×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

২৬ জানুয়ারি ২০২১ ই-পেপার

ইছাপুরে কাউন্সিলরের দেওরকে মাথায় গুলি, অবস্থা আশঙ্কাজনক

নিজস্ব সংবাদদাতা
ইছাপুর০২ ডিসেম্বর ২০২০ ১৮:২১
বুধবার দুপুরে বাড়ির খুব কাছেই গুলিবিদ্ধ হন গোবিন্দ ওরফে নেপাল। —নিজস্ব চিত্র।

বুধবার দুপুরে বাড়ির খুব কাছেই গুলিবিদ্ধ হন গোবিন্দ ওরফে নেপাল। —নিজস্ব চিত্র।

উত্তর ব্যারাকপুর পুরসভার এক কাউন্সিলরের দেওর গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। উত্তর ২৪ পরগনার ইছাপুরের মায়াপল্লির বাসিন্দা গোবিন্দ দাস আশঙ্কাজনক অবস্থায় এই মুহূর্তে কলকাতার একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি। পারিবারিক সূত্রে জানা গিয়েছে, তাঁর মাথায় গুলি লেগেছে। গোবিন্দর বৌদি উত্তর ব্যারাকপুর পুরসভার কাউন্সিলর।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, বুধবার দুপুরে বাড়ির খুব কাছেই গুলিবিদ্ধ হন গোবিন্দ ওরফে নেপাল। তার আগে বাইকে করে তিন জন এসেছিলেন। খুব কাছ থেকে গোবিন্দর মাথায় গুলি করা হয়। গোবিন্দ যেখানে দাঁড়িয়ে ছিলেন, তার খানিকটা দূরে একটা গাড়ি ছিল। তার চালকও গুলিবিদ্ধ হন। দু’টি ঘটনার সঙ্গে কোনও সংযোগ আছে কি না তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ।

গুলিবিদ্ধ হওয়ার পর গোবিন্দকে প্রথমে ব্যারাকপুর বিএন বসু মহাকুমা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। কিন্তু সেখান থেকে তাঁকে রেফার করে দেওয়া হয় কলকাতায়। এই মুহূর্তে গোবিন্দ কলকাতার একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। হাসপাতাল সূত্রে জানা গিয়েছে, তাঁর অবস্থা আশঙ্কাজনক। গুলিবিদ্ধ চালককে বিএন বসু হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

Advertisement

আরও পড়ুন: ‘কিছুই মেটেনি’! সৌগতকে কড়া বার্তা শুভেন্দুর, উগরে দিলেন ক্ষোভ

আরও পড়ুন: বাংলায় অবাঙালিদের অবদানই বেশি: দিলীপের মন্তব্য ঘিরে ফের বাগ্‌যুদ্ধ

মায়াপল্লি এলাকার গোবিন্দ এবং গোপাল দুই ভাইয়ের পরিচিতি আছে। তাঁরা দু’জনেই বহু বার বিভিন্ন মামলায় জেলও খেটেছেন। পরবর্তী কালে গোপালের মৃত্যুর পর তাঁর স্ত্রী নির্দল প্রার্থী হিসাবে এলাকার কাউন্সিলর হন। পরে তিনি তৃণমূলে যোগ দেন। গোবিন্দ অবশ্য কোনও রাজনৈতিক দলের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন না। তাঁকে কে বা কারা কেন গুলি করল, তা খতিয়ে দেখছে নোয়াপাড়া থানার পুলিশ।

Advertisement