Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

১৯ অক্টোবর ২০২১ ই-পেপার

ভোট শেষেও তপ্ত কোচবিহার, পুনর্নির্বাচনের দাবিতে অবস্থানে বিজেপি প্রার্থী নিশীথ প্রামাণিক

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ১১ এপ্রিল ২০১৯ ২১:১৬
অবস্থানে কোচবিহারের বিজেপি প্রার্থী নিশীথ প্রামাণিক। ছবি: ভিডিয়ো থেকে নেওয়া

অবস্থানে কোচবিহারের বিজেপি প্রার্থী নিশীথ প্রামাণিক। ছবি: ভিডিয়ো থেকে নেওয়া

ভোটের পরও কোচবিহারে উত্তেজনা অব্যাহত। বিজেপি প্রার্থী নিশীথ প্রামাণিকের অবস্থান বিক্ষোভ ঘিরে উত্তেজনা ছড়ায়। রাত পর্যন্ত সেই অশান্তি চলে। এক দিকে অবস্থানে অনড় বিজেপি প্রার্থী এবং তাঁর সমর্থকেরা। অন্য দিকে পুলিশ-প্রশাসনও তাঁকে বোঝানোর চেষ্টা চালিয়ে যায়। নিশীথবাবুর অভিযোগ, যে সব বুথে রাজ্য পুলিশ মোতায়েন ছিল, সেখানে অবাধে ছাপ্পা ভোট দিয়েছে তৃণমূল। তাই দেড় শতাধিক বুথে পুনর্নির্বাচন করতে হবে। অভিযোগ উড়িয়ে তৃণমূলেরও পাল্টা দাবি, বেশ কয়েকটি বুথে বিজেপি ছাপ্পা ভোট দিয়েছে। রাতে অবশ্য রিটার্নিং অফিসারের আশ্বাসে অবস্থান তুলে নেন বিজেপি প্রার্থী।

জেলা বিজেপি সভাপতি মালতী রাভা রায় বলেছেন, ‘‘অবস্থান তুলতে না পেরে জেলার রিটার্নিং অফিসার ফোন করেন অবজার্ভারকে। পুনরায় নির্বাচনের দাবি খতিয়ে দেখতে অবজার্ভার কাল বৈঠকে বসছেন। জেনারেল অবজার্ভার, স্পেশাল অবজার্ভার এবং অন্য নির্বাচন আধিকারিকরা ওই বৈঠকে থাকবেন। পুনর্নির্বাচন করা হবে কি না সেই বৈঠকে সিদ্ধান্ত হবে’’। রিটার্নিং অফিসার এ কথা জানানোর পরই অবস্থান প্রত্যাহার করেন নিশীথ প্রামাণিক।

২০১৯ লোকসভা ভোটের প্রথম দফায় এ রাজ্যের কোচবিহার ও আলিপুরদুয়ার কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ হয়েছে। দুই কেন্দ্রেই সকালের দিকে বেশ কিছু বুথে ইভিএম খারাপ এবং বিক্ষিপ্ত কিছু অশান্তি ছাড়া ভোটগ্রহণ মোটামুটি শান্তিপূর্ণই হয়েছে। তবে তার মধ্যেও কোচবিহারের দিনহাটা, সীতাই, শীতলকুচি এলাকায় ভোটগ্রহণ ঘিরে বৃহস্পতিবার দিনভর উত্তেজনা ছিল। কোথাও কোথাও তৃণমূল ও বিজেপি কর্মীদের মধ্যে হাতাহাতির পরিস্থিতিও তৈরি হয়।

Advertisement

কিন্তু বিজেপির অভিযোগ, দিনহাটা, সীতাই, শীতলকুচির অধিকাংশ বুথেই কেন্দ্রীয় বাহিনী ছিল না। নিরাপত্তার দায়িত্বে ছিলেন রাজ্য পুলিশের কর্মীরা। কোচবিহারের বিজেপি প্রার্থী নিশীথ প্রামাণিকের অভিযোগ, ‘‘কেন্দ্রীয় বাহিনী না থাকার সুযোগ নিয়ে অবাধে ছাপ্পা ভোট দিয়েছে তৃণমূল। প্রকৃত ভোটারদের বুথে যেতে বাধা দেওয়া হয়েছে। কোথাও আবার ভোটারদের তাড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। আর রাজ্যের পুলিশ দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে দেখেছে।’’

আরও পড়ুন: জোরালো মোদী হাওয়া পাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী, ‘২০০৪ মনে আছে তো?’ বললেন সনিয়া

আরও পড়ুন: ‘স্নাইপার নিশানায় রাহুল! কেন্দ্র বলল মোবাইলের আলো

দিনভর এই টানটান পরিস্থিতির রেশ আরও বাড়ে সন্ধ্যায়। কোচবিহার কেন্দ্রের নির্বাচন পরিচালনার জন্য অস্থায়ী কার্যালয় তৈরি হয়েছে কোচবিহার শহরের পলিটেকনিক কলেজের মাঠে। সন্ধ্যায় দলবল নিয়ে সেখানে হাজির হন বিজেপি প্রার্থী নিশীথ প্রামাণিক। সেখানে তখন ছিলেন জেলাশাসক তথা রিটার্নিং অফিসার। তাঁর কাছে ১৬৬টি বুথে পুনর্নির্বাচনের দাবি জানাতে থাকেন নিশীথ এবং তাঁর দলবল।

পুলিশ-প্রশাসন নিশীথবাবুকে বুঝিয়ে এক বার ফেরত পাঠান। কিন্তু পরে তিনি আবার ওই পলিটেকনিক কলেজের মাঠে অস্থায়ী কার্যালয়ে গিয়ে ধর্নায় বসে পড়েন। নিশীথবাবু ওয়াই ক্যাটেগরির নিরাপত্তা পান। ধর্নায় বসার সময় তাঁর নিরাপত্তারক্ষী কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানদের সঙ্গে ওই অস্থায়ী কার্যালয়ে কর্তব্যরত রাজ্য পুলিশের কর্মী-অফিসারদের ধস্তাধস্তি শুরু হয়। তবে কিছুক্ষণের মধ্যে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণেও আসে।

তৃণমূলের তরফে অবশ্য ছাপ্পা ভোটের অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছেন কোচবিহারের নেতা তথা রাজ্যের মন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষ। তিনি বলেন, ‘‘মোটের উপর ভোট শান্তিপূর্ণই হয়েছে। কয়েকটি বুথে ইভিএম খারাপ হয়েছিল। তাতে ভোটপ্রক্রিয়া কিছুটা ব্যাহত হয়েছিল। তবে ৩-৪টি বুথে ছাপ্পা ভোট দিয়েছে বিজেপি।’’

আরও পড়ুন

Advertisement