Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

০৭ জুলাই ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

ভোট দিন নির্ভয়ে, ডাক বিবেকের

লোকসভা ভোট শুরু হওয়ার এক দিন আগে কোচবিহারে এসে সেই বার্তাই দিলেন নির্বাচন কমিশনের রাজ্যের বিশেষ পুলিশ পর্যবেক্ষক বিবেক দুবে।

নিজস্ব প্রতিবেদন
১১ এপ্রিল ২০১৯ ০২:৩৪
Save
Something isn't right! Please refresh.
বিবেক দুবে।

বিবেক দুবে।

Popup Close

এক দিকে ভোটারদের প্রতি আহ্বান: সাহস করে নির্ভয়ে ভোট দিন। অন্য দিকে, জেলা পুলিশের প্রতি ক্ষোভ: বিভিন্ন মামলায় অভিযুক্তদের সকলকে কেন গ্রেফতার করা হয়নি? লোকসভা ভোট শুরু হওয়ার এক দিন আগে কোচবিহারে এসে সেই বার্তাই দিলেন নির্বাচন কমিশনের রাজ্যের বিশেষ পুলিশ পর্যবেক্ষক বিবেক দুবে।

আজ, বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হচ্ছে লোকসভার ভোটগ্রহণ পর্ব। প্রথম দফায় রাজ্যের দু’টি কেন্দ্রে ভোট হবে, কোচবিহার ও আলিপুরদুয়ার। বিরোধীদের দাবি, এক বছর আগে পঞ্চায়েত ভোটে এই দুই জেলাতেই সন্ত্রাসের অভিযোগ উঠেছিল শাসকদলের বিরুদ্ধে। আলিপুরদুয়ারে তৃণমূলের সঙ্গে টক্কর হয়েছিল মূলত বিজেপির। কোচবিহারে প্রথম থেকেই সংঘর্ষ ও তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বে তপ্ত ছিল হাওয়া। সেখানে এক দিকে মূল তৃণমূল, অন্য দিকে যুব। মনোনয়ন পেশ থেকে শুরু করে ভোটের দিন অবধি সংঘর্ষ চলেছে দু’পক্ষে। এই দীর্ঘ সময়ে কয়েক জন প্রাণ হারিয়েছেন। জখমের সংখ্যাও কম ছিল না।

কোচবিহারে যুবর মূল চালিকা শক্তি ছিলেন নিশীথ প্রামাণিক। পরে তাঁকে দল থেকে বহিষ্কার করা হয়। তিনিই এ বারে বিজেপির প্রার্থী। বাংলাদেশ সীমান্ত ঘেঁষা এই জেলায় ভোটের দিন গন্ডগোলের আশঙ্কা করছেন বিরোধীরা। এ দিন পুলিশ পর্যবেক্ষকের সঙ্গে গিয়ে দেখা করেন বিরোধী প্রার্থী। নিশীথ যেমন গিয়েছিলেন, তেমনই যান বাম প্রার্থী গোবিন্দ রায় এবং কংগ্রেসের পিয়া রায়চৌধুরীও। জেলা পুলিশকর্তাদের সঙ্গেও বৈঠক করেন বিবেক দুবে। পরে তিনি বলেন, ‘‘নির্বাচন কমিশন নিরাপত্তার ব্যবস্থা করবে। ভোটাররা নির্ভয়ে এসে ভোট দিন।’’একই ডাক দিয়ে বিজেপির সহ-সভাপতি জয়প্রকাশ মজুমদার বলেছেন, ‘‘নির্ভয়ে যাকে পছন্দ ভোট দিন। কিন্তু মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কি পারবেন, যাকে ইচ্ছে ভোট দিন কথাটা বলতে?’’ তৃণমূল এই কথাকে বিশেষ গুরুত্ব দিতে চায়নি।

Advertisement

প্রশাসনিক পর্যালোচনায় পুলিশের ভূমিকা নিয়ে কিন্তু ক্ষোভ জানান বিবেক। প্রশাসন সূত্রে খবর, নির্বাচন ঘোষণার পর ২৯টি রাজনৈতিক সংঘর্ষের মামলা হয়েছে। তার মধ্যে ২৭টি মামলায় কাউকে গ্রেফতার করেনি পুলিশ। জেলাশাসক কৌশিক সাহা এবং অভিষেক গুপ্তর স্থলাভিষিক্ত কোচবিহারের নতুন পুলিশ সুপার অমিতকুমার সিংহকে নিয়ে এই বৈঠকে এই তথ্য জানার পরে উষ্মা প্রকাশ করেন বিবেক। তার পরে পুলিশকে বলেন, যারা গোলমাল পাকিয়েছে, তারা কোন পক্ষ না দেখে যেন গ্রেফতার করা হয়। যাতে সকলেরই কাছেই কড়া বার্তা যায়। পরে তিনি বলেন, ‘‘রাজনৈতিক দলগুলির সঙ্গে কথা বলেই কেন্দ্রীয় বাহিনী দেওয়ার চেষ্টা হচ্ছে। প্রত্যন্ত গ্রামের বুথগুলিতেও যাতে বেশি বাহিনী যায়, সেই নির্দেশও দেওয়া হয়েছে।’’ সবে এক দিন হলে দায়িত্বে এসেছেন জেলার নতুন পুলিশ সুপার। তিনি বলেন, ‘‘কমিশনের নির্দেশ মতো ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।’’

তৃণমূলের কোচবিহার জেলা সভাপতি রবীন্দ্রনাথ ঘোষ বলেন, “বিজেপি প্রার্থীর বিরুদ্ধে এগারোটি মামলা রয়েছে। তারাই অশান্তি তৈরির চেষ্টা করছে। মানুষ রুখে দেবে। হারবে বুঝতে পেরে নানা অভিযোগ তুলছে।”

পাশের জেলা আলিপুরদুয়ারেও মূল টক্কর তৃণমূলের দশরথ তিরকে ও বিজেপির জন বার্লার মধ্যে। দশরথ বিদায়ী সাংসদ। তাঁর বিরুদ্ধে বিরোধী দলও বিশেষ অভিযোগ তুলতে পারেনি। জেলার প্রত্যন্ত এলাকায় গিয়ে জনসংযোগ বাড়ানোর চেষ্টা করেছেন। উল্টো দিকে, জন বার্লার যথেষ্ট প্রভাব রয়েছে চা বলয়ে। পঞ্চায়েত ভোটের সময়ে তাঁকে আটক করেছিল পুলিশ। স্থানীয় লোকজনের দাবি, তাতে উল্টে ভোট বেড়েছিল বিজেপির। এ বারে জন নিজেই বিজেপি প্রার্থী। তাঁর বিরুদ্ধে তাঁরই পুরনো দল আদিবাসী বিকাশ পরিষদ। তারা সমর্থন করেছে তৃণমূলকে। ফলে এই জেলাতেও জোর লড়াই দেখার আশা রয়েছে। ৩২
কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী থাকছে আলিপুরদুয়ার লোকসভা কেন্দ্রে। থাকছেন কমিশনের তরফে সাধারণ পর্যবেক্ষক মুকেশ কুমারও।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)


Something isn't right! Please refresh.

Advertisement