Advertisement
০২ অক্টোবর ২০২২
BJP

BJP: কাশীতে মোদী, বাংলায় সুকান্ত-দিলীপ-শুভেন্দু, সোমে রাজ্য জুড়ে গেরুয়া শিবিরের শিব-সাধনা

শুধু সুকান্ত-দিলীপ-শুভেন্দুই নয়, রাজ্য বিজেপি-র অন্যান্য নেতা, সাংসদ, বিধায়করাও সোমবার নিজের নিজের এলাকার শিব মন্দিরে যাবেন।

বিজেপি-র এই কর্মসূচির নাম— ‘দিব্য কাশী, ভব্য কাশী’।

বিজেপি-র এই কর্মসূচির নাম— ‘দিব্য কাশী, ভব্য কাশী’।

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা শেষ আপডেট: ১২ ডিসেম্বর ২০২১ ১৫:১২
Share: Save:

সোমবার দেশজুড়ে ‘দিব্য কাশী, ভব্য কাশী’ কর্মসূচি নিয়েছে বিজেপি। নিজের লোকসভা কেন্দ্র বারাণসীতে নবনির্মিত কাশী বিশ্বনাথ ধামের দ্বারোদ্ঘাটন করবেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। আর সেই দিনটাকে স্মরণীয় করে রাখতে রাজ্যে রাজ্যে সোমবার শিব-সাধনা করবে গেরুয়া শিবির। পশ্চিমবঙ্গেও সেই কর্মসূচি নিয়েছে বিজেপি। জানা গিয়েছে, সোমবার তারকেশ্বরে শিবের পুজো দেবেন রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদার। একই সময়ে কলকাতায় নিমতলা শ্মশান ঘাটের কাছে ভূতনাথ মন্দিরে পুজো দেবেন প্রাক্তন রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। আর বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারীর থাকার কথা বর্ধমানের ১০৮ শিবমন্দিরে।

শুধু সুকান্ত-দিলীপ-শুভেন্দুই নয়, রাজ্য বিজেপি-র অন্যান্য নেতা, সাংসদ, বিধায়করাও সোমবার নিজের নিজের এলাকার শিব মন্দিরে যাবেন। তার আগে রবিবারও বহু জায়গায় মন্দির চত্বর পরিষ্কারের জন্য ‘স্বচ্ছতা অভিযান’ কর্মসূচিও নিয়েছে বিজেপি। বিজেপি সূত্রে জানা গিয়েছে, দল যা ঠিক করেছে তাতে দলের রাজ্য মুখপাত্র বর্ধমান জেলার অম্বিকা কালনায় একটি শিবমন্দিরে পুজো দিতে যাবেন। মহিলা মোর্চার রাজ্য সভানেত্রী তথা বিধায়ক অগ্নিমিত্রা পালের থাকার কথা কলকাতায় কাশীপুরের সর্বমঙ্গলা ঘাটে।

দেশের বৃহত্তম রাজ্য উত্তরপ্রদেশে বিধানসভা নির্বাচনের ঢাকে কাঠি পড়ে গিয়েছে। বিজেপি-সহ সব দলই শুরু করে দিয়েছে প্রস্তুতি। যোগী আদিত্যনাথ সরকারের আমলে কাশীর বিশ্বনাথ মন্দিরের সংস্কারের কাজ শুরু হয়। বিধানসভা নির্বাচনের মুখে সেই মন্দিরের দ্বারোদ্ঘাটন করবেন স্বয়ং প্রধানমন্ত্রী। উত্তরপ্রদেশে হিন্দু ভোট একত্রিত করতেই এই কর্মসূচি বলে রাজনৈতিক মহলের বক্তব্য। অতীতে রাম জন্মভূমি নিয়ে দেশব্যাপী অনেক কর্মসূচির নেয় বিজেপি। তার সুফলও গেরুয়া শিবির পেয়েছে বলে মনে করা হয়। রামের পরে এ বার শিবের নামে ফের ভোট বৈতরণী পারের চেষ্টা। কিন্তু উত্তরপ্রদেশের ভোটের আগে কর্মসূচি বাংলাতেও কেন? গেরুয়া শিবিরের রাজ্য নেতাদের বক্তব্য, বিজেপি একটি সর্বভারতীয় দল। দেশের সব রাজ্যেই যে দলের শক্তি রয়েছে তার প্রদর্শন হবে সোমবার। একই সঙ্গে ভারতীয় সংস্কৃতির প্রতি বিজেপি-র যে মনোভাব তা-ও স্পষ্ট হবে।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.