Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৩ জানুয়ারি ২০২২ ই-পেপার

‘ভুতুড়ে’ বিদ্যুতের বিল নিয়ে ক্ষোভ আমতায়

নুরুল আবসার
আমতা ২২ জুলাই ২০২০ ০৩:৫৮
প্রতীকী ছবি

প্রতীকী ছবি

তিন মাসের বিদ্যুৎ বিল ৯ হাজার টাকা! অঙ্ক দেখে চমকে উঠেছেন আমতার উদং গ্রামের বাসিন্দা পেশায় শিক্ষক পিন্টু পাড়ুই।

ওই শিক্ষকের দাবি, সাধারণত মাসে ৬৫০-৭০০ টাকা বিদ্যুতের বিল আসে তাঁর বাড়ি। গত ফেব্রুয়ারিতেও বিদ্যুতের বিল ছিল ৬৮২ টাকা। এ বার তিন মাসের বিদ্যুতের বিল এসেছে ৯,৩০৬ টাকা। এককালীন দিতে না-পারলে প্রত্যেক মাসে তাঁকে ৩,১৪০ টাকা করে বিল মেটাতে হবে। বিল হাতে পেয়ে চক্ষু চড়কগাছ পিন্টুবাবুর। রাজ্য বিদ্যুৎ বণ্টন সংস্থার উলুবেড়িয়া ডিভিশনের এক কর্তা জানিয়েছেন, বিল নিয়ে গ্রাহকের অভিযোগ থাকলে তিনি বণ্টন সংস্থাকে লিখিত ভাবে জানাতে পারেন। ভুল থাকলে সংশোধিত বিল দেওয়া হবে। পিন্টুবাবুর কথায়, ‘‘আগে কোনওদিন এত বেশি টাকার বিদ্যুৎ বিল আসেনি। প্রতিমাসে গড়ে বিদ্যুতের বিল আসে সাড়ে ছ’শো থেকে সাতশো টাকা। লকডাউন-এর আগে ৬ ফেব্রুয়ারি ৬৮২ টাকা এক মাসের বিল জমা দিয়েছিলাম।’’ গত ২৮ এপ্রিল থেকে ২১ জুলাই পর্যন্ত বিদ্যুতের বিল হিসাবে পিন্টুবাবুর কাছে ৯,৩০৬ টাকা দাবি করেছে বিদ্যুৎ বণ্টন সংস্থা। মঙ্গলবার তিনি যে বিদ্যুৎ বিল হাতে পেয়েছেন, তাতে দেখা যাচ্ছে, আগামী ১২ অগস্টের মধ্যে তাঁকে মেটাতে হবে ৩,১৪০ টাকা। পরের দু’মাসে ওই তারিখের আগে সমপরিমাণ টাকা দিতে হবে।

তিনি বলেন, ‘‘বিলে লেখা রয়েছে, ২৮ এপ্রিল থেকে ২১ জুলাই পর্যন্ত আমি ১,১৩৯ ইউনিট বিদ্যুৎ খরচ করেছি। অথচ লকডাউন চলাকালীন আমি বাড়তি বিদ্যুৎ খরচ করিনি। আগে কোনও মাসে আমার সাতশো টাকার বেশি বিদ্যুতের বিল আসেনি।’’ তাঁর অভিযোগ, ‘‘প্রত্যেক মাসে কত ইউনিট বিদ্যুৎ পুড়েছে, সেই হিসাব না দিয়ে, তিন মাসে মোট যে বিদ্যুৎ পুড়েছে, তার হিসাব দেওয়া হয়েছে বিলে। ইউনিটের ব্যবহার পিছু ‘স্ল্যাব’ ধার্য করা রয়েছে। নিয়ম হল, যত বেশি বিদ্যুৎ পুড়বে, ইউনিট প্রতি তত বেশি টাকা দিতে হবে। স্ল্যাব-ও বদলে যাবে। আমার সন্দেহ, স্ল্যাব অনুযায়ী বিদ্যুতের দাম ধরা হয়নি। তিন মাসে ব্যবহৃত মোট বিদ্যুতের পরিমাণ হিসাব করার পরে ইউনিট প্রতি সর্বোচ্চ দাম ফেলা হয়েছে। সেই কারণেই এই বিপত্তি হয়েছে।’’

Advertisement

পিন্টুবাবুর দাবি, শুধু তিনি-ই নন, অনেকের কাছে অস্বাভাবিক বেশি টাকার বিদ্যুতের বিল এসেছে। বণ্টন সংস্থার উলুবেড়িয়া ডিভিশন সূত্রে জানানো হয়েছে, যাঁদের ক্ষেত্রে এমনটি ঘটেছে, তাঁদের থেকে অভিযোগ পেলে খতিয়ে দেখে নতুন বিল দেওয়া হবে।

আরও পড়ুন

Advertisement