Advertisement
১৫ জুলাই ২০২৪
Arrest

ঋণ পাইয়ে দেওয়ার নামে প্রতারণা, গ্রেফতার বাবা-ছেলে

পুলিশ সূত্রের খবর, পোস্তা এলাকায় জগদীশদের পারিবারিক ব্যবসা রয়েছে। তাদের বাড়ি হুগলিতে। ২০২১ সালে জগদীশ এবং আদিত্যের সঙ্গে ব্যবসায়ী বিজয় সিঙ্ঘলের আলাপ হয়। বিজয়ের অফিস কটন স্ট্রিটে।

An image of Arrest

—প্রতীকী চিত্র।

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা শেষ আপডেট: ২৮ নভেম্বর ২০২৩ ০৭:৫২
Share: Save:

ঋণ পাইয়ে দেওয়ার নাম করে এক ব্যবসায়ীর কাছ থেকে প্রায় দু’কোটি ৩৫ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগে বাবা ও ছেলেকে গ্রেফতার করেছে পোস্তা থানার পুলিশ। গত শনিবার ভোরে দিল্লির করোল বাগ থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়। পুলিশ সূত্রের খবর, ধৃত বাবার নাম জগদীশ দাহিয়া, ছেলের নাম আদিত্য দাহিয়া। গ্রেফতারের পরে জগদীশ ও আদিত্যকে দিল্লির স্থানীয় আদালত এক দিনের জেল হেফাজতে পাঠায়। রবিবার ধৃতদের ট্রানজ়িট রিমান্ডে কলকাতায় নিয়ে আসার নির্দেশ দেয় আদালত।

পুলিশ সূত্রের খবর, পোস্তা এলাকায় জগদীশদের পারিবারিক ব্যবসা রয়েছে। তাদের বাড়ি
হুগলিতে। ২০২১ সালে জগদীশ এবং আদিত্যের সঙ্গে ব্যবসায়ী বিজয় সিঙ্ঘলের আলাপ হয়। বিজয়ের অফিস কটন স্ট্রিটে। অভিযোগ, বিজয়কে ঋণ পাইয়ে দেওয়ার নাম করে তাঁর কাছ থেকে প্রায় ২ কোটি ৩৫ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নেয় জগদীশ ও আদিত্য। বিজয় সেই ঋণ পাননি। তাঁকে টাকাও ফেরত দেওয়া হয়নি। গত অক্টোবরে বিষয়টি নিয়ে পুলিশের দ্বারস্থ হন বিজয়। তদন্তে নেমে তদন্তকারীরা দেখেন, অভিযুক্তেরা পলাতক। জগদীশদের হুগলির বাড়িতে গিয়ে দেখা যায়, সেই বাড়ি তালাবন্ধ। একই কায়দায় আরও অনেকের সঙ্গেই বাবা-ছেলে প্রতারণা করেছে বলে মনে করছেন তদন্তকারীরা। ব্যাঙ্কশাল আদালত পলাতক অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করে।

কী ভাবে ধরা হল জগদীশ ও আদিত্যকে? পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, অভিযুক্তেরা তাদের মোবাইল নম্বর পাল্টে ফেলেছিল। কিন্তু আগের মোবাইল থেকে তারা যাঁদের ফোন করেছিল, তাঁদের সূত্র ধরে পুলিশ জানতে পারে, বাবা-ছেলে রয়েছে দিল্লির করোল বাগে। এর পরেই রাজধানীতে অভিযান চালিয়ে পাকড়াও করা হয় জগদীশ ও আদিত্যকে।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)

অন্য বিষয়গুলি:

father son Financial Fraud Bank Loan
সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের মাধ্যমগুলি:
Advertisement

Share this article

CLOSE