Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

১৮ জানুয়ারি ২০২২ ই-পেপার

দুই ‘বর্বরে’র সঙ্গে লড়াই, মত ধওয়েলের

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ০৪ জানুয়ারি ২০১৯ ০২:০৬
অশোক ধওয়েলে। ফাইল চিত্র।

অশোক ধওয়েলে। ফাইল চিত্র।

কলকাতায় এসে বিজেপি এবং তৃণমূলকে এক বন্ধনীতে রেখেই নিশানা করলেন মহারাষ্ট্রে ‘কিসান লং মার্চে’র নেপথ্য কারিগর। তাঁর মন্তব্য, এ রাজ্যে বিজেপি এবং তৃণমূল— এই জোড়া ‘বর্বর শক্তি’র বিরুদ্ধে লড়াই করে এগোতে হচ্ছে বাম আন্দোলনকে। তবে তার মধ্যেও মহারাষ্ট্রের ‘লং মার্চে’র পাশেই সিঙ্গুর থেকে রাজভবন পর্যন্ত কৃষকদের পদযাত্রা জায়গা করে নিয়েছে বলে অশোক ধওয়েলের দাবি।

সিপিএমের দৈনিক মুখপত্রের ৫৩তম প্রতিষ্ঠা দিবসের অনুষ্ঠানে বৃহস্পতিবার প্রমোদ দাশগুপ্ত ভবনে প্রধান বক্তা ছিলেন দলের কৃষক সভার সর্বভারতীয় সভাপতি ধওয়েলে। মহারাষ্ট্র-সহ দেশের নানা প্রান্তে কৃশক আন্দোলন কী ভাবে দানা বেঁধে উঠেছে, সেই কাহিনি শুনিয়েই তিনি বাংলার প্রসঙ্গ তোলেন। প্রয়াত প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী জ্যোতি বসু বিজেপি সম্পর্কে বলতেন, ‘অসভ্য, বর্বরদের দল’। বসুর সেই মন্তব্য উল্লেখ করে ধওয়েলে বলেন, ‘‘বিজেপি তো বটেই, বাংলায় তৃণমূল যা করছে, সেটাও বর্বরদের কাজ! পঞ্চায়েত ভোটে বিরোধী দলের প্রার্থীদের মনোনয়ন জমা দিতেই তারা বাধা দিয়েছে। শ্রমিক, কৃষকদের দাবি আদায়ের আন্দোলনের উপরে তৃণমূলের সরকার নিপীড়ন চালাচ্ছে। কৃষকেরা ফসলের ন্যায্য দাম পাচ্ছেন না। এক দিকে বিজেপি-আরএসএস এবং অন্য দিকে তৃণমূলের বিরুদ্ধে লড়াই চলছে বাংলায়।’’ মহারাষ্ট্রের কৃষক সভার তরফে বাংলার সিপিএম মুখপত্রের তহবিলে কিছু অর্থসাহায্য দিয়ে লড়াইয়ে সহমর্মিতার বার্তাও দিয়েছেন ধওয়েলে।

তৃণমূল অবশ্য কৃষক সভার নেতার আক্রমণ উড়িয়ে দিয়েছে। দলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের বক্তব্য, ‘‘বাংলার বাস্তবতা উনি কিছুই জানেন না। এখানে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কৃষকদের কল্যাণের জন্য নিরন্তর কাজ করছেন। কৃষক, শ্রমিকেরা মুখ্যমন্ত্রীর উপরেই আস্থা রাখছেন।’’ কৃষকদের জন্য ফসল বিমা, মৃত্যুতে ক্ষতিপূরণের কথা বলছেন তৃণমূল নেতৃত্ব।

Advertisement

সিপিএমের রাজ্য সম্পাদক সূর্যকান্ত মিশ্র অবশ্য কৃষকদের জন্য মুখ্যমন্ত্রীর সাম্প্রতিক ঘোষণা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন। তাঁর বক্তব্য, ‘‘কৃষকদের মৃত্যুর পরে নগদ টাকা দিয়ে তাঁদের কী লাভ হবে? দাবিটা হল, উৎপাদন খরতের দেড় গুণ দাম দিয়ে ফসল কেনার ব্যবস্থা করুক সরকার। বেঁচে থাকতে সাহায্য নেই, মারা যাওয়ার পরে টাকা!’’

ধওয়েলে এ দিন জানিয়েছেন, আগামী ৮ ও ৯ জানুয়ারি সাধারণ ধর্মঘটে তাঁদের সংগঠন গ্রামীণ বন্‌ধ করবে। হবে রাস্তা ও রেল রোকো। তাঁর মতে, ‘‘ভোট লুঠ, অত্যাচারের পথে তৃণমূলকে যেতে হচ্ছে মানে তাদের পায়ের তলার মাটি আলগা হচ্ছে!’’ ধর্মঘটে সব সংগঠনকে রাস্তায় থাকার ডাক এ দিন ফের দিয়েছেন বামফ্রন্টের চেয়ারম্যান বিমান বসুও।

আরও পড়ুন

Advertisement