Advertisement
০৫ ডিসেম্বর ২০২২

বিভাজন রুখতে আন্দোলন চায় কংগ্রেস

এ রাজ্যে ক্রমশ বিজেপির উত্থানের নেপথ্যে তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়েরই ভূমিকা ছিল বলে এ দিনের অবস্থান-মঞ্চ থেকে কংগ্রেস নেতারা অভিযোগ করেন।

প্রতীকী ছবি।

প্রতীকী ছবি।

নিজস্ব সংবাদদাতা
শেষ আপডেট: ১৫ জুন ২০১৯ ০৪:০২
Share: Save:

রাজ্যে বিভাজন ও মেরুকরণের প্রতিবাদে লাগাতার আন্দোলনে নামার কথা বললেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি সোমেন মিত্র। সেই আন্দোলনে রাজ্যের মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে বাংলার সংস্কৃতি ও ঐতিহ্য রক্ষায় বাড়তি দায়িত্ব পালনের পরামর্শও তিনি দিয়েছেন কংগ্রেস কর্মীদের। রাজ্যের অস্থির পরিস্থিতি এবং বিভাজন-রাজনীতির প্রতিবাদে শুক্রবার দিনভর গাঁধীমূর্তির পাদদেশে অবস্থান-বিক্ষোভ ছিল কংগ্রেসের। সেই মঞ্চেই সোমেনবাবু বলেন, ‘‘আমরা ক্ষমতায় নেই ঠিকই। কিন্তু অশান্ত বাংলাকে শান্ত করার দায়িত্ব আমাদেরই নিতে হবে। সে জন্য বৃহত্তর আন্দোলনে যেতে হবে আমাদের।’’ আজ, শনিবার প্রদেশ কংগ্রেসের কর্মসমিতির বৈঠক হওয়ার কথা। সেখানে আন্দোলন কর্মসূচি নিয়ে সিদ্ধান্ত হবে বলে তিনি জানান।

Advertisement

তবে এ রাজ্যে ক্রমশ বিজেপির উত্থানের নেপথ্যে তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়েরই ভূমিকা ছিল বলে এ দিনের অবস্থান-মঞ্চ থেকে কংগ্রেস নেতারা অভিযোগ করেন। কংগ্রেস সাংসদ প্রদীপ ভট্টাচার্য সরাসরিই মুখ্যমন্ত্রীকে আক্রমণ করে বলেন, ‘‘আপনিই তো বিজেপিকে এ রাজ্যে এনেছেন। ইঁদুরকে বাঘ তৈরি করেছেন আপনিই। সেই বাঘই আজ আপনাকে খেতে চাইছে। এই বাঘকে আপনি কোনও ভাবেই আর ইঁদুর তৈরি করে দিতে পারবেন না।’’

রাজ্যে তৃণমূল আর বিজেপির দ্বৈরথে বিভাজনের রাজনীতি মাথাচাড়া দিচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন সোমেনবাবু। এই পরিস্থিতি থেকে উত্তরণের জন্য আন্দোলনই একমাত্র পথ বলে তিনি এ দিন কর্মীদের পরামর্শ দেন। ‘নিরাপত্তার অভাব’-এর আশঙ্কায় অবস্থানে যাননি বিরোধী দলনেতা আব্দুল মান্নান।

Advertisement
(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.