Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৪ জানুয়ারি ২০২২ ই-পেপার

টিকা পেতে সিরাম ইনস্টিটিউটেও মেল করেছিলেন দেবাঞ্জন, তলব ১০ কর্মীকে

নিজেকে আইএএস অফিসার বলে দাবির পাশাপাশি কলকাতা পুরসভা, পূর্ত দফতর-সহ একাধিক দফতরের ভুয়ো স্ট্যাম্প ব্যবহার করতেন তিনি।

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ২৭ জুন ২০২১ ১৮:১৭


নিজস্ব চিত্র

ভুয়ো টিকা কাণ্ডে নয়া মোড়। কোভিড টিকা পেতে সিরাম ইনস্টিটিউটে ইমেল করেছিলেন দেবাঞ্জন দেব। এমনটাই জানতে পারছেন তদন্তকারীরা। তবে তা আদৌ সত্যি কি না তা খতিয়ে দেখছেন তাঁরা। টিকা প্রতারণা-কাণ্ডে দেবাঞ্জনের অফিসের ১০ জন প্রাক্তন ও বর্তমান কর্মীকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তলব করা হয়েছে।

তদন্তকারী সংস্থা সূত্রে খবর, কোভিশিল্ড নির্মাতা সংস্থা সিরাম ইনস্টিটিউটকে ইমেল করেছিলেন দেবাঞ্জন। টিকা চেয়েই তাঁর সেই ইমেল বলে দাবি করা হচ্ছে। যদিও তা সঠিক কি না তা যাচাই করে দেখছেন তদন্তকারীরা। আবার ইমেল সঠিক হলেও দেবাঞ্জনকে সিরাম ইনস্টিটিউট টিকা দিয়েছিল কি না, সেই প্রমাণও খতিয়ে দেখা হচ্ছে। তবে এখনও পর্যন্ত দেবাঞ্জন দু’টি টিকা কেন্দ্র খুলেছিলেন বলে জানা গিয়েছে। একটি কসবায় এবং অন্যটি সিটি কলেজে। কসবায় যে টিকা দেওয়া হয়েছিল তার নমুনা পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছে। সেই রিপোর্ট এখনও হাতে আসেনি তদন্তকারীদের। অন্য দিকে, দেবাঞ্জনের নথি থেকে পাওয়া গিয়েছে তিনি কলকাতা পুরসভার নামে ইমেল অ্যাকাউন্ট খুলেছিলেন। ইমেল মোতাবেক সেখানে তিনি নিজেকে ম্যানেজার বলে দাবি করেছেন। ওই ইমেল আইডি থেকেই তিনি বিভিন্ন অবৈধ কাজ করেছিলেন বলে অভিযোগ।

দেবাঞ্জন দীর্ঘদিন ধরে ভুয়ো পরিচয় দিয়ে প্রতারণা করে আসছেন বলে অভিযোগ। এখনও পর্যন্ত তাঁর ৮টি ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টের হদিশ পাওয়া গিয়েছে। নিজেকে আইএএস অফিসার বলে দাবির পাশাপাশি কলকাতা পুরসভা, পূর্ত দফতর-সহ একাধিক দফতরের ভুয়ো স্ট্যাম্প ব্যবহার করতেন তিনি। কসবায় তাঁর নিজের একটি অফিস খুলে সেখান থেকেই ওই সব কাজ পরিচালনা করতেন তিনি। ফলে ওই অফিসে যাঁরা কাজ করতেন তদন্তে তাঁদেরও আতস কাচের তলায় নিয়ে আসা হয়েছে। ইতিমধ্যে ১০ জন কর্মীকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তলব করা হয়েছে। লালবাজার সূত্রে খবর, তদন্তের জন্য আরও কয়েকজনকে ডাকা হতে পারে।

Advertisement

আরও পড়ুন

Advertisement