Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

১৫ অগস্ট ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

সিএবি-র প্রতিবাদে যুব কংগ্রেসের মিছিল, দফায় দফায় উত্তেজনা সেন্ট্রাল অ্যাভিনিউতে

নাগরিক সংশোধনী বিলের প্রতিবাদে মিছিলের ডাক দেয় যুব কংগ্রেস।

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ১২ ডিসেম্বর ২০১৯ ১৭:৪৮
Save
Something isn't right! Please refresh.
নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলের প্রতিবাদে মিছিল যুব কংগ্রেসের। —নিজস্ব চিত্র।

নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলের প্রতিবাদে মিছিল যুব কংগ্রেসের। —নিজস্ব চিত্র।

Popup Close

সংসদে পাশ হিয়ে গিয়েছে নাগরিক সংশোধনী বিল (সিএবি)। তারই প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার শহরে মিছিলের ডাক দিয়েছিল যুব কংগ্রেস। সেই মিছিল ঘিরেই তেতে উঠল সেন্ট্রাল অ্যাভিনিউ। মিছিল চলাকালীন রাজ্য বিজেপির সদর দফতরের সামনে উত্তেজনা ছড়ায়। পরে পুলিশের সঙ্গেও খণ্ডযুদ্ধে জড়িয়ে পড়েন আন্দোলনকারীরা।

বুধবার রাজ্যসভায় নাগরিক সংশোধনী বিল পাশ করিয়েছে মোদী সরকার। তা আইনে পরিণত হওয়া এখন সময়ের অপেক্ষা। তার বিরুদ্ধে এ দিন প্রতিবাদ মিছিলের ডাক দেয় যুব কংগ্রেস। সেন্ট্রাল অ্যাভিনিউ হয়ে রানি রাসমণি অ্যাভিনিউ পৌঁছনোর কথা ছিল মিছিলটির। কিন্তু মুরলীধর সেন লেনে রাজ্য বিজেপির সদর দফতরের কাছে মিছিল পৌঁছতেই পরিস্থিতি অন্য দিকে মোড় নেয়।

মুরলীধর সেন লেনে শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়ের মূর্তির পাশে তখন চলছিল সিএবি পাশ হওয়ায় বিজেপির উদ্‌যাপনের অনুষ্ঠান। মঞ্চে ভাষণ দিচ্ছিলেন কৈলাস বিজয়বর্গীয়। সেই সময় যুব কংগ্রেসের মিছিল সেন্ট্রাল অ্যাভিনিউ এবং মুরলীধর সেন লেনের সংযোগস্থলে পৌঁছয়। মিছিল থেকে বিজেপি বিরোধী স্লোগান ওঠে। পাল্টা বিজেপি কর্মীরাও কংগ্রেস বিরোধী স্লোগান দিতে শুরু করেন। উত্তপ্ত পরিস্থিতি তৈরি হতে পারে বলে আগে থেকেই পুলিশ মোতায়েন ছিল ওই জায়গায়। দু’পক্ষের মাঝে পুলিশ কর্মীরা থাকলেও ব্যাপক ভাবে বোতল ছোড়াছুড়ি হয় বলে অভিযোগ। আহত হন বেশ কয়েক জন। তবে পুলিশ দু’পক্ষকে মুখোমুখি আসতে দেয়নি। যুব কংগ্রেসের মিছিলকে পুলিশ এর পর ধর্মতলার দিকে এগিয়ে দেয়।

Advertisement

আরও পড়ুন: নাগরিকত্ব বিল পাশের জের! আচমকা ভারত সফর বাতিল করলেন বাংলাদেশের বিদেশমন্ত্রী​

আরও পড়ুন: বৈষম্যের জোড়া অস্ত্র এনআরসি-সিএবি, কেন্দ্রকে তোপ প্রশান্ত কিশোরের​

কিন্তু মিছিল আটকাতে চাঁদনি চকের কাছে কাছে বিশাল পুলিশ বাহিনী ও র‌্যাপ মোতায়েন করা ছিল। পরিস্থিতি সামাল দিতে ই-মলের সামনে আগে থেকেই ব্যারিকেড বসিয়ে, জলকামান নিয়ে প্রস্তুত ছিল তারা। কিন্তু সেই ব্যারিকেডের কয়েক মিটার আগেই পুলিশ কর্মীরা মানব প্রাচীর করে দাঁড়িয়ে ছিলেন। যুব কংগ্রেস কর্মীদের আটকে দেওয়া হয়। এর পরেই দু’পক্ষের মধ্যে খণ্ড যুদ্ধ বাধে। শেষে আন্দোলনকারীদের গ্রেফতার করে লালবাজারে নিয়ে যায় পুলিশ।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)


Something isn't right! Please refresh.

Advertisement