Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২০ জানুয়ারি ২০২২ ই-পেপার

এ রাজ্যে পরীক্ষা হবে অক্টোবরে

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ০১ সেপ্টেম্বর ২০২০ ০৫:১২
প্রতীকী ছবি।

প্রতীকী ছবি।

রাজ্যের কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়গুলিতে ১ থেকে ১৮ অক্টোবরের মধ্যে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর স্তরের ফাইনাল সিমেস্টার এবং চূড়ান্ত বর্ষের পরীক্ষা নেওয়া হবে। ৩১ অক্টোবরের মধ্যে পরীক্ষার ফল প্রকাশ করতে হবে। সোমবার শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গে উপাচার্যদের বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত হয়েছে। পরীক্ষা অনলাইন নাকি অফলাইন অথবা ‘ব্লেন্ডেড মোড’-এ হবে, তা সংশ্লিষ্ট বিশ্ববিদ্যালয় ঠিক করবে। উচ্চশিক্ষা দফতর নির্দেশিকা দেবে না। তবে কয়েক জন উপাচার্য অনলাইনে পরীক্ষার পক্ষে বলে খবর।

প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়, রাজ্য প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (ম্যাকাউট), বিদ্যাসাগর বিশ্ববিদ্যালয় রায়গঞ্জ বিশ্ববিদ্যালয় ফল প্রকাশ করেছে। যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিকাংশ বিষয়ে ফল বেরিয়ে গিয়েছিল। সূত্রের খবর, এ দিনের বৈঠকে ম্যাকাউট এবং প্রেসিডেন্সির উপাচার্যেরা জানান, তাঁরা সম্পূর্ণ নিয়ম মেনে পরীক্ষা নিয়ে ফল প্রকাশ করেছেন। তাই নতুন করে পরীক্ষা তাঁরা আর নেবেন না। ইউজিসির দ্বিতীয় নির্দেশিকায় ইঞ্জিনিয়ারিং শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলির ব্যাপারে কিছু বলা হয়নি। তাই যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের ফাইনাল সিমেস্টারের পড়ুয়াদেরও আর নতুন করে পরীক্ষা দিতে হবে না বলেই খবর।

ইউজিসির ২৯ এপ্রিলের গাইডলাইন মেনে বিশ্ববিদ্যালয়গুলিকে পরীক্ষা সংক্রান্ত যে পরামর্শ-নির্দেশিকা রাজ্য পাঠিয়েছিল, সেখানে করোনা পরিস্থিতিতে কোনও রকম পরীক্ষা না-নেওয়ার উল্লেখ ছিল। কিন্তু ৬ জুলাই ইউজিসির নয়া নির্দেশিকায় বলা হয়, চূড়ান্ত বর্ষ ও চূড়ান্ত সিমেস্টারের পরীক্ষা বাধ্যতামূলক ভাবে নিতে হবে। তা নিয়ে বিতর্কের পরে সুপ্রিম কোর্টও পরীক্ষাগুলি নিতেই হবে বলে জানায়। উচ্চশিক্ষা দফতরের সূত্র জানাচ্ছে, কয়েকটি বিশ্ববিদ্যালয় ২০ শতাংশ নম্বরের পরীক্ষা নিয়েছিল। তাই অনেকের ক্ষেত্রেই এ বার ৮০ শতাংশ নম্বরের উপরে পরীক্ষা নিতে হবে।

Advertisement

যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রের খবর, কলা ও বিজ্ঞান বিভাগের পড়ুয়াদের ৮০% পরীক্ষা কী ভাবে নেওয়া হবে, সেই বিষয়ে মতামত জানতে কর্তৃপক্ষ সব পক্ষকে নিয়ে বুধবার বৈঠক ডেকেছেন। বিদ্যাসাগর বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য রঞ্জন চক্রবর্তী বলেন, ‘‘আমরা ৮০ শতাংশ নম্বরের পরীক্ষা নেব। প্রশ্নপত্র বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইট এবং ছাত্রবন্ধু অ্যাপে দেওয়া হবে। পড়ুয়ারা নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে তার উত্তর লিখে ই-মেল করবে অথবা অ্যাপেও আপলোড করে দিতে পারবে।’’ তিনি জানান, যাঁরা অনলাইনে উত্তরপত্র পাঠাতে পারবে না, তাঁদের বাড়ির নিকটতম কলেজে উত্তরপত্র জমা দিতে হবে। বিশ্ববিদ্যালয় তা সংগ্রহ করে নেবে।

আরও পড়ুন

Advertisement