Advertisement
০৫ মার্চ ২০২৪
Crime

ফেসবুকে ঊষসীর প্রশ্ন, আপনারা কি এমন ঘটনার সাক্ষী হয়েছেন?

পুলিশি সাহায্য না মেলায়, আগেই ফেসবুকে সরব হয়েছিলেন ঊষসী।

সাধারণ মানুষের অভিজ্ঞতা জানতে চাইলেন ঊষসী। ছবি: ফেসবুক থেকে সংগৃহীত।

সাধারণ মানুষের অভিজ্ঞতা জানতে চাইলেন ঊষসী। ছবি: ফেসবুক থেকে সংগৃহীত।

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা শেষ আপডেট: ১৯ জুন ২০১৯ ২০:১৩
Share: Save:

রাতের শহরে নিগ্রহের ঘটনার পর এ বার প্রাক্তন মিস ইন্ডিয়া ঊষসী সেনগুপ্তের ফেসবুক পোল-এ সহ-নাগরিকদের কাছে প্রশ্ন, আপনারা কি কোনও দিন এই শহরে অথবা দেশে এ রকম গণ নিগ্রহের সাক্ষী হয়েছেন?

এই পোস্টের পর সোশ্যাল সাইটে এই ঘটনা নতুন মাত্রাও পেয়েছে। তাঁর এই পোলে পাল্লা ভারী ‘হ্যাঁ’-এর দিকেই। অর্থাৎ, অনেকেই এমন অভিজ্ঞতার সম্মুখীন হয়েছেন বলে মতামত জানিয়েছেন।

পুলিশি সাহায্য না মেলায়, আগেই ফেসবুকে সরব হয়েছিলেন ঊষসী। ওই রাতে তিনটি থানার (ময়দান, চারুমার্কেট, ভবানীপুর) পুলিশ অফিসারদের কাছে গিয়ে তাঁর কেমন অভিজ্ঞতা হয়েছিল, তা-ও তিনি সোশ্যাল মিডিয়ায় তুলে ধরেছিলেন। বিষয়টি ভাইরাল হয়ে যায়।

আরও পড়ুন: পুলিশি হয়রানির অভিযোগ প্রাক্তন মিস ইন্ডিয়ার, ডিসির নেতৃত্বে তদন্ত কমিটি গড়ল লালবাজার

বুধবার সোশ্যাল মিডিয়ায় তাঁর সংযোজন, এটা শুধু মহিলাদের নিরাপত্তার বিষয় নয়। সবারই নিরাপত্তার বিষয়। সঙ্গে তিনি রবীন্দ্রসঙ্গীতের দুটি লাইন উদ্ধৃত করেছেন, ‘আমি ভয় করব না ভয় করব না। দু’বেলা মরার আগে মরব না, ভাই, মরব না।’

সোমবার রাতে এক্সাইডের কাছে এক দল যুবকের হাতে ক্যাব চালককে নিগৃহীত হতে দেখে প্রতিবাদে সরব হয়েছিলেন ঊষসী। এর খেসারতও তাঁকে দিতে হয়। উন্মত্ত যুবকেরা ধাওয়া করে লেক গার্ডেন্সের কাছে তাঁকে হেনস্থাও করে। সেই অভিজ্ঞতার কথা বলতে গিয়ে ঊষসীর বক্তব্য, “ওদের চোখেমুখে ভয় ছিল না।”

ইতিমধ্যেই এই ঘটনায় সাত জন গ্রেফতার হয়েছে। তাদের এ দিন আলিপুর আদালতে তোলা হলে বিচারক ২১ জুন পর্যন্ত পুলিশ হেফাজতের নির্দেশ দেন। এই ঘটনায় সরকারি আইনজীবী বিচারককে জানান, ১০ জন অভিযুক্ত রয়েছে। ধরা পড়েছে সাত জন। বাকিদের খোঁজে তল্লাশি চলছে। শহর কলকাতায় অত্যন্ত গুরুতর অভিযোগ উঠেছে। জামিন হয়ে গেলে, সমাজের কাছে ভুল বার্তা যাবে।

আরও পড়ুন: রাতের কলকাতায় একদল যুবকের হাতে প্রাক্তন ‘মিস ইন্ডিয়া’র হেনস্থা, গ্রেফতার ৭​

এর বিরোধিতা করে অভিযুক্তদের আইনজীবী বলেন, উদ্দেশ্যপ্রণোদিত ছিল না। জামিন দেওয়া হোক। দু’পক্ষের কথা শুনে বিচারক অভিযুক্তদের ২ দিনের পুলিশি হেফাজতের নির্দেশ দেন।

ইতিমধ্যেই ঊষসী এবং ওই ক্যাব চালকের কাছ থেকে তাঁর বয়ান নিয়েছে পুলিশ। খতিয়ে দেখা হচ্ছে সিসি ক্যামেরার ফুটেজও। নিগ্রহের তদন্তের পাশাপাশি, পুলিশের ভূমিকায় কোনও গাফিলতি ছিল কি না, তা-ও খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

ঊষসী প্রথমে পুলিশের ভূমিকায় উষ্মা প্রকাশ করলেও, পরবর্তী ক্ষেত্রে যে ভাবে পদস্থ পুলিশকর্তারা তাঁর সঙ্গে যোগাযোগ করে দ্রুত দোষীদের গ্রেফতার করেছেন, তাতে খুশি প্রাক্তন মিস ইন্ডিয়া। আদলতে তাঁর গোপন জবানবন্দি নেওয়া হবে। এর পাশাপাশি অভিযুক্তদের চিহ্নিতকরণ প্রক্রিয়াও বাকি রয়েছে।

এবার শুধু খবর পড়া নয়, খবর দেখাও। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের YouTube Channel - এ।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement

Share this article

CLOSE