×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

২২ জানুয়ারি ২০২১ ই-পেপার

মন খারাপের অঞ্জলিতে বিদায় রাজপুত্রকে

আর্যভট্ট খান
কলকাতা২৭ নভেম্বর ২০২০ ০২:৩৮
স্মৃতি: মারাদোনার সই করা ফুটবল নিয়ে তাঁর মূর্তির সামনে। বৃহস্পতিবার, লেক টাউনে এক অনুষ্ঠানে। ছবি: সুমন বল্লভ

স্মৃতি: মারাদোনার সই করা ফুটবল নিয়ে তাঁর মূর্তির সামনে। বৃহস্পতিবার, লেক টাউনে এক অনুষ্ঠানে। ছবি: সুমন বল্লভ

ফুটবলের ‘রাজপুত্র’ চলে গিয়েছেন। বুধবার রাতে এই দুঃসংবাদ যখন চার দিকে ছড়িয়ে পড়ছে, তখনও যেন ঠিক বিশ্বাস করতে পারছিলেন না এ শহরের মারাদোনা-ভক্তেরা। পরের গোটা দিনটাই মন খারাপের মধ্যে কাটালেন তাঁরা। প্রিয় ফুটবলারকে অন্তিম শ্রদ্ধা জানাতে কেউ তাঁর ছবিতে ফুল দিয়ে মোমবাতি জ্বালালেন। অনেকে আবার মিছিলও করলেন তাঁর ছবি নিয়ে।

গাঙ্গুলিবাগানের রবীন্দ্রপল্লির একটি ক্লাবের সদস্যেরা বৃহস্পতিবার মারাদোনার ছবি দিয়ে বড় বড় ফ্লেক্স তৈরি করে সাজিয়েছিলেন পাড়া। সেই সব ফ্লেক্সে লেখা ‘রেস্ট ইন পিস।’ ওই ক্লাবের সদস্যেরা জানালেন, শুধু মারাদোনার ভক্তেরাই নন, এ দিন এলাকার প্রত্যেক ফুটবলপ্রেমীই যোগ দিয়েছিলেন মারাদোনার ছবি নিয়ে বার হওয়া এক মোমবাতি মিছিলে। ক্লাবের সেক্রেটারি উত্তম দাস বললেন, ‘‘পাড়ার অল্পবয়সি ছেলেরা, যারা মারাদোনার খেলা সরাসরি কখনও দেখেনি, তারাও ওঁর মৃত্যুর খবর শুনে রীতিমতো ভেঙে পড়েছে। মারাদোনার ছবির সামনে মোমবাতি জ্বালিয়েছে। মালা দিয়েছে।’’

পেশায় ব্যবসায়ী উত্তমবাবু জানালেন, তাঁদের ওই ক্লাবের সদস্য ৮০ জন। আর্জেন্টিনার খেলা থাকলেই ওই দলের জার্সি এবং মারাদোনার ছবি দিয়ে পাড়া সাজানো হয়। উত্তমবাবুর কথায়, ‘‘আজকের প্রজন্ম মারাদোনার খেলা দেখেনি ঠিকই, কিন্তু আমরা ওঁর খেলার গল্প ওদের শোনাই। ইউটিউবে মারাদোনার খেলা দেখাই। কোপা আমেরিকার খেলা দেখতে আর্জেন্টিনায় গিয়েছিলাম। সেখানে মারাদোনার বাড়িতেও গিয়েছিলাম। কিন্তু ওঁর দেখা পাইনি।’’

Advertisement

 আরও পড়ুন: ‘তুমি কি নিজেকে ভগবান মনে করো?’

যাদবপুরের একটি হাসপাতালের কর্মীদের তৈরি ক্লাবের সদস্যেরা এ দিন যাদবপুর স্টেশন রোডের পাশেই মারাদোনার ছবির সামনে মোমবাতি জ্বেলে মালা পরিয়েছিলেন। ওই ক্লাবের সদস্য সমর দাস বললেন, ‘‘পাড়ার আট-দশ বছরের ছোট ছোট ছেলেরাও এসে মোমবাতি জ্বালিয়ে গিয়েছে। কাল রাতে খবরটা শোনার পর থেকেই গোটা পাড়ার মন খারাপ। কোভিড পরিস্থিতি ঠিক হলে মারাদোনার স্মৃতির উদ্দেশ্যে ফুটবল প্রতিযোগিতার আয়োজন করার পরিকল্পনা আছে আমাদের।’’

লেক টাউনের একটি ক্লাবের তরফে এ দিন মারাদোনার ব্রোঞ্জের মূর্তির সামনে মালা ও ফুল দেওয়া হয়। ক্লাবের সদস্যেরা জানান, ২০১৭ সালের ডিসেম্বরে মারাদোনা যখন কলকাতায় এসেছিলেন, তখন তিনি নিজেই ওই মূর্তির আবরণ উন্মোচন করেন। বেশ কয়েকটি ফুটবলে সইও করেন তিনি। ক্লাবের একটি অ্যাম্বুল্যান্সেরও উদ্বোধন করেছিলেন মারাদোনা। ভারাক্রান্ত মনে ক্লাব সদস্যেরা জানান, সেই সব স্মৃতি এখনও তাঁদের কাছে টাটকা। তাঁরা জানান, আর্জেন্টিনার খেলা থাকলেই মারাদোনার ভক্তেরা তাঁর ছবি দিয়ে পাড়া সাজিয়ে ফেলতেন।

 আরও পড়ুন: অবরোধ, ভাঙচুর করে ক্ষমতা প্রদর্শন ধর্মঘটীদের​

‘রাজপুত্র’ চলে গেলেও আর্জেন্টিনার খেলা থাকলে মারাদোনার ছবি টাঙাতে ভুলবেন না ওঁরা। ওঁদের মতে, মারাদোনার মৃত্যু হতে পারে, কিন্তু তাঁর খেলার মৃত্যু নেই। তাই ‘ঈশ্বর’কে তাঁরা ভুলবেন কী করে!

Advertisement