Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

০৩ ডিসেম্বর ২০২১ ই-পেপার

যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে কাটছে না ডেঙ্গি-আতঙ্ক

নিজস্ব সংবাদদাতা
৩১ অক্টোবর ২০১৭ ০৩:১৯
অচেতন: ডেঙ্গি নিয়ে প্রচারই সার। যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসে এ ভাবেই জমে আছে জল এবং আবর্জনা। সোমবার। নিজস্ব চিত্র

অচেতন: ডেঙ্গি নিয়ে প্রচারই সার। যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসে এ ভাবেই জমে আছে জল এবং আবর্জনা। সোমবার। নিজস্ব চিত্র

যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে ডেঙ্গির আতঙ্ক আর কমছে না!

সম্প্রতি ডেঙ্গিতে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হতে হয়েছে তুলনামূলক সাহিত্যের শিক্ষক সুজিত মণ্ডল এবং তাঁর সাড়ে পাঁচ বছরের কন্যাকে। প্রসঙ্গত, সুজিতবাবু ক্যাম্পাসের ভিতরের আবাসনে থাকেন। সোমবার সুজিতবাবু বলেন, ‘‘শিক্ষক আবাসনে এবং হস্টেলে অনেকেই ডেঙ্গিতে আক্রান্ত হচ্ছেন। এ এক আতঙ্কের পরিবেশ!’’ সুজিতবাবুর দাবি, ক্যাম্পাসে ডেঙ্গি আক্রান্তের সংখ্যা এখনও পর্যন্ত ৭৫। নির্মাণ সামগ্রীর আবর্জনা পরিষ্কার হলেও জল জমা আটকানো যাচ্ছে না। তাই ক্যাম্পাসে ডেঙ্গি হয়েই চলেছে। ডেঙ্গি আক্রান্তদের মধ্যে রয়েছেন পরীক্ষা নিয়ামক সাত্যকি ভট্টাচার্যের স্ত্রী, পদার্থবিদ্যার শিক্ষক অসীম ঘোষের স্ত্রী ও দুই মেয়ে।

প্রসঙ্গত, অগস্ট মাসে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক আবাসন এবং ছাত্রাবাসে ডেঙ্গি ছড়ায়। ১১ জন শিক্ষক এবং ৬ জন ছাত্রের রক্ত পরীক্ষায় ডেঙ্গি পজিটিভ এসেছিল। এর পরে পুরসভাও সক্রিয় হয়েছিল। কিন্তু ডেঙ্গির সংক্রমণ থামেনি।

Advertisement

ক্যাম্পাস ঠিক মতো পরিষ্কার করা হয় না বলে অভিযোগ যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির (জুটা) সাধারণ সম্পাদক নীলাঞ্জনা গুপ্তের। সম্প্রতি এ বিষয়ে তাঁরা উপাচার্য সুরঞ্জন দাসকে স্মারকলিপিও দেন। নীলাঞ্জনাদেবী
এ দিন বলেন, ‘‘আমরা উপাচার্যের কাছে পুরো ক্যাম্পাস নিয়মিত পরিষ্কার করা, শৌচাগার পরিচ্ছন্ন রাখার দাবি জানিয়েছি। কিন্তু উনি জানিয়েছেন, এ সব নিয়মিত করার মতো আর্থিক অবস্থা বিশ্ববিদ্যালয়ের নেই।’’ উপাচার্য সুরঞ্জন দাসের সঙ্গে ফোনে যোগাযোগ করলে তিনি জানান, দিল্লিতে রয়েছেন। এখন কথা বলা সম্ভব নয়।

রেজিস্ট্রার পার্থ লাহিড়ি অবশ্য এই সব তথ্য উড়িয়ে দিয়ে এ দিন বলেন, ‘‘সব বাজে কথা। ক্যাম্পাস নিয়মিত পরিষ্কার করা হচ্ছে।’’ যদিও নীলাঞ্জনাদেবীর দাবি, ক্যাম্পাসের বিভিন্ন জায়গায় জল জমে থাকছে। এমনকী, কলা বিভাগের ভবনে বৃষ্টির জল চুঁইয়ে ঢুকে জমে থাকছে।

অগস্টে ক্যাম্পাসে ডেঙ্গি আক্রান্তের খবর পাওয়ার পরেই বিশ্ববিদ্যালয়ে মশা দমন অভিযানে যান মেয়র পারিষদ (স্বাস্থ্য) অতীন ঘোষ। তিনি দেখেন, ক্যাম্পাসের বিভিন্ন জায়গায় ডাঁই হয়ে রয়েছে জঞ্জাল, জমে রয়েছে জল। বহু জায়গায় ফেলে রাখা পাত্রে এডিস ইজিপ্টাইয়ের লার্ভাও মিলেছিল। এর পরে ব্যবস্থাও নেওয়া হয়। কিন্তু তার পরেও বারবার ডেঙ্গি আক্রান্তের খবরে এ কথা স্পষ্ট যে, ক্যাম্পাসে ডেঙ্গির মশা নির্মূল হয়নি।

আরও পড়ুন

Advertisement