×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

২৫ জুন ২০২১ ই-পেপার

রাজ্যে দৈনিক সংক্রমণ সর্বোচ্চ, বাড়ল সংক্রমণের হারও

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০ ২২:১৩
গ্রাফিক: শৌভিক দেবনাথ

গ্রাফিক: শৌভিক দেবনাথ

এক দিনে সর্বোচ্চ করোনা সংক্রমণের নতুন গণ্ডি স্পর্শ করে ফেলল এ রাজ্য। তার জেরে বাড়ল সংক্রমণের হারও। সব মিলিয়ে এ রাজ্যে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা এখন আড়াই লক্ষের কিছুটা বেশি। তবে দৈনিক সংক্রমণ এবং দৈনিক সুস্থের সংখ্যার মধ্যে ব্যবধানের চিত্রটা গত কয়েক দিনের মতো একই রয়েছে। এ দিন অবশ্য মৃতের সংখ্যা গত কালকের থেকে সামান্য কম।

বুধবার রাতে প্রকাশিত স্বাস্থ্য দফতরের বুলেটিন অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ৩ হাজার ২৮১ জন যা এখনও অবধি সর্বোচ্চ। এর আগে গত ২৩ অগস্ট দৈনিক সংক্রমণের সংখ্যাটা ছিল ৩ হাজার ২৭৪। সেই মাইলস্টোন ছাপিয়ে গিয়েছে এ দিন। সুস্থ হয়ে উঠেছেন ২ হাজার ৯৫৪ জন। সব মিলিয়ে রাজ্যে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ২ লক্ষ ৫৭ হাজার ৪৯। এর মধ্যে এ পর্যন্ত সুস্থ হয়ে গিয়েছেন ২ লক্ষ ২৫ হাজার ৭৫৯ জন। রাজ্যে এখন সক্রিয় করোনা রোগী রয়েছেন ২৬ হাজার ৩৩২ জন।

Advertisement

গত ২৭ অগস্ট থেকেই দৈনিক সুস্থতার হার থেকেছে ৮০ শতাংশের উপরে এবং ক্রমশই তা ঊর্ধ্বমুখী হয়েছে। এ দিনও সেই ধারা অব্যাহত রয়েছে। স্বাস্থ্য দফতর জানিয়েছে, এ দিন সুস্থতার হার বেড়ে হয়েছে ৮৭.৮৩ শতাংশ। গত কালকের থেকে তা সামান্য বেশি। এই হার যত ঊর্ধ্বমুখী হবে, ততই স্বস্তিদায়ক।

(গ্রাফের উপর হোভার বা টাচ করলে প্রত্যেক দিনের পরিসংখ্যান দেখতে পাবেন।)

আরও পড়ুন: বাবরি মসজিদ ধ্বংস মামলায় আডবাণী-জোশীরা সবাই বেকসুর

দৈনিক সংক্রমণের সংখ্যা বাড়ায় তার হারও বেড়েছে এ দিন। রাজ্যে দৈনিক সংক্রমণের হার ৭.৫০ শতাংশে পৌঁছে গিয়েছে। প্রতি দিন যত জনের কোভিড-টেস্ট করা হচ্ছে এবং তার মধ্যে প্রতি ১০০ জনে যত সংখ্যকের কোভিড-রিপোর্ট পজিটিভ আসছে, তাকেই বলা হয় পজিটিভিটি রেট বা সংক্রমণের হার। সংক্রমণের হার কমলে, তা স্বস্তিদায়ক।

আরও পড়ুন:দৈনিক সংক্রমণ ফের ৮০ হাজার পার, মোট আক্রান্তের ৮৩ শতাংশই সুস্থ

রাজ্যে করোনায় মৃতের সংখ্যা পাঁচ হাজার ছুঁতে চলল। গতকাল মৃত্যু ছিল সর্বোচ্চ, ৬২ জন। এ দিন অবশ্য তার থেকে দু’ধাপ আগে এসে থেমেছে মৃত্যুর গ্রাফ। আজ মারা গিয়েছেন ৫৯ জন। সব মিলিয়ে রাজ্যে মৃতের সংখ্যা ৪ হাজার ৯৫৮। আজ উত্তর ২৪ পরগনায় ১৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। কলকাতায় প্রাণ হারিয়েছেন ১১ জন। সব মিলিয়ে দুই জেলাতেই ২৯ জন মারা গিয়েছেন, যা এ দিনের মোট মৃতের সংখ্যার অর্ধেকের সামান্য কম। এ ছাড়া হাওড়ায় ৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। দক্ষিণ ২৪ পরগনা, পশ্চিম বর্ধমান ও দার্জিলিঙের ৪ জন করে এবং হুগলি ও নদিয়ায় ৩ জন করে প্রাণ হারিয়েছেন।

ফের কলকাতায় সংক্রমণ বাড়ছে। এ দিনও সংক্রমণের নিরিখে উত্তর ২৪ পরগনাকে টপকে গিয়েছে কলকাতা। মহানগরীতে নতুন করে করোনা আক্রান্ত ৬৭২ জন। উত্তর ২৪ পরগনায় নতুন করে সংক্রমিত হয়েছেন ৬৬১ জন। দফতরের বুলেটিন অনুযায়ী, দক্ষিণ ২৪ পরগনা (২৭২), পশ্চিম মেদিনীপুর (১২০), পূর্ব মেদিনীপুর (১১৬), হাওড়া (১৯৮), হুগলি (১৬০), বাঁকুড়া (৮১) এবং নদিয়া (১১৬) জেলায় সংক্রমণের চিত্রটা এমন। এ ছাড়া দার্জিলিঙে (৭৯), কোচবিহার (৮৮) আলিপুরদুয়ার (৫৬), জলপাইগুড়ি (৮৭) এবং কোচবিহার (৮৭)-এ করোনা সংক্রমণের চেহারা দক্ষিণবঙ্গের তুলনায় কিছুটা ভাল।

(জরুরি ঘোষণা: কোভিড-১৯ আক্রান্ত রোগীদের জন্য কয়েকটি বিশেষ হেল্পলাইন চালু করেছে পশ্চিমবঙ্গ সরকার। এই হেল্পলাইন নম্বরগুলিতে ফোন করলে অ্যাম্বুল্যান্স বা টেলিমেডিসিন সংক্রান্ত পরিষেবা নিয়ে সহায়তা মিলবে। পাশাপাশি থাকছে একটি সার্বিক হেল্পলাইন নম্বরও।

• সার্বিক হেল্পলাইন নম্বর: ১৮০০ ৩১৩ ৪৪৪ ২২২
• টেলিমেডিসিন সংক্রান্ত হেল্পলাইন নম্বর: ০৩৩-২৩৫৭৬০০১
• কোভিড-১৯ আক্রান্তদের অ্যাম্বুল্যান্স পরিষেবা সংক্রান্ত হেল্পলাইন নম্বর: ০৩৩-৪০৯০২৯২)

Advertisement