×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

২০ জুন ২০২১ ই-পেপার

New Town Encounter: নিউটাউন গুলি-কাণ্ডে মিলল মালিকের খোঁজ, সুমিত কুমারের নামে ভাড়া নেওয়া হয় ফ্ল্যাট

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ১০ জুন ২০২১ ১১:২৮


সংগৃহীত ছবি

নিউটাউনের সাপুরজি আবাসনের সেই ফ্ল্যাট মালিকের খোঁজ মিলল। পুলিশ সূত্রে খবর, ‘সুমিত কুমার’-এর নামে ওই ফ্ল্যাট ভাড়া নেওয়া হয়েছিল। প্রশ্ন উঠছে, কে এই সুমিত কুমার? ভুয়ো নাম-পরিচয় ব্যবহার করেই কি ওই ফ্ল্যাট ভাড়া নেওয়া হয়েছিল, নাকি এর পিছনে আরও কোনও মাথা রয়েছে? এ সবই তদন্ত করে দেখছে পুলিশ। প্রাথমিক তদন্তে উঠে এসেছে, বাড়ি কেনা-ভাড়া নেওয়ার একটি ওয়েবসাইটের মাধ্যমে ওই ফ্ল্যাটের খোঁজ পায় দুই দুষ্কৃতী। দু’জন দালালের সঙ্গে তারা যোগাযোগ করে। দুই দালালই ফ্ল্যাট ভাড়ার ব্যবস্থা করে দেয়।

বুধবার নিউটাউনের সাপুরজি আবাসনে এসটিএফ (স্পেশাল টাস্ক ফোর্স)-এর এনকাউন্টারে নিহত হয়েছে পঞ্জাবের ২ দুষ্কৃতী। তাদের নাম জয়পাল সিংহ ভুল্লার ও যশপ্রীত সিংহ। প্রাথমিক তদন্তে পুলিশ ফ্ল্যাটের মালিকের খোঁজ পেয়েছে। জানা যাচ্ছে, তিনি কলকাতার সিআইটি রোড এলাকার বাসিন্দা। ২৩ মে থেকে নিউটাউনের সাপুরজি আবাসনে ফ্ল্যাট ভাড়া নিয়েছিল দুষ্কৃতীরা। মাসিক ১৫ হাজার টাকা ভাড়ায় চুক্তি হয়েছিল ১১ মাসের। কী ভাবে দুই দুষ্কৃতী ফ্ল্যাট ভাড়া নিয়েছিল, কে তাদের খোঁজ দিয়েছিল, তা জানতে ফ্ল্যাট মালিককে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে। তাঁকে ডেকে পাঠানো হয়েছে। খতিয়ে দেখা হচ্ছে হবে দুই দুষ্কৃতীর সঙ্গে ফ্ল্যাট মালিকের পূর্ব পরিচয় ছিল কি না। যদি থাকে তবে কার সূত্র ধরে পরিচয়। সূত্রের খবর, ফ্ল্যাটের মালিক কোনও অপরাধের সঙ্গে জড়িত কি না তাও দেখা হবে।

পুলিশ সূত্রে খবর, সুমিত কুমার নামে ওই ফ্ল্যাট ভাড়া নিয়েছিল দুষ্কৃতীরা। ওই নামেই কাগজপত্র রয়েছে। যার মাধ্যমে ঘর ভাড়া জোগাড় করেছিল জয়পালরা, সেই ব্যক্তির সঙ্গে মুখোমুখি বসিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে ফ্ল্যাট মালিককে। সাপুরজি আবাসন রাজারহাটের অভিজাত আবাসনগুলির মধ্যে অন্যতম। স্বাভাবিক ভাবেই নিরাপত্তা ব্যবস্থাও বেশ আঁটোসাটো। সহজে এই আবাসনে ঢোকা যায় না। আর সেখানেই কি না থাকছিল ভিন রাজ্যের বাসিন্দা দুই কুখ্যাত দুষ্কৃতী। তাই সেখানে কীভাবে কোন পরিচয়ে এতদিন লুকিয়ে ছিল ওই দুই দুষ্কৃতী তাও খতিয়ে দেখা হচ্ছে। এ নিয়ে প্রশ্ন তুলছেন ওই আবাসনের একাধিক বাসিন্দা।

Advertisement

বৃহস্পতিবার দুই গ্যাংস্টারের দেহের ময়নাতদন্ত হবে। বুধবার রাত ১টা নাগাদ তাদের দেহ বের করা হয় আবাসন থেকে। ঘর থেকে একাধিক মোবাইল ফোন ও ল্যাপটপ উদ্ধার হয়েছে। দুষ্কৃতীদের সঙ্গে বিদেশ যোগও খতিয়ে দেখছে পুলিশ। আবাসনের বি-১৫৩ নম্বর টাওয়ার এখনও ঘিরে রেখেছে পুলিশ। বাসিন্দাদের ঢোকা-বেরোনোয় বিধিনিষেধ জারি হয়েছে।



Tags:

Advertisement