Advertisement
১০ ডিসেম্বর ২০২২
রাস্তা নিয়ে বিবাদ শ্যামপুরে

মহিলাকে মার, অভিযুক্ত তৃণমূল নেতা

পরিবারের জায়গা দখল করে রাস্তা হচ্ছে, এই প্রতিবাদ জানানোয় হাওড়ার শ্যামপুরের এক মহিলাকে মারধরের অভিযোগ উঠল সেখানকার এক তৃণমূল নেতা ও নির্মাণকাজে যুক্ত লোকজনের দলবলের বিরুদ্ধে।

নিজস্ব সংবাদদাতা
শ্যামপুর শেষ আপডেট: ০২ জানুয়ারি ২০১৭ ০১:৪০
Share: Save:

পরিবারের জায়গা দখল করে রাস্তা হচ্ছে, এই প্রতিবাদ জানানোয় হাওড়ার শ্যামপুরের এক মহিলাকে মারধরের অভিযোগ উঠল সেখানকার এক তৃণমূল নেতা ও নির্মাণকাজে যুক্ত লোকজনের দলবলের বিরুদ্ধে।

Advertisement

শ্যামপুর-২ ব্লকের ডিহিমণ্ডলঘাট-১ পঞ্চায়েতের ডিহিমণ্ডলঘাট এলাকার বাসিন্দা ছন্দা মণ্ডল নামে ওই মহিলা শনিবার থানায় দায়ের করা ওই অভিযোগে জানিয়েছেন, গত ২৭ ডিসেম্বর তাঁকে মারধর করা হয়। অভিযুক্ত তৃণমূল নেতা সুকুমার মল্লিক এ নিয়ে কোনও কথা বলতে অস্বীকার করেন। সুকুমারবাবু শ্যামপুর-২ পঞ্চায়েত সমিতির বিদ্যুৎ বিভাগের প্রাক্তন কর্মাধ্যক্ষ। ছন্দাদেবী পুলিশের বিরুদ্ধে নিষ্ক্রিয়তার অভিযোগ তুলেছেন। পুলিশ অবশ্য জানিয়েছে, তদন্ত চলছে।

পঞ্চায়েত ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, ডিহিমণ্ডলঘাটের জাতখামার এলাকা থেকে মাকালপাড়ায় রূপনারায়ণ নদীর ধার পর্যন্ত প্রায় ৭০০ ফুটের একটি ঢালাই রাস্তা তৈরি হচ্ছে গ্রাম পঞ্চায়েতের উদ্যোগে। মাকালপাড়ায় ছন্দাদেবীর বাড়ির কাছে রাস্তাটি কিছুটা চওড়া হচ্ছে। রাস্তার পাশে ছন্দাদেবীদের পুকুর পাড়। অভিযোগ, গত ২৭ ডিসেম্বর রাস্তাটি তৈরির জন্য খোঁড়াখুঁড়ি করতে যান ঠিকাদারের লোকজন। তাঁদের সঙ্গে যান সুকুমারবাবুও। ছন্দাদেবীর অভিযোগ, পুকুড় পাড় খুঁড়ে ইট বসানো হচ্ছে দেখে তিনি আপত্তি জানানোয় তাঁকে মারধর করে পুকুরে ফেলে দেওয়ার চেষ্টা করা হয়।

ছন্দাদেবীর মা বেলাদেবী বলেন, ‘‘ওরা শুধু আমাদের বাড়ির কাছেই রাস্তা বেশি করে চওড়া করছে আমাদের জায়গা দখল করে। আরও জায়গা দখল করে নেওয়ার হুমকিও দিয়েছে।’’ পঞ্চায়েতের প্রধান রূপা গড়াই জানান, ওই এলাকায় ১০০ দিনের কাজ প্রকল্পে রাস্তা তৈরি হচ্ছে। তবে, সে জন্য কারও জায়গা দখল বা মারধরের কথা তাঁর জানা নেই বলে রূপাদেবীর দাবি। বিষয়টি খোঁজ নেওয়া হচ্ছে বলে তিনি জানিয়েছেন।

Advertisement
(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.