×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

০৭ মার্চ ২০২১ ই-পেপার

‘বেসরকারি হাসপাতাল মানবিক সেবা দিক’

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ২০ মার্চ ২০২০ ০৫:৪৫
নবান্নের বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী। ছবি: দীপঙ্কর মজুমদার

নবান্নের বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী। ছবি: দীপঙ্কর মজুমদার

করোনা মোকাবিলায় এ বার বেসরকারি হাসপাতালগুলিকেও সরকারের সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে চলার আহ্বান জানালেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বৃহস্পতিবার নবান্ন সভাঘরে ওই সব হাসপাতালের কর্তাদের সঙ্গে বৈঠকে বসেন মুখ্যমন্ত্রী।

বৈঠকে মমতা বলেন, ‘‘আক্রান্তের সংস্পর্শে এলে করোনা হচ্ছে। এখন যেমন মানুষের ছোঁয়াচ মানুষ এড়িয়ে চলবে, তেমনই মানবিকতাও দেখাতে হবে।’’ বেসরকারি হাসপাতালের উদ্দেশে মুখ্যমন্ত্রীর আহ্বান, ‘‘ব্যবসা করার সময় এটা নয়। এই সঙ্কটে সরকারের সঙ্গে সহযোগিতা করতে হবে। মানবিক হয়ে পরিষেবা দিতে হবে।’’ মুখ্যমন্ত্রী জানান, সরকার বেসরকারি হাসপাতালকে পিপিই পোশাক, থার্মাল গান, মাস্ক ইত্যাদি দেবে। পাশাপাশি সরকারও ওই সব হাসপাতালের থেকে সহযোগিতা চেয়েছে। মুখ্যমন্ত্রীর আহ্বান, এখন ৩০০ ভেন্টিলেটর লাগবে। বেসরকারি হাসপাতালগুলি চাইলে তা সরকারকে স্পনসর করতে পারে। রাজ্য জরুরি চিকিৎসা তহবিল তৈরি করছে। বেসরকারি হাসপাতাল ও কর্পোরেট সংস্থা সাহায্য করতে পারে সেখানেও।

মুখ্যমন্ত্রী জানান, করোনার প্রেক্ষিতের রাজ্যের স্বাস্থ্য পরিষেবার সঙ্গে যুক্ত সকলের পাঁচ লক্ষ টাকার বিমা করে দেওয়া হয়েছে। বেসরকারি ক্ষেত্রেও এই সুবিধা মিলবে। তবে করোনা-রোগী ভর্তি হলে টাকার জন্য চাপ দেওয়া যাবে না বলে বুঝিয়ে দেন মুখ্যমন্ত্রী। জানতে চাওয়া হয়, সরকার কি বেসরকারি হাসপাতালে করোনা-রোগীদের বিনা পয়সায় চিকিৎসার ব্যবস্থা করবে? মুখ্যমন্ত্রী জানান, সরকার বিষয়টি দেখবে। সরকারের সঙ্গে সহযোগিতা করবে বলে জানায় বেসরকারি হাসপাতালগুলিও। তাদের প্রতিনিধিরা জানান, কমবেশি সব হাসপাতালেই আইসোলেশন শয্যা তৈরি আছে। তবে আইসিএমআর কোনও নির্দেশিকা না-দেওয়ায় এখনও বেসরকারি হাসপাতালগুলি করোনার পরীক্ষা করতে পারছে না।

Advertisement

মুখ্যমন্ত্রী জানান, আইসিএমআরের সঙ্গে রাজ্যের মুখ্যসচিব যোগাযোগ রাখছেন। দ্রুত নির্দেশিকা বেরিয়ে যাবে। ফলে পরীক্ষাও করানো যাবে।

Advertisement