি। আপনি যেখানেই থাকুন বন্ধু হিসাবে আপনার সাফল্য কামনা করি।’ এর পরেই জল্পনা বাড়িয়ে কুণাল লেখেন, ‘পৃথিবী খুব ছোট। আশা করছি আপনার রাজনীতি শুরু করার দিনগুলি আবার ফিরে আসুক।’

বিজেপি-র হয়ে সাংসদ পদে জিতলেও পদ্মের টিকিটে দু’বার বিধানসভা নির্বাচনে পরাজিত হন লকেট। তবে রাজনীতিতে তাঁর সূচনা হয় তৃণমূলেই। সেই পুরনো দলে তিনি ফিরে যাবেন কি না তা নিয়ে জল্পনাতেই নতুন ইন্ধন জুগিয়েছেন কুণাল। জবাব দিলেন, লকেট। কিন্তু তাতেও তাঁর আগামী রাজনৈতিক পদক্ষেপ নিয়ে খুব স্পষ্ট করে কিছু বলেননি তিনি। ভবানীপুর নিয়ে কটাক্ষ করেছেন। এর জবাবে কুণাল টুইটে লেখেন, ‘ভাবতে হবে না। মমতাদি বড় ভোটের ব্যবধানে জিতবেন। কিন্তু তবুও আপনাকে ধন্যবাদ যে, আপনি জবাবেও প্রার্থীর নাম উল্লেখ করেননি।’ এখানেই না থেমে কুণাল লকেটকে ‘সাধুবাদ’ জানিয়ে হিন্দিতে লেখেন, ‘কঁহি পে নিগাহে, কঁহি পে নিশানে’। বাংলা অর্থে ‘দৃষ্টি কোথাও, নজর অন্য কোথাও’।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement

Share this article

CLOSE