Advertisement
২৯ নভেম্বর ২০২২
Mamata Banerjee

মমতার জোড়া সভা নিয়ে তৎপর নবান্ন, প্রশাসনের সচিব পর্যায়ের উপস্থিতি বাধ্যতামূলক করা হল

মুখ্যমন্ত্রীর নিরাপত্তার বিষয়টি চূড়ান্ত করতে ইতিমধ্যে নবান্ন সভাঘর ও নেতাজি ইন্ডোর স্টেডিয়াম পরিদর্শন করে এসেছে একদল পুলিশবাহিনী।

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ফাইল চিত্র

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা শেষ আপডেট: ০৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ ২০:৫২
Share: Save:

সেপ্টেম্বরের ৭ ও ৮ তারিখে জোড়া সভা রয়েছে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের। প্রথমটি হবে নবান্ন সভাঘরে রাজ্যের সচিব পর্যায়ের আধিকারিকদের সঙ্গে। দ্বিতীয়টি হবে নেতাজি ইন্ডোর স্টেডিয়ামে তৃণমূল বুথ কর্মী সম্মেলন। এই দুই জোড়া সভা নিয়ে জোর তৎপরতায় শুরু হয়েছে প্রশাসনে। এই দুই সভার আয়োজন করতে বিশেষ ভাবে তৎপর হয়েছে রাজ্য পুলিশ। মুখ্যমন্ত্রীর নিরাপত্তার বিষয়টি চূড়ান্ত করতে ইতিমধ্যে নবান্ন সভাঘর ও নেতাজি ইন্ডোর স্টেডিয়াম পরিদর্শন করে এসেছে পুলিশ।

Advertisement

তবে উৎসবের মরসুম শুরুর আগে এই জোড়া বৈঠককে প্রশাসনিক দৃষ্টিকোণ থেকে যথেষ্ট গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে। কারণ পুজোর আগে রাজ্যের উন্নয়নমূলক কাজ ও জলকল্যাণমূলক প্রকল্প রাজ্যের নিচুতলার মানুষের কাছে কতদূর পৌঁছে দেওয়া গিয়েছে, তা প্রশাসনিক বৈঠকে জানতে চাইবেন মুখ্যমন্ত্রী। তাই বৈঠকে সচিব পর্যায়ের আধিকারিকদের উপস্থিতি বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। জেলা পর্যায়ে সেই কাজ কতদূর অগ্রসর হয়েছে তা জানতে জেলাশাসকদের ভার্চূয়াল উপস্থিতি রাখা হচ্ছে বলেই নবান্ন সূত্রে খবর।

আবার আগামী পঞ্চায়েত ভোটের আগে নেতাজি ইন্ডোর স্টেডিয়ামের সভাকেই দলের সঙ্গে তৃণমূল নেত্রীর শেষ বৈঠক বলা হচ্ছে। কারণ উৎসবের মরসুম কেটে গেলেই রাজ্যে শীত পড়ে যাবে। সেই শীতেই হতে পারে রাজ্যের পঞ্চায়েত ভোট। সেই ভোটের আগে দলের সর্বস্তরের নেতানেত্রীকে এক ছাতার তলায় এনে নির্দেশ দেওয়ার সুযোগ থাকছে মমতার কাছে। তাই রাজনৈতিক দ়ৃষ্টিকোণ থেকেও এই বৈঠক যথেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণ বলেই মনে করা হচ্ছে। রাজনৈতিক বৈঠক হলেও, প্রাশসনিক কর্তাদের কড়া নজর থাকবে মুখ্যমন্ত্রীর এই বৈঠকেও।

Advertisement
(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.