Advertisement
২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৪
KMC Hoarding Policy

আগামী অর্থবর্ষ থেকে চালু হবে কলকাতা পুরসভার নতুন হোর্ডিং নীতি, ঘোষণা মেয়র ফিরহাদ হাকিমের

হোর্ডিং নীতি চূড়ান্ত করে তা কার্যকর করতে একটি কমিটি গঠন করা হবে পুরসভার তরফে। আগামী বছর জানুয়ারি ও ফেব্রুয়ারি মাসের মধ্যেই সেই কমিটি তৈরি হয়ে যাবে।

KMC have set a Hoarding policy said Mayor Firhad Hakim

ফিরহাদ হাকিম। —ফাইল চিত্র।

আনন্দবাজার অনলাইন সংবাদদাতা
কলকাতা শেষ আপডেট: ০২ ডিসেম্বর ২০২৩ ১৮:১৯
Share: Save:

আগামী অর্থবর্ষ থেকে চালু হয়ে যাবে কলকাতা পুরসভার হোর্ডিং নীতি। শনিবার এমনটাই জানিয়েছেন মেয়র ফিরহাদ হাকিম। এই নীতি চূড়ান্ত করে তা কার্যকর করতে একটি কমিটি গঠন করা হবে পুরসভার তরফে। আগামী বছর জানুয়ারি ও ফেব্রুয়ারি মাসের মধ্যেই সেই কমিটি তৈরি হয়ে যাবে। সেখানে স্থান দেওয়া হবে কলকাতা পুরসভার বাছাই করা আধিকারিকদের পাশাপাশি, বিভিন্ন বিষয়ের বিশেষজ্ঞদের। নতুন এই হোর্ডিং নীতি তৈরি হয়ে গেলে শহর কলকাতার দৃশ্যদূষণ কমে যাবে বলেই দাবি করেছেন ফিরহাদ।

এত দিন কলকাতা পুরসভার স্পষ্ট কোনও হোর্ডিং নীতি না থাকায় রাজস্ব আদায়ের ক্ষেত্রেও পুরসভাকে ক্ষতির সম্মুখীন হতে হচ্ছিল। তাই কলকাতা পুরসভার কাছে এই বিষয়ে স্পষ্ট নীতি নির্ধারণ জরুরি হয়ে পড়েছিল। আগামী অর্থবর্ষ থেকেই কলকাতা পুরসভায় হোর্ডিং নীতি চালু হয়ে যাচ্ছে।

নতুন হোর্ডিং নীতির পাশাপাশি, কলকাতায় যে সব হোর্ডিং লাগানো হয়, তাতে বার কোডের ব্যবহারও বাধ্যতামূলক করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন মেয়র ফিরহাদ। তাঁর কথায়, ‘‘প্রত্যেক হোর্ডিংয়ে বার কোড রাখা বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। যাতে হোর্ডিংয়ের ব্যবহার নিয়ে কোনও অভিযোগ না ওঠে। হোর্ডিংয়ের বার কোডে গিয়ে স্ক্যান করলেই হোর্ডিং সংক্রান্ত যাবতীয় তথ্য পাওয়া যাবে। তাতে হোর্ডিং নিয়ে ওঠা যাবতীয় অভিযোগের অবসান হবে।’’ নতুন এই নীতির ফলে যত্রতত্র হোর্ডিং লাগানোর প্রবণতাও বন্ধ করা সম্ভব হবে বলে দাবি করেছে কলকাতা পুরসভার আধিকারিকদের একাংশ।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement

Share this article

CLOSE